kalerkantho

শনিবার । ১০ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


ক্রিকেট মাঠ বা দৌড়ের ট্র্যাক, খেলার আগে সেক্স করলে পারফরমেন্স হয় দুর্দান্ত!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৮ অক্টোবর, ২০১৬ ১৮:১৪



ক্রিকেট মাঠ বা দৌড়ের ট্র্যাক, খেলার আগে সেক্স করলে পারফরমেন্স হয় দুর্দান্ত!

ক্রীড়াবিদদের যৌনজীবনটাও যেন কোচের নিয়ন্ত্রণেই থাকে। বিশেষ করে খেলার আগের দিন রাতে খেলোয়াড়দের সেক্স করতে না দেওয়ার রেওয়াজ দীর্ঘদিনের।

সেরা পারফরমেন্স বের করে আনাটাই কোচের একমাত্র লক্ষ্য। ভাবা হয়, সে পথে বড় বাধা হয় যৌনতা।

কিন্তু বিজ্ঞান বলছে ভিন্ন কথা। প্রেম নিবেদন কখনো খেলোয়াড়দের পারফরমেন্স কমিয়ে দেয় না। দৌড়ের ট্র্যাক, ফুটবল ও ক্রিকেটের মাঠ বা মুষ্টিযুদ্ধের মঞ্চ, কোথাও যৌনতা ক্ষতিকর হতে পারে না। ক্ষতি হওয়ার তো প্রশ্নই ওঠে না, বরং এটা উপকারী। মাঠে নামার ঘণ্টা দুই আগে যদি ক্রীড়াবিদ বিছানায় ওঠেন, তো তার পারফরমেন্স আরো ভালো হবে। নতুন এক গবেষণায় বলা হচ্ছে, সেক্সের মাধ্যমে খেলোয়াড়রা দুর্ধর্ষ হয়ে উঠতে পারেন।

গুরুত্বপূর্ণ খেলা বা পারফরমেন্স দেখানো আগে সেক্স রীতিমতো নিষিদ্ধ। এই নিয়মটি বহুকাল ধরে পালন করা হচ্ছে। এতে নাকি দেহ প্রাণশক্তি ফুরায়। টেসটোস্টেরন হরমোন এবং শক্তি উভয়ই কমে আসে। যৌনতার পর মাঠে প্রতাপ ছড়ানোর আগ্রাসী মনোভাব নষ্ট হয় খেলোয়াড়দের। আর জিততে এটাই তো দরকার।

কিন্তু পুরনো ধারণায় চিড় ধরালো বিজ্ঞান। ব্রিটিশ স্প্রিন্টার লিনফোর্ড ক্রিস্টিও বিজ্ঞানের সঙ্গেই যেতে চান। বলেন, কোনো রেসের আগের দিন রাতে যৌ নতাপূর্ণ হলে পরদিন মাঠে পা দুটো আরো বেশি আগ্রাসী হয়ে ওঠে।

ছবি : ব্রিটিশ স্প্রিন্টার লিনফোর্ড ক্রিস্টি

বক্সিং বিষয়ে এক সময়ের দারুণ জনপ্রিয় সিনেমা 'রকি'। সেখানেও খেলোয়াড়দের পারফরমেন্সের আগে নারীসঙ্গ থেকে দূরে থাকার কথা বলা হয়। একটি দৃশ্যে দেখা যায়, রকি বালবোয়া চরিত্রে অভিনয় করা সিলভেস্টার স্ট্যালোনকে তার প্রশিক্ষক মিকি বলছেন, 'নারী পা দুটো দুর্বল করে দেয়'।

কিন্তু সেই পুরনো ধারণাকে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিয়েছে আধুনিক বিজ্ঞান। এ গবেষণাপত্রটি 'ফ্রন্টিয়ার্স ইন সাইকোলজি' জার্নালে প্রকাশিত হয়েছে।

প্রধান গবেষক এবং ইউনিভার্সিটি অব ফ্লোরেন্সের স্পোর্টস মেডিসিন বিভাগের অ্যাসিস্টেন্ট প্রফেসর ড. লরা স্টেফানি জানান, ক্রীড়া বিশ্বে খেলোয়াড়দের পারফরমেন্সের সঙ্গে যৌনতার সম্পর্ক নিয়ে বহু দিন ধরেই তর্ক-বিতর্ক চলছে। এটা এক বিতর্কিত বিষয়। তবে এর ওপর সেক্সের কোনো শক্তিশালী নেতিবাচক প্রভাব রয়েছে বলে কোনো নিরেট প্রমাণ মেলেনি।

এ নিয়ে অতীতের বহু গবেষণা বিশ্লেষণ করেন বিশেষজ্ঞরা। তারা নয়টি উল্লেখযোগ্য গবেষণা নিয়ে নিজেদের গবেষণা চালান। এক গবেষণায় উঠে এসেছে সাবেক এক নারী অ্যাথলেটের কথা। তিনি মাঠে নামার আগের দিন সেক্স করলে পরদিন শক্তির হেরফের কখনো অনুভব করেননি। বরং ম্যারাথনের আগে দিন যৌনতা তাকে আরো বেশি প্রাণশক্তি দিয়েছে বলেই মনে করেন।

অনেকগুলো গবেষণায় বিষয়টি উঠে এসেছে। সেখানে মাঠে পারফরমেন্সের ওপর সেক্সের সত্যিকার প্রভাব স্পষ্ট হয়ে উঠেছে। কিন্তু ভুল ধারণাটাই প্রচলিত হয়ে গেছে। আসলে পুরনো সময় থেকেই বিষয়টি নিয়ে কেউ সিরিয়াস ছিলেন না।

পারফরমেন্সের হেরফের ঘটতে পারে কত সময় আগে সেক্স করা হলো তার ওপর। ক্রীড়াবিদ অন্তত দুই ঘণ্টা আগে সেক্স করে যদি মাঠে নামেন, তবে তার পারফরমেন্স চূড়ান্ত দেখা যেতে পারে।

বিভিন্ন গবেষণায় পুরুষ ক্রীড়াবিদদের বিষয়টিই বিবেচনায় এসেছে। নারীদের নিয়ে তেমন আগ্রহী ছিলেন না বিজ্ঞানীরা।  

ড. স্টেফানির মতে, এই গবেষণায় উঠে এসেছে ক্রীড়াবিদদের পারফরমেন্সে সেক্স কতটা বেশি ইতিবাচক এবং কতটা কম নেতিবাচক প্রভাব রাখে। পারফরমেন্সের আগে দৈহিক ও মানসিকভাবে ফিট হতে বরং সেক্স জরুরি।

তবে কোন ধরনের খেলার কতক্ষণ আগে সেক্স সবচেয়ে বেশি কার্যকর হয়ে ওঠে তা নিয়ে আরো বিস্তর গবেষণা প্রয়োজন। তবে খেলার আগের দিন সঙ্গিনীকে নিয়ে কিছু অন্তরঙ্গ সময় কাটাতে কোনো চিন্তা নেই বলেই জানান স্টেফানি। সূত্র : ডেইলি মেইল

 


মন্তব্য