kalerkantho


সিঙ্গেলস-ডাবলস নিতে বাংলাদেশি ব্যাটসম্যানদের এত অনীহা কেন?

সত্যজিৎ কাঞ্জিলাল   

২৩ অক্টোবর, ২০১৭ ১৬:৩৫



সিঙ্গেলস-ডাবলস নিতে বাংলাদেশি ব্যাটসম্যানদের এত অনীহা কেন?

দৌঁড়ে রান নেওয়ার প্রতি বাংলাদেশি ব্যাটসম্যানদের বেশ অনীহা আছে। ছবি: এএফপি

একটি সাম্প্রতিক উদাহারণ দিয়ে শুরু করা যাক। গতকাল রবিবার ইস্ট লন্ডনে যখন দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে খেলছিল বাংলাদেশ; প্রায় একই সময় মুম্বাইয়ে নিউজিল্যন্ডের বিপক্ষে মাঠে নেমেছিল বিরাট কোহলির ভারত।

ক্যারিয়ারের ২০০তম ওয়ানডেতে ৩১তম সেঞ্চুরি করেন কোহলি। তার ১২১ রানের ইনিংসটি খেলতে সময় নিয়েছেন ১২৫ বল। চার মেরেছেন মাত্র ৯টি (৪x৯=২৭) আর ছক্কা ২টি (২x৬=১২)। আর বাকী রানগুলো নিয়েছেন সিঙ্গেল, ডাবলস কিংবা ট্রিপলসের মাধ্যমে।

একটু কল্পনা করে দেখুন, বিরাট কোহলির মত বিধ্বংসী ব্যাটসম্যানও সিঙ্গেলস-ডাবলস নিতে পটু। এর প্রয়োজনীয়তা তিনি খুব ভালোভাবেই উপলব্ধি করতে পারেন। শুধু কোহলি নন, বাংলাদেশ ছাড়া পৃথিবীর বেশিরভাগ ব্যাটসম্যানরাই ডট বল না দিয়ে সিঙ্গেলস-ডাবলস নিয়ে রানের চাকা সচল রাখেন। এটা খুব সাধারণ অংক যে, রানের চাকা সচল থাকলে প্রতিপক্ষের ওপর চাপ বেড়ে যায়।

হিসাবটা সরল হলেও বাংলাদেশি ব্যাটসম্যানরা সেটা মেনে চলেন না।

তারা মোটেও সিঙ্গেলস-ডাবলসে আগ্রহী না। রান মানেই যেন চার-ছক্কা মারা। এই মনোভাব ধারণ করে ইনিংসের প্রায় অর্ধেক বল ডট দিয়ে থাকে বাংলাদেশি ব্যাটসম্যানরা। এই মানসিকতার কারণে প্রতিপক্ষ বোলাররা আরও চেপে বসে। সদ্য সমাপ্ত ওয়ানডে সিরিজের ম্যাচ তিনটির তুলনামুলক বিশ্লেষণ করলেই বিষয়টি পরিস্কার হয়ে যাবে।

১০ উইকেটে হারা প্রথম ম্যাচে ১৫৮টি ডট বল খেলে বাংলাদেশ। দক্ষিণ আফ্রিকার ইনিংসে ডট বল ছিল ৮৯টি। ১০৪ রানে হারা দ্বিতীয় ম্যাচে মাশরাফির দল খেলে ১৫১টি ডট বল। দক্ষিণ আফ্রিকার ইনিংসে ডট বল ৯৫টি। ২০০ রানে হারা তৃতীয় ওয়ানডেতে বাংলাদেশ ডট বল খেলেছে ১৫৭টি। দক্ষিণ আফ্রিকা ডট বল দিয়েছে ১০৩টি।

বাংলাদেশের এমন ব্যাটিং দেখে সাবেক প্রোটিয়া অধিনায়ক কেপলার ওয়েসেলস তো বলেই ফেললেন, 'ওরা প্রতিটি বলে বাউন্ডারি মারার চেষ্টা করে কেন? বাজে বল অবশ্যই কাজে লাগাতে হবে। তবে ভালো বলে  সফট হ্যান্ডে খেলে সিঙ্গেলস বের করা জানতে হবে।  প্রান্ত বদল করতে হবে। রান নিলেই বোলাররা চাপে থাকে। ওরা অনেক শট খেলতে পছন্দ করে। আর এজন্যই প্রচুর ডট বল দেয়। '

ক্রিকেটের সাধারণ ধারণা বলে, রানের চাকা সচল থাকলে বোলারের ওপর যেমন চাপ বাড়ে, তেমনি বাড়ে ব্যাটসম্যানের আত্মবিশ্বাস। গেইল, ডি ভিলিয়ার্স, ধোনি, কোহলির মত মারকাটারি ব্যাটসম্যানরা সহজে ডট বল দিতে চান না। বাংলাদেশের ক্রিকেটে এই ধারণার কবে বদল হবে?


মন্তব্য