kalerkantho


'ভুবনেশ্বরের বোলিং দেখে মনে হচ্ছিল উবার ডেকে হোটেলে ফিরে যাই'

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৬ জানুয়ারি, ২০১৮ ১৫:৪৩



'ভুবনেশ্বরের বোলিং দেখে মনে হচ্ছিল উবার ডেকে হোটেলে ফিরে যাই'

কেপটাউন টেস্টের প্রথম দিনেই বল হাতে আগুন ঝরিয়েছেন ভারতীয় পেসার ভুবনেশ্বর কুমার। ছবি: এএফপি

কেপটাউনে সিরিজের প্রথম টেস্টে ভারতীয় পেসার ভূবনেশ্বর কুমারের দাপটে ইনিংসের শুরুতেই ১২ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে গিয়েছিল স্বাগতিক দক্ষিণ আফ্রিকা। ওই সময় দক্ষিণ আফ্রিকার ব্যাটিং কোচ ডেল বেঙ্কেনস্টেইনের মনে হচ্ছিল, 'উবার ডেকে হোটেলে ফিরে যাই!'

বেঙ্গেনস্টেইন আরও বলেন, 'এই উইকেটে দল আর কত রান করতে পারে ভেবেই এ কথা ভাবছিলাম। ব্যাটিং কোচ হিসেবে স্কোরবোর্ডে ১২/৩ দেখতে মোটেও ভালো লাগে না। আসলে ওই সময় খেলার মোড়টা একার হাতে ঘুরিয়ে দিয়েছিল এবি ডিভিলিয়ার্স। ১২ রানে ৩ উইকেট পড়ে যাওয়ার পর দলের স্কোর ২৮৬ রানে পৌঁছে দেওয়ার কৃতিত্ব তারই।'

বেঙ্কেবস্টেইন বলেছেন, 'ভারতের বোলিং অ্যাটাক খুবই শক্তিশালী। ব্যাটসম্যান হিসেবে ভিলিয়ার্সের জাত ও অধিনায়ক ফাফ ডু প্লেসিসের লেগে থাকার ক্ষমতা ম্যাচের গতি বদলে দিয়েছিল।'

ভূবনেশ্বরের এক ওভারে ১৭ রান নিয়েছিলেন বিধ্বংসী ডিভিলিয়ার্স। ওই ওভারটিকেই গেম চেঞ্জার বলে মনে করছেন প্রোটিয়া ব্যাটিং কোচ। ডুপ্লেসিসের সঙ্গে ডি ভিলিয়ার্সের ১০০ রানের পার্টনারশিপ দক্ষিণ আফ্রিকাকে ম্যাচে ফিরিয়ে আনে। বেঙ্কেনস্টেইনের মতে, 'আসলে ওদের জুটিটা ড্রেসিংরুমে আত্মবিশ্বাস এনে দিয়েছিল।'

১৪২ রানে ৫ উইকেট পড়ে গিয়েছিল দক্ষিণ আফ্রিকার। কিন্তু লোয়ার মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যানরা সহজে উইকেট বিলিয়ে দেয়নি। অন্যদিকে ভারতের পেসার ভুবনেশ্বর কুমার ম্যাচের পর স্বীকার করেছেন অন্তত ২৫-৩০ রান নাকি তারা বেশি দিয়ে ফেলেছেন। ১২ রানে ৩ উইকেট তুলে নেওয়ার পর যে চাপটা ধরে রাখা দরকার ছিল তা সম্ভব হয়নি। প্রতি ঘন্টাতেই এমন ২-৩টি ওভার হয়েছে, যাতে স্বাগতিকরা বাউন্ডারি পেয়েছে। ফিরে পেয়েছে আত্মবিশ্বাস।



মন্তব্য