kalerkantho


ভারতের কাছে ২০০ মিলিয়ন ডলার ক্ষতিপূরণ চায় পাক ক্রিকেট বোর্ড!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১২:৪১



ভারতের কাছে ২০০ মিলিয়ন ডলার ক্ষতিপূরণ চায় পাক ক্রিকেট বোর্ড!

পাকিস্তানের সাথে ভারত দ্বিপাক্ষিক সিরিজ খেলতে অস্বীকৃতি জানানোয় পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের (পিসিবি) প্রায় ২০০ মিলিয়ন ডলার আর্থিক ক্ষতি হয়েছে বলে দাবি জানিয়েছেন বোর্ড চেয়ারম্যান শাহরিয়ার খান। একইসাথে শাহরিয়ার খান আরো জানিয়েছেন পিসিবি খুব শিগগিরই ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিসিআই) বিপক্ষে আইনি কার্যক্রম শুরু করবে। তবে তার আগে আইসিসির খসড়া সংবিধান এর নিশ্চয়তা পেতে হবে। আগামী এপ্রিলে আইসিসির সভায় যা অনুমোদন হতে পারে বলে ইঙ্গিত রয়েছে।  

সাম্প্রতিক আইসিসি সভায় ইতিমধ্যেই বিসিসিআই প্রতিনিধিকে এ ব্যপারে অবগত করা হয়েছে বলে শাহরিয়ার খান জানিয়েছেন।  তিনি বলেছেন, আইসিসি সভায় বিসিসিআই প্রতিনিধি তাকে জানিয়েছেন ভারত পাকিস্তানে খেলতে রাজি ছিল। কিন্তু ভারত সরকারের সবুজ সংকেত না থাকায় এ ব্যাপারে কোনো অগ্রগতী হয়নি। দুই বোর্ডের সম্মতিতেই ২০১৫-২০২৩ সালের মধ্যে বেশ কয়েকটি দ্বিপাক্ষিক সিরিজ আয়োজনের জন্য এই সমঝোতা চুক্তি স্বাক্ষর হয়েছিল। কিন্তু সরকারের অনুমতি না থাকায় এই ধরনের এমওইউ সব সময় প্রযোজ্য নয় বলে বিসিসিআই দাবি জানিয়েছে।

শাহরিয়ার খান আরও বলেছেন, এই ধরনের চুক্তিতে স্বাক্ষর করার আগে ভারতের অবশ্যই তাদের সরকার সম্পর্কে বোঝা উচিত ছিল। ভারত দুইবার পাকিস্তানের সাথে হোম সিরিজ খেলতে অস্বীকৃতি জানিয়েছে।

যে কারণ পিসিবি’র প্রায় ২০০ মিলিয়ন ডলার আর্থিক ক্ষতি হয়েছে।  

উল্লেখ্য, ২০০৭ সালের পর থেকে পাকিস্তানের বিপক্ষে কোনো দ্বিপাক্ষিক সিরিজ খেলেনি ভারত। যদিও ২০১২/১৩ শীতকালীন মৌসুমে দুটি সীমিত ওভারের ম্যাচ খেলতে সংক্ষিপ্ত একটি শুভেচছা সফরে পাকিস্তান ভারত গিয়েছিল। পিসিবি প্রধান জানিয়েছেন নতুন সিদ্ধান্ত অনুযায়ী 'বি থ্রি' বাতিলের পরে অন্যান্য বোর্ডের তুলনায় ভারত ১৬ শতাংশ বেশি শেয়ার আয় করবে আইসিসির কাছ থেকে। অস্ট্রেলিয়া ও ইংল্যান্ড অন্যান্য বোর্ডের তুলনায় হোম সিরিজে ৫০ শতাংশ বেশি রাজস্ব পাবে। রাজস্ব বিভাজনে এটা কোনোমতেই সমান পদ্ধতি হতে পারে না। দ্বিপাক্ষিক সিরিজের সমঝোতা চুক্তি অনুযায়ী ভারতের বিপক্ষে অন্তত ছয়টি হোম সিরিজের কথা ছিল যেখান থেকে পিসিবি বিপুল পরিমাণ রাজস্ব আয়ের লক্ষ্য স্থির করেছিল।


মন্তব্য