kalerkantho


অজিদের স্লেজিংয়ের জবাব হবে কোহলির ব্যাটে : আজহারউদ্দিন

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১২:২৪



অজিদের স্লেজিংয়ের জবাব হবে কোহলির ব্যাটে : আজহারউদ্দিন

মাঠে খেলা গড়ানোর আগেই দুই দলের কথার লড়াই বেশ জমে উঠেছে। কথার লড়াইয়ে আরও বেশি হাওয়া দিচ্ছেন সাবেক ক্রিকেটাররা। এবার সে তালিকায় যুক্ত হলেন সাবেক গ্রেট মোহাম্মদ আজহারউদ্দিন। আসন্ন সিরিজে অস্ট্রেলিয়া স্লেজিং করলে মুখ ও ব্যাট দিয়েই বিরাট কোহলি তার সমুচিত জবাব দেবে বলে মন্তব্য করেছেন সাবেক ভারত অধিনায়ক।

বৃহস্পতিবার শুরু হতে যাওয়া ৪ ম্যাচের টেস্ট সিরিজ শুরুর আগে ভারতের সেরা অস্ত্র অধিনায়ক কোহলিকে আটকানোর অস্ত্রগুলোর মধ্যে স্লেজিং-ও আছে বলে জানিয়েছিলেন অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক স্টিভেন স্মিথ। অসি দলপতির কথা পরিপ্রেক্ষিতেই আজহার বলেন, "অস্ট্রেলিয়ানরা দুই বছর আগের কথা ভুলে গিয়েছে। তারা এবারও স্লেজিং করলে, মুখ ও ব্যাট দিয়ে আবারো জবাব দিবে কোহলি। "

দুই বছর আগে অস্ট্রেলিয়া সফরে স্লেজিং দিয়ে কোহলিকে রাগিয়ে দিয়েছিলেন স্মিথ-জনসনরা। সেই রাগানোর ফল মোটেও ভালো হয়নি অসিদের। ৪ ম্যাচের সিরিজ ২-০ ব্যবধানে অস্ট্রেলিয়া জিতলেও, কোহলির ব্যাটিং ঝড় দেখেছেন স্মিথ-জনসনরা। স্লেজিং এর জবাবটা ব্যাট হাতে চার টেস্টে ৪ সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে দিয়েছিলেন কোহলি।

সেই অস্ট্রেলিয়া আবারও স্লেজিংকে আশ্রয় করে জিততে চাইছে।

স্মিথের এই কথায় অতীতকে মনে করিয়ে দিলেন আজহারউদ্দিন। সেই সাথে অস্ট্রেলিয়ার এমন ফর্মূলা বুমেরাং হবে মনে করা আজহার বলেন, "স্লেজিং করতে গেলে অস্ট্রেলিয়াই বিপদে পড়বে। কোহলি এই মুহূর্তে বিশ্বসেরা ব্যাটসম্যান। তাকে কোনো কিছু দিয়ে আটকানো যাবে না। সে সব কিছু উড়িয়ে দিবে। কেউ ইট ছুড়লে পাটকেল ফিরিয়ে দেবে কোহলি। অস্ট্রেলিয়া স্লেজিং করলে সে মুখ ও ব্যাট, দুটো দিয়েই পাল্টা জবাব দিয়ে দেবে। "

স্লেজিং করলেই ম্যাচ জয় করা যায় না, জিততে হলে যোগ্যতা লাগে বলে জানান আজহারউদ্দিন। অস্ট্রেলিয়ার জয়ের যোগ্যতা নেই বলেই তারা স্লেজিং বেছে নিয়েছে উল্লেখ করে ভারতের সাবেক এ তারকা খেলোয়াড় বলেন, "আমি মনে করি, ভালো খেলোয়াড়রা কখনও স্লেজ করে না। এসব অস্ট্রেলিয়াই প্রথম করেছে। স্টিভ ওয়াহ’র আমলে স্লেজিং প্রথম শুরু হয়েছিল। যে দলের যোগ্যতা নেই তারা স্লেজ করে জিততে পারবে না। "

ভারতের হয়ে ১৫ বছরের ক্রিকেট ক্যারিয়ারে ৯৯টি টেস্ট ও ৩৩৪টি ওয়ানডে খেলেছেন আজহারউদ্দিন। টেস্টে ৬২১৫ ও ওয়ানডেতে রান করেছেন ৯৩৭৮। অধিনায়ক হিসেবে ভারতকে ৪৭ টেস্টে নেতৃত্ব দিয়ে ১৪টি করে জয় ও হার এবং ১৯টিতে ড্র করেছেন। এ ছাড়া ১৭৪টি ওয়ানডে ম্যাচে নেতৃত্ব দিয়ে ভারতকে ৯০টি ম্যাচে জয়, ৭৬টি ম্যাচে হারের স্বাদ পেতে হয়েছে তাকে। তবে তার ক্যারিয়ারের শেষটা সুখকর হয়নি।


মন্তব্য