kalerkantho


আইসিসির 'হল অব ফেম' এ স্পিন জাদুকর মুরালিধরন

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২১ এপ্রিল, ২০১৭ ২০:০৪



আইসিসির 'হল অব ফেম' এ স্পিন জাদুকর মুরালিধরন

ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিলের (আইসিসি) সম্মানজনক 'হল অব ফেম' এ অন্তর্ভুক্ত হচ্ছেন শ্রীলঙ্কার কিংবদন্তি অফ-স্পিনার মুত্তিয়া মুরালিধরন। আগামী জুনে ইংল্যান্ড এন্ড ওয়েলসে অনুষ্ঠিতব্য আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি চলাকালীন হল অব ফেমে অর্ন্তভূক্ত হবেন তিনি। শ্রীলঙ্কার প্রথম ক্রিকেটার হিসেবে এমন সম্মানে ভূষিত হচ্ছেন মুরালি। এর আগে এই সম্মানে ভূষিত হয়েছেন অস্ট্রেলিয়ার কারেন রোল্টন, আর্থার মরিস, ডন ব্র্যাডম্যান এবং জর্জ লোহম্যান। উনবিংশ শতাব্দিতে ১৬ টেস্টে ১০০ উইকেট নিয়েছিলেন লোহম্যান।  

মুরালিধরনের এমন সম্মানে শ্রীলঙ্কার ক্রিকেট গর্বিত বলে বিবৃতি দিয়েছেন লঙ্কান ক্রিকেটের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা অসলো ডি সিলভা। তিনি বলেছেন, "তার জন্য আমরা গর্বিত এবং শ্রীলঙ্কা ক্রিকেটের জন্য গৌরব বয়ে এনেছেন মুরালি। তার ক্যারিয়ার যতটা বিখ্যাত ততটাই মর্যাদাপূর্ণ। "

সদ্য শেষ হওয়া বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা সিরিজ, ভারত সফর বা চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি চলাকালীন আইসিসির হল অব ফেমে অন্তর্ভুক্তর জন্য মুরালিধরনকে প্রস্তাব দেয়া হয়েছিলো। এর মধ্যে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি বেছে নেন মুরালি। তাই আগামী ৮ জুন ওভালে ভারত-শ্রীলঙ্কা ম্যাচে মুরালিকে হল অব ফেমে অন্তর্ভুক্ত করা হবে।

 

এক অভিনন্দনবার্তায় আইসিসির প্রধান নির্বাহী ডেভিড রিচার্ডসন বলেছেন, "সত্যিকারের গ্রেটদের হল অব ফেমের স্বীকৃত দেয় আইসিসি। এটা লিজেন্ডদের দল। এই যুগের অন্যতম সেরা খেলোয়াড় মুরালি। শ্রীলঙ্কাকে টেস্ট ও ওয়ানডেতে বড় দলে পরিণত করতে তার অবদানের তুলনা হয়না। "

২০১১ বিশ্বকাপের পর ক্রিকেটকে বিদায় জানান মুরালিধরন। ১৩৩ টেস্টে ৮০০, ৩৫০ ওয়ানডেতে ৫৩৪ ও ১২ টি-টোয়েন্টিতে ১৩ উইকেট শিকার করেন তিনি। ১৯৯৬ বিশ্বকাপ জয়ী শ্রীলঙ্কা দলের সদস্য ছিলেন মুরালি।


মন্তব্য