kalerkantho


'#মি টু': ভয়ানক যৌন নিপীড়নের শিকার অলিম্পিক সোনাজয়ীর টুইট!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৯ অক্টোবর, ২০১৭ ১৮:৩৯



'#মি টু': ভয়ানক যৌন নিপীড়নের শিকার অলিম্পিক সোনাজয়ীর টুইট!

অচেনা, অপরিচিত, পরিচিত কিংবা নিজের প্রেমিকার জন্য প্রাণ দিয়ে দেওয়া পুরুষের সংখ্যা পৃথিবীতে কম নেই। মাঝেমধ্যে আমাদের দেশেই 'বখাটের হামলা থেকে বোনকে বাঁচাতে গিয়ে তরুণের মৃত্যু' শিরোনামে খবর আসে।

আর এসব খবর ম্লান করে দেয় ভয়ানক সব যৌন হয়রানির খবর! কিছু বিকৃতমনা পুরুষ যারা নারীদের কেবল ভোগ্যপণ্য মনে করে তারাই এ ধরনের অপরাধ ঘটিয়ে থাকে। এসব যৌন হয়রানির ঘটনার এবার প্রকাশ্যে আনতে শুরু করেছেন অনেকেই।

বিনোদন জগৎ থেকে ক্রীড়া জগৎ। তালিকায় লক্ষ লক্ষ সাধারণ মানুষও। যার সঙ্গে যুক্ত হয়েছে গোটা বিশ্ব। নতুন করে উঠে এসেছে অনেক অনেক নাম। তাদের একজন হলেন ২০১২ অলিম্পিকে সোনা জয়ী ম্যাককেলা ম্যারনি। নিজের সাথে ঘটা যৌন নিপীড়নের ঘটনা এবার প্রকাশ্যে আনলেন তিনি।

বুধবার ম্যাককেলা '#মি টু' হ্যাশট্যাগ দিয়ে টুইট করেছেন এক পাতার একটি চিঠি।

যেখানে লেখা রয়েছে, কীভাবে ইউএসএ জিমন্যাস্টিক্স দলের ডাক্তার ল্যারি নাসার তাকে যৌন নিপীড়ন করেছিলেন। গত জুনে এই বিষয়ে দোষীও সাব্যস্ত হয়েছেন ল্যারি। তদন্তে উঠে এসেছে, ইউএসএ দলে তার আমলে তিনি প্রায় ১০০ নারী ও শিশুকে যৌন নিপীড়ন করেছেন।

২১ বছরের ম্যারনি সেই চিঠিতে লিখছেন,  ১৩ বছর বয়স থেকে এই নিপীড়নের শিকার হয়ে আসছেন তিনি। যখন তিনি প্রথম টেক্সাসে জাতীয় দলের শিবিরে যোগ দিয়েছিলেন; সেই সময় থেকে তার খেলা ছাড়া পর্যন্ত টানা চলে যৌন নিপীড়ন। প্রাণনাশের ভয়ে কাউকে কিছু বলতে পারেননি।  

২০১২ লন্ডন অলিম্পিকে একটি সোনা ও একটি রুপা জয় করেছিলেন ম্যারনি। সর্বশেষ ২০১৩ সালে বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপে অংশ নিয়েছিলেন তিনি। এরপর ২০১৬ সালে অবসর নেন ম্যারনি। তার এই পোস্টের সঙ্গে সঙ্গে আরও অনেক মার্কিন জিমন্যাস্টও একই অভিযোগ আনতে শুরু করেছেন। মেয়েদের চিকিৎসা করার সময়ই ল্যারি জিমন্যাস্টদের সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করতেন বলে প্রায় সবার অভিযোগ।  ভাইরাসের মতো ছড়িয়ে পড়া বিশ্বজুড়ে এই যৌন নিপীড়নর ঘটনায় বেশ ভালো প্রভাব ফেলতে যাচ্ছে '#মি টু'


মন্তব্য