kalerkantho


ড্র হলো ভারত-অস্ট্রেলিয়ার তৃতীয় টেস্ট

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২০ মার্চ, ২০১৭ ১৭:২০



ড্র হলো ভারত-অস্ট্রেলিয়ার তৃতীয় টেস্ট

ম্যাচের পঞ্চম দিন সকালে ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়লেও শেষ পর্যন্ত ‘স্বস্তির’ ড্র করতে সক্ষম হয়েছে স্মিথ বাহিনী। ভারতের প্রথম ইনিংস থেকে ১৫২ রানে পিছিয়ে থেকে দ্বিতীয় ইনিংস শুরু করে অস্ট্রেলিয়া।

বড় কিছু না ঘটল এই টেস্টের ভাগ্যে ড্র ছাড়া আর কিছু লেখা ছিল না। রবিন্দ্র জাদেজা ৪ উইকেট তুলে ভয় ধরিয়ে দিলেও শেষ পর্যন্ত শন মার্শ এবং পিটার হ্যান্ডসকম্বের দৃঢ়তায় ঘুরে দাঁড়ায় অজিরা। পঞ্চম উইকেটে দুজনে মিলে ১২৪ রানের জুটি গড়েন। অজিদের দ্বিতীয় ইনিংসে ৬ উইকেটে ২০৪ রান ওঠার পর ড্র মেনে নেন দুই অধিনায়ক।

অজিদের ৪৫১ রানের জবাবে প্রথম ইনিংসে ৯ উইকেটে ৬০৩ রান করে ইনিংস ঘোষণা করে ভারত। ডাবল সেঞ্চুরি করেন চেতেশ্বর পুজারা। তার ৫২৫ বলে ২০২ রানের ইনিংসটিতে ভর করেই মূলত শক্ত অবস্থানে যায় ভারত। উইকেটকিপার ব্যাটসম্যন ঋদ্ধিমান সাহার অবদানও কম নয়। ২৩৩ বলে করেছেন ১১৭ রান।

তাই অধিনায়ক বিরাট কোহলি ব্যর্থ হলেও এই দুজনের ব্যাটেই রানের পাহাড় গড়ে ভারত। এ ছাড়া মুরালি বিজয় ৮২, লোকেশ রাহুল ৬৭ এবং রবিন্দ্র জাদেজার ৫৫ বলে ৫ চার এবং ২ ছক্কায় অপরাজিত ৫৪ রানের ইনিংসগুলো উল্লেখযোগ্য।

১৫২ রানে পিছিয়ে থেকে দ্বিতীয় ইনিংস শুরু করে অস্ট্রেলিয়া। প্রথম ইনিংসে ৫ উইকেট নিয়েছিলেন রবিচন্দ্রন অশ্বিনের আক্রমণ সঙ্গী রবিন্দ্র জাদেজা। অজিদের দ্বিতীয় ইনিংসেও শুরু হয় তার ঘূর্ণি জাদু। দলীয় ১৭ রানেই ভয়ংকর ডেভিড ওয়ার্নারকে (১৪) ফিরিয়ে দেন তিনি। ৬ রানের ব্যবধানে তার দ্বিতীয় শিকার হন নাথান লিওন (২)। উইকেট উৎসবে যোগ দেন পেসার ইশান্ত শর্মাও। দলীয় ৫৯ রানে তার বলে এলবিডাব্লিউ হয়ে ফিরে যান ওপেনার ম্যাট রেনশ (১৫)।

অধিনায়ক স্টিভেন স্মিথ টিকে থাকার চেষ্টা করলেও ব্যক্তিগত ২১ রানে তাকেও জাদেজার শিকার হতে হয়। তিন ব্যাটসম্যানকেই সরাসরি বোল্ড করেছেন জাদেজা। তার ঘূর্ণির কাছে অনেকটাই অসহায় হয়ে পড়েছে অজি ব্যাটিং লাইনআপ। ৬৩ রানে ৪ উইকেট হারানোর পর জুটি গড়ে বিপদ সামাল দেওয়ার চেষ্টা করেন মার্শ এবং হ্যান্ডসকম্ব। এতে তারা বেশ সফল হন। শন মার্শ ১৯৭ বলে ৫৩ রান করে জাদেজার চতুর্ত শিকার হন। আর রবিচন্দ্রন অশ্বিনের একমাত্র শিকার হন আগের ইনিংসের সেঞ্চুরিয়ান গ্লেন ম্যাক্সওয়েল। ২০০ বলে ৭ বাউন্ডারিতে ৭২ রান করে অপরাজিত থাকেন পিটার হ্যান্ডসকম্ব।


মন্তব্য