kalerkantho


পারবে কি সাকিব মাহমুদউল্লারা?

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



পারবে কি সাকিব মাহমুদউল্লারা?

রবিচন্দ্রন অশ্বিন ও রবীন্দ্র জাদেজা উইকেট থেকে সুবিধা পেতে শুরু করেছেন, ফুটমার্কও দারুণভাবে ব্যবহার করছেন। পঞ্চম দিনে কতটা সংগ্রাম করতে হবে তার একটা নমুনা চতুর্থ দিন শেষ বেলায় দেখেছে বাংলাদেশ। এক সেশনেই টপঅর্ডারের তিন ব্যাটসম্যানকে হারিয়ে চাপে পড়েছে মুশফিকুর রহিমের দল।

ভালো শুরু পেলেও ইনিংস বড় করতে না পারায় খানিকটা চাপে আছেন মাহমুদউল্লাহ। নিজের খেলার ধরনের সঙ্গে আপোষ না করা সাকিব আল হাসান একবার বেঁচেছেন রিভিউ নিয়ে। ম্যাচ বাঁচাতে এই দুই অপরাজিত ব্যাটসম্যান আর প্রথম ইনিংসে শতক করা মুশফিকুর রহিমের দিকে তাকিয়ে বাংলাদেশ। চতুর্থ দিন শেষে দ্বিতীয় ইনিংসে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৩ উইকেটে ১০৩ রান। জয়ের জন্য শেষ দিন আরও ৩৫৬ রান চাই তাদের। ভারতের দরকার শেষ ৭ উইকেট।  
 
চতুর্থ দিনের শেষ সেশনে ফেরেন বাংলাদেশের তিন টপঅর্ডার ব্যাটসম্যান তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকার ও মুমিনুল হক। দিনের শেষ ১০.৫ ওভার নিরাপদেই কাটিয়ে দেন মাহমুদউল্লাহ ও একবার রিভিউ নিয়ে বাঁচা সাকিব আল হাসান।

উইকেট থেকে সহায়তা পেতে শুরু করেছেন বোলাররা। ফুটমার্কের সুবিধাও কাজে লাগাচ্ছেন তারা। ম্যাচ বাঁচাতে পঞ্চম ও শেষ দিন কঠিন লড়াই অপেক্ষা করছে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের সামনে। ৭ উইকেটে পুরো একটি দিন কাটিয়ে দেওয়া চ্যালেঞ্জিং হবে। চতুর্থ ইনিংসে এ পর্যন্ত তিনবার একশ ওভারের বেশি ব্যাট করেছে বাংলাদেশ। তার দুইবার হার এড়ানো যায়নি। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে প্রায় পাঁচ সেশন ব্যাট করে ম্যাচ বাঁচিয়েছিল বাংলাদেশ।

টপ অর্ডারের তিন ব্যাটসম্যানের বিদায়ের পর বাংলাদেশকে এগিয়ে নেন মাহমুদউল্লাহ ও সাকিব আল হাসান। ৩২তম ওভারে দলের রান তিন অঙ্কে নিয়ে যান এই দুই ব্যাটসম্যান। আম্পায়ার ভারতীয়দের শর্ট লেগে ক্যাচের আবেদন সাড়া দিলে রিভিউ নেন সাকিব আল হাসান। আল্ট্রাএজে রবীন্দ্র জাদেজার বল তার ব্যাট স্পর্শের কোনো প্রমাণ না মেলায় বেঁচে যান এই বাঁহাতি ব্যাটসম্যান। সে সময় ৮ রানে ব্যাট করছিলেন তিনি।

সৌম্য সরকারের বিদায়ের পরপরই ফেরেন মুমিনুল হক। রবিচন্দ্রন অশ্বিনের বলে স্লিপে অজিঙ্কা রাহানের হাতে ধরা পড়েন বাঁহাতি এই টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান। নিজের দ্বিতীয় ওভারে বাংলাদেশের প্রতিরোধ ভাঙেন রবীন্দ্র জাদেজা। এই বাঁহাতি স্পিনারের বলে স্লিপে অজিঙ্কা রাহানের চমৎকার ক্যাচে পরিণত হন সৌম্য সরকার। ৪২ রান করা সৌম্যর বিদায়ে ভাঙে তার সঙ্গে মুমিনুল হকের ১৬.৪ ওভার স্থায়ী ৬০ রানের জুটি। বাংলাদেশের স্কোর তখন ৭১/২। দ্রুত তামিম ইকবালকে হারানো বাংলাদেশ প্রতিরোধ গড়ে সৌম্য সরকার ও মুমিনুল হকের ব্যাটে। অবিচ্ছন্ন দ্বিতীয় উইকেটে ১৩.৫ ওভারে ৫০ রানের জুটি গড়েন এই দুই বাঁহাতি ব্যাটসম্যান।
 
রবিচন্দ্রন অশ্বিনের বলে প্রথম স্লিপে বিরাট কোহলির ক্যাচে পরিণত হন তামিম ইকবাল। আম্পায়ার জোরালো আবেদনে সাড়া না দিলে রিভিউ নেন ভারতীয় অধিনায়ক। আল্ট্রাএজে বল ব্যাটে লাগার প্রমাণ মিললে পাল্টায় আম্পায়ারের সিদ্ধান্ত।  
 
৪৫৮ রানে এগিয়ে থেকে চা বিরতির পর পরই দ্বিতীয় ইনিংস ঘোষণা করে ভারত। প্রথম ইনিংস ১২৭.৫ ব্যাট করা বাংলাদেশকে দ্বিতীয় ইনিংসে কাটাতে হবে চার সেশন। লক্ষ্য তাড়ার জন্য ১২৫ ওভার পেয়েছে মুশফিকুর রহিমের দল। দ্বিতীয় ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারেই অফ স্পিনার রবিচন্দ্রন অশ্বিনকে আক্রমণে আনেন বিরট কোহলি। এর আগে প্রথম সেশনের প্রথম ঘণ্টায় শুধু পেসারদের দিয়েই বল করান তিনি।

তাই আগামীকাল ৫ম দিনে সারা বাংলাদেশ তাকিয়ে থাকবে দুই নাবিকের দিকে। পারবে কি বাংলাদেশ ভারতের মাটিতে দেশের মান রাখতে? নাকি আবার হতাশায় ডুবাবে। জানতে হলে তাই অপেক্ষা করুন আজকের রাতটি।


মন্তব্য