kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


অভিষেকেই ৫ উইকেট নিয়ে রেকর্ডের পাতায় মেহেদি

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২০ অক্টোবর, ২০১৬ ১৬:৫৯



অভিষেকেই ৫ উইকেট নিয়ে রেকর্ডের পাতায় মেহেদি

বলা হয় টেস্ট ক্রিকেটেই আসল পরীক্ষা একজন ক্রিকেটারের। তাই টেস্টে অভিষেক হওয়াটা যেকোনো ক্রিকেটারের কাছে স্বপ্নের মতো।

আর এই অভিষেকেই চমক দেখানো মানে নিজেকে অন্য উচ্চতায় নিয়ে যাওয়া। তেমনই মনে রাখার মতো দারুণ এক পারফরমেন্স করলেন মেহেদি মিরাজ। অভিষেক ম্যাচের প্রথম ইনিংসেই ৫ উইকেট নিয়ে প্রবেশ করলেন এই রেকর্ডধারীদের অভিজাত ক্লাবে।

২০১০ সালের নভেম্বরে বাংলাদেশের প্রথম টেস্টেই এই কীর্তি গড়েছিলেন অধিনায়ক নাঈমুর রহমান দুর্জয়। ৪৪.৩ ওভার বল করে ১৩২ রান দিয়ে নিয়েছিলেন ৬ উইকেট। পরের বছর বুলাওয়ের কুইন্স পার্কে প্রয়াত ক্রিকেটার মাঞ্জারুল ইসলাম রানা জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ৬ উইকেট নেন। তারপর দীর্ঘ বিরতি। ২০০৯ সালে সেই বিরতিতে ছেদ টানেন ক্রমেই বাংলাদেশের নির্ভরযোগ্য ব্যাটসম্যান হয়ে উঠা মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। সেন্ট ভিনসেন্টে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে অভিষেকেই ৫ উইকেট নেওয়ার কীর্তি গড়েন তিনি।

অভিষেকে চতুর্থবারের মতো ৫ উইকেট আসে স্পিনার ইলিয়াস সানির হাত থেকে। প্রতিপক্ষ সেই একই- ওয়েস্ট ইন্ডিজ। শুধু ভেন্যু হলো চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়াম। ২০১১ সালের ২১ অক্টোবর থেকে শুরু হওয়া এই ম্যাচে স্পিন ভেলকি দেখিয়ে ৬ উইকেট তুলে নেন সানি। সেই সানি এখন দলের বাইরে। আশ্চর্য হলেও সত্যি, পঞ্চম এবং ষষ্ঠ ৫ উইকেট আসে এই ক্যারিবীয়দের বিপক্ষেই। ২০১২ সালে মিরপুর স্টেডিয়ামে সোহাগ গাজী (৬ উইকেট) এবং ২০১৪ কিংসটাউনে তাইজুল ইসলাম এই কীর্তি গড়েন।

বাংলাদেশের সপ্তম টেস্ট ক্রিকেটার হিসেবে অভিষেক ম্যাচের প্রথম ইনিংসেই ৫ উইকেট নিয়ে ইতিহাস গড়লেন মেহেদি মিরাজ। আজ বৃহস্পতিবার শুরু হওয়া চট্টগ্রাম টেস্টে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে তার এই কীর্তি। বেন ডাকেট দিয়ে শুরু করে বেয়ারস্টোকে বোল্ড করে তিনি আপাতত থেমেছেন। এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ইংল্যান্ডের হাতে আরও তিন উইকেট আছে।


মন্তব্য