kalerkantho


শততম টেস্টের ভেন্যু যেন টাইগারদের জন্য বিভীষিকা!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১২ মার্চ, ২০১৭ ১৬:৩৫



শততম টেস্টের ভেন্যু যেন টাইগারদের জন্য বিভীষিকা!

ছবির মতো সুন্দর মাঠ পি সারা ওভাল। গল টেস্টে হারার গতকালই কলম্বোর চলে এসেছে বাংলাদেশ দল।

এই কলম্বোর পি সারা ওভালেই ঐতিহাসিক শততম টেস্ট খেলবে বাংলাদেশ। দেশের মাটিতে ইংল্যান্ডকে প্রথমবারের মতো টেস্টে হারানোর পর সমর্থকদের মনে অনেক আশা জেগেছিল। কিন্তু নিউজিল্যান্ড সফর থেকে আর জয়ের মুখ দেখছে না বাংলাদেশ। অনেকে বলছেন শততম টেস্ট জয় দিয়ে স্মরণীয় করে রাখতে চায় বাংলাদেশ। কিন্তু শততম টেস্ট ভেন্যু পি সারা ওভাল তো বাংলাদেশের জন্য বিভীষিকা! এই মাঠে লজ্জা ছাড়া আর কোনো প্রাপ্তি নেই। একটু ব্যাখ্যা করা যাক।

শ্রীলঙ্কার মাটিতে তাদের বিপক্ষে খেলা ১১টি ম্যাচের মধ্যে ৩টি ম্যাচ হয়েছে পি সারা ওভালে। আগামী ১৫ মার্চ থেকে শুরু হতে যাওয়া টেস্টটি হবে এই ভেন্যুতে চতুর্থ ম্যাচ। টেস্ট স্ট্যাটাস পাওয়ার ২ বছর পর অর্থাৎ ২০০২ সালে এই ভেন্যুতে প্রথম টেস্ট খেলে বাংলাদেশ।

প্রথম উইকেটে ১৬১ রানে অল-আউট হয়েছিলে খালেদ মাসুদ পাইলটের দল। সর্বোচ্চ ৫৫ রান করেছিলেন হান্নান সরকার। দলনেতা সনাথ জয়াসুরিয়ার ১৪৫ আর অরবিন্দ ডি সিলভার ২০৬ রানের দৌলতে লঙ্কানরা প্রথম ইনিংসে করেছিল ৫৪১ রান। জবাবে দ্বিতীয় ইনিংসে বাংলাদেশ ১৮৪ রানে অল-আউট হয়ে গেলে ইনিংস ও ১৯৬ রানে পরাজয় ছাড়া গত্যন্তর ছিল না।

২০০৫ সালে এই ভেন্যুতে কুমার সাঙ্গাকারার নেতৃত্বাধীন শ্রীলঙ্কার মুখোমুখি হাবিবুল বাশারের বাংলাদেশ। প্রথম ইনিংসে সৈয়দ রাসেল আর শাহাদত হোসেনের ৪টি করে উইকেটের পরও শ্রীলঙ্কা ৪৫৭ রান করে। জবাবে প্রথম ইনিংসে ১৯১ রানেই শেষ বাংলাদেশের ইনিংস। ফলোঅন না করানোর কোনো কারণ ছিল না। দ্বিতীয়বার ব্যাট করতে নেমে সেই নার্ভাস নাইন্টিজেই (১৯৭) অল-আউট বাংলাদেশ। ফলাফল ইনিংস এবং ৯৮ রানের পরাজয়।

তবে সবচেয়ে বড় লজ্জার ঘটনাটি ঘটে ২০০৭ সালে এই স্টেডিয়ামে বাংলাদেশের খেলা সর্বশেষ ম্যাচে। টসে জিতে বাংলাদেশকে ব্যাটিংয়ে পাঠায় শ্রীলঙ্কা। বিশ্বাস না করার কোনো কারণ নেই, মুরলিধরনের ঘূর্ণি আর লাসিথ মালিঙ্গার গতির তোড়ে প্রথম ইনিংসে মাত্র ৬২ রানে অল-আউট হয় মোহাম্মদ আশরাফুলের বাংলাদেশ! এর মধ্যে ৬ রান আবার এক্সট্রা। কেবল রাজিন সালেহ (১০৭ বলে ২১ রান) ছাড়া আর কোনো ব্যাটসম্যান দুই অংকে পৌঁছতে পারেনি। মুরালি এবং ভাস ৪টি করে উইকেট নেন। জবাবে প্রথম ইনিংসে সাঙ্গাকারার ডাবল সেঞ্চুরিতে ৪৫১ রানের পাহাড় গড়ে মাহেলা জয়াবর্ধনের শ্রীলঙ্কা। দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে অধিনায়ক আশরাফুলের অপরাজিত সেঞ্চুরিতে (৩১৪ বলে ১২৯ রান) ২৯৯ রান করে বাংলাদেশ। তরুণ মুশফিকুর রহিম করেন ২৩৫ বলে ৮০ রান। কিন্তু ইনিংস হার বাঁচানোর জন্য এই স্কোর যথেষ্ট ছিল না। পরাজয়ের ব্যবধানে ইনিংসের সঙ্গে আরও ৯০ রান যুক্ত হয়।

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে বাংলাদেশের পরাজয়গুলো বেশিরভাগই বড় ব্যবধানে। শনিবার সমাপ্ত হওয়া গল টেস্টেও জুটেছে ২৫৯ রানের পরাজয়। সেটাও বলতে গেলে অনভিজ্ঞ একটা দলের বিপক্ষে। আসন্ন কলম্বো টেস্টের ভেন্যুতেও কেবল ইনিংস পরাজয়ের ইতিহাস। তবে এটাও সত্য যে, বাংলাদেশ দলও এখন আমূলে বদলে গেছে। তারপরও শততম টেস্ট স্মরণীয় করে রাখতে বাংলাদেশকে কঠিন পরীক্ষা দিতে হবে টাইগারদের। ধনুক ভাঙা পণ নিয়ে উইকেটে টিকে থাকতে হবে। তবেই হয়তো এই বিভীষিকাময় ভেন্যুতে নতুন ইতিহাস সৃষ্টি করতে সক্ষম হবে মুশফিক বাহিনী।


মন্তব্য