kalerkantho


পাকিস্তানের লক্ষ্য এগিয়ে যাওয়া; শ্রীলঙ্কা চায় সমতা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৫ অক্টোবর, ২০১৭ ২০:০১



পাকিস্তানের লক্ষ্য এগিয়ে যাওয়া; শ্রীলঙ্কা চায় সমতা

ছবি: এএফপি

দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজে হোয়াইটওয়াশের লজ্জা নিয়ে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে রঙিন পোশাকে দারুণভাবে কামব্যাক করেছে আইসিসি চ্যাম্পিয়নস ট্রফি জয়ী পাকিস্তান। প্রায় ৪ মাস পর ওয়ানডে খেলতে নেমে সিরিজের প্রথম ম্যাচেই নিজেদের সেরাটা ঢেলে দিয়েছে ক্রিকেটাররা।

ব্যাট হাতে সেঞ্চুরি করেছেন বাবর। আর ৫ নম্বরে নেমে বিধ্বংসী মেজাজ দেখিয়েছেন শোয়েব মালিক। ৮৩ রানের জয়ে সিরিজে ১-০ তে এগিয়ে 'স্বাগতিক'রা। সোমবার বাংলাদেশ সময় বিকাল ৫ টায় শুরু হওয়া সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে এই ব্যবধান বাড়িয়ে নিতে মরিয়া সরফরাজ বাহিনী।

জয় দিয়ে ওয়ানডে সিরিজ শুরু করায় সতীর্থদের প্রশংসাই করেছেন পাকিস্তানের অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদ। দ্বিতীয় ম্যাচেও দল দুর্দান্ত পারফরমেন্সের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখার ঘোষণা দিয়ে তিনি বলেন, 'টেস্ট সিরিজের স্মৃতি আমরা ভুলে গেছি। এখন ওয়ানডে নিয়েই ভাবছি আমরা। আমাদের লক্ষ্য ছিল সিরিজে দুর্দান্ত শুরুর। সেটি করতে পারায় সতীর্থদের ধন্যবাদ জানাচ্ছি।

আশা করি সিরিজের বাকী সময়েও আমরা সেরা পারফরমেন্স প্রদর্শন করতে পারব। ম্যাচ বাই ম্যাচ এগিয়ে যেতে চাই। এখন লক্ষ্য দ্বিতীয় ওয়ানডে জিতে ওদের ওপর চাপ সৃষ্টি করা। '

অন্যদিকে সিরিজের প্রথম ম্যাচ হারের জন্য ব্যাটিং-বোলিং-ফিল্ডিং তিন বিভাগকেই দুষলেন শ্রীলঙ্কার অধিনায়ক উপুল থারাঙ্গা। তবে দ্বিতীয় ম্যাচে দল ঘুড়ে দাড়াবে বলে বিশ্বাস থারাঙ্গার, 'প্রথম ম্যাচে আমাদের কোনো পরিকল্পনাই কাজে লাগেনি। ওরা খুবই ভালো ক্রিকেট খেলেছে। তবে এসব নিয়ে আমরা ভাবছি না। সিরিজে সমতা আনাই আমাদের প্রধান লক্ষ্য। এজন্য যার যার দায়িত্ব ভালোভাবে পালন করতে হবে। সিরিজে সমতা আনার সামর্থ্য আমাদের রয়েছে। '

শ্রীলঙ্কা দল: উপুল থারাঙ্গা (অধিনায়ক), দিনেশ চান্দিমাল, নিরোশান ডিকভিলা, লাহিরু থিরিমান্নে, কুশাল মেন্ডিস, মিলিন্দা সিরিবর্ধনে, চামারা কাপুগেদারা, থিসারা পেরেরা, সেকুজে প্রসন্ন, নুয়ান প্রদীপ, সুরাঙ্গা লাকমল, দুশমন্ত চামিরা, বিশ্ব ফার্নান্দো, আকিলা ধনাঞ্জয়া, জেফরি ভান্দারসে।

পাকিস্তান দল: সরফরাজ আহমেদ (অধিনায়ক), আহমেদ শেহজাদ, ফখর জামান, মোহাম্মদ হাফিজ, বাবর আজম, শোয়েব মালিক, ইমাদ ওয়াসিম, শাদাব খান, ফাহিম আশরাফ, হাসান আলী, মোহাম্মদ আমির, রুম্মান রইস, জুনায়েদ খান, হারিস সোহেল ও ইমাম উল হক।


মন্তব্য