kalerkantho


বিদায়ের আগে বাংলাদেশকে ৯৬ এর শ্রীলঙ্কা বানাতে চাই : হাথুরুসিংহে

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৩ মার্চ, ২০১৭ ১৩:২১



বিদায়ের আগে বাংলাদেশকে ৯৬ এর শ্রীলঙ্কা বানাতে চাই : হাথুরুসিংহে

চুক্তি অনুযায়ী আরও ২ বছর বাংলাদেশের প্রধান কোচের দায়িত্ব পালন করবেন চন্দ্রিকা হাথুরুসিংহে। ২০১৪ সালে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের দায়িত্ব নেন তিনি।

এরপর দারুণ সব চমক উপহার দেয় মাশরাফি-সাকিবরা। প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালে ওঠা, ঘরের মাঠে টানা ৬টি সিরিজ জয়, প্রথমবারের মতো ইংল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্ট জয়, সরাসরি ২০১৭ চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে অংশগ্রহণসহ আছে আরও সাফল্যর ইতিহাস। পাশাপাশি দল নির্বাচন নিয়ে তাকে সমালোচনার মুখোমুখিও হতে হয়েছে। সবকিছুর ঊর্ধ্বে বাংলাদেশকে নিয়ে তার একটি দারুণ পরিকল্পনা আছে। শ্রীলঙ্কার পত্রিকা ডিভাইনের সঙ্গে একান্ত সাক্ষাৎকারে তিনি তার এই স্বপ্নর কথা জানালেন।

১৯৯৬ সালের অর্জুনা রানাতুঙ্গার শ্রীলঙ্কা ছিল দুর্ধর্ষ দল। ৯৬ এর বিশ্বকাপ জিতে নিয়েছিল তারা। তখনকার সেই দল থাকা অরবিন্দ ডি সিলভা, মুত্তিয়া মুরালিধরন, সনাথ জয়াসুরিয়া পরবর্তীতে ক্রিকেট লিজেন্ড হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেন। ওই ৯০ দশকেই বিশ্বক্রিকেটে নিজেদের প্রতিষ্ঠিত করে শ্রীলঙ্কা।

বর্তামানের মাশরাফি-মুশফিকদের বাংলাদেশকে ৯৬ এর শ্রীলঙ্কা দলের মতো দুধর্ষ হিসেবে রেখে যেতে চান এই শ্রীলঙ্কান। বর্তমানে তিনি ও তার শিষ্যরা শ্রীলঙ্কা সফরে আছে।

সাক্ষাৎকারে হাথুরু বলেন, "২০১৯ সালে দায়িত্ব ছাড়ার আগে আমি বাংলাদেশকে সেই অবস্থানে রেখে যেতে চাই ১৯৯৬ সালে শ্রীলঙ্কা যে অবস্থানে ছিল। এটাই আমার লক্ষ্য। "

বিসিবির কাছ থেকে অনেক আগেই কাজ করার স্বাধীনতা পেয়েছেন হাথুরুসিংহে। ক্রিকেটের উন্নয়নে তিনি যা চান সেটা তাকে দেওয়ার একটা অলিখিত চুক্তি হয়েছে বিসিবির সঙ্গে। যেমন দল নির্বাচনের ক্ষেত্রে কোচের হস্তক্ষেপ। এ কারণে যেমন সাফল্যও পেয়েছে বাংলাদেশ দল, তেমনি বেশ কিছু ক্ষেত্রে কোচকে সমালোচনার মুখোমুখি হতে হয়েছে। এসব কিছুকেই কোচিংয়ের অংশ হিসেবে মনে করে হাথুরু।

তিনি বলেছেন, "আমি তো চিরকালের জন্য বাংলাদেশের কোচ হিসেবে থাকব না। তবে আমি পদত্যাগও করব না। যদি দলের প্রয়োজনে আমার কাজগুলো করার স্বাধীনতা না পাই তবেই চাকরি ছাড়ার প্রশ্ন আসে। "

সুযোগ পেলে শ্রীলঙ্কার কোচ হতে চান জানিয়ে হাথুরু আরও বলেন, "আমি বাংলাদেশকে সাফল্য উপহার দিতে পেরেছি কারণ আমি দীর্ঘ ২০ বছর আমার দেশ শ্রীলঙ্কায় ক্রিকেট আত্মস্থ করেছি। এরপর আমি অস্ট্রেলিয়া গিয়েছি। সেখানে কোচিং শিখেছি। আমার দেশ যদি আমাকে দলের দায়িত্ব দেয় তবে আমি খুশি মনে তা গ্রহণ করব। "


মন্তব্য