kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


ধোনির মনের খোঁজ পেয়েছেন মাত্র দুজন!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৯ অক্টোবর, ২০১৬ ১৪:২৬



ধোনির মনের খোঁজ পেয়েছেন মাত্র দুজন!

ক্রিকেট মাঠে ‘মি. কুল’ বলে পরিচিত মহেন্দ্র সিং ধোনি অধিনায়ক হিসেবে নিজের চরিত্রটাকে একেবারে শিল্পের পর্যায়ে নিয়ে গেছেন। খেলার মাঠে তার প্রতিক্রিয়া কেউ দেখতেই পান না।

কঠিন পরিস্থিতিতেও তার মাথা পুরোপুরি ঠান্ডা। তিনি কী ভাবছেন, কী করতে চলেছেন, তা কেউই ধরতে পারেন না। এটাই ধোনির চারিত্রিক গুণ।

নিজের প্রতিক্রিয়া লুকিয়ে রাখার জন্যই ধোনি এত সফল। এই কৌশলী ঠান্ডা মাথার ধোনিকে এযাবৎ খুব ভাল করে চিনতে পেরেছেন মাত্র দুজন! একজন অতি অবশ্যই তার জীবনসঙ্গী সাক্ষী সিংহ রাওয়াত। কিন্তু অপর নামটিই হলো আসল চমক! তিনি রুপালী পর্দার ধোনি-সুশান্ত সিংহ রাজপুত!

সাক্ষীর সঙ্গে প্রায় ৬ বছরের বৈবাহিক জীবন ধোনির। স্বামীকে বোঝার জন্য যথেষ্ট সময় পেয়েছেন সাক্ষী। এদিকে মুক্তি পাওয়ার পর থেকেই ধোনির বায়োপিক ‘এমএস ধোনি: দ্য আনটোল্ড স্টোরি’ একের পর এক ছক্কা হাঁকাচ্ছে। অভিনেতা হিসেবে রিল লাইফের ধোনির প্রশংসা হয়েছে সর্বত্র। সুশান্তের অভিনয় দেখার পরে স্বয়ং ধোনি পর্যন্ত সার্টিফিকেট দিয়েছেন সুশান্তকে। পর্দার ধোনির পিঠ চাপড়ে তিনি বলেছেন, “তুমি আমাকে খুব ভাল কপি করেছ। ”

তবে সুশান্তকে আসল সার্টিফিকেটটা দিয়েছেন ধোনির স্ত্রী সাক্ষী।

সুশান্ত বলেছেন, “ধোনি ও সাক্ষী একসঙ্গে সিনেমা দেখতে এসেছিল। ওদের সঙ্গে বসে আমিও সিনেমা দেখি। প্রথম কয়েক মিনিট তো ধোনি কোনো কথাই বলেনি। মুখে লেগেছিল হালকা হাসি। শেষমেশ সিনেমা দেখে নিজেকে চেপে রাখতে পারেনি সাক্ষী। খুবই উচ্ছ্বসিত দেখায় ওকে। আমার প্রশংসা করে বলেছে, “ধোনিকে বুঝতে পারা খুবই কঠিন ব্যাপার। তুমি ঠিকঠাক ধোনিকে ফুটিয়ে তুলতে পেরেছ। ”


মন্তব্য