kalerkantho

রবিবার। ৪ ডিসেম্বর ২০১৬। ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


তামিমের পর সাব্বিরেরও ফিফটি

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১ অক্টোবর, ২০১৬ ১৬:২১



তামিমের পর সাব্বিরেরও ফিফটি

স্পিনার মোহাম্মদ নবিকে বাউন্ডারি মেরেই ফিফটি তুলে নিলেন সাব্বির রহমান। তরুণ ব্যাটসম্যানকে তিন নম্বরে উঠিয়ে এনে লাভই হয়েছে বাংলাদেশের।

মিরপুরে আফগানিস্তানের বিপক্ষে তামিম ইকবালের সাথে মিলে সিরিজে নিজেদের সর্বোচ্চ জুটিটাও পেয়েছে টাইগার। তৃতীয় ও শেষ ওয়ানডেতে যে জুটি ১০০ পেরিয়ে ব্যাট করছে এখনও। তামিম ফিফটি পেরিয়ে আরো ভালো ব্যাট করছেন। এই রিপোর্ট লেখার সময় ২৭ ওভারে ১ উইকেটে ১৩৮ রান স্বাগতিকদের। তামিম ৭১ ও সাব্বির ৫৩ রানে ব্যাট করছেন।

এদিন ২৩ রানে পড়েছে বাংলাদেশের প্রথম উইকেট। পেসার মিরওয়াইস আশরাফের অফ স্টাম্পের বাইরের শর্ট বলকে অযথা খেলতে গিয়ে উইকেটের পেছনে সহজ ক্যাচ দেন সৌম্য সরকার (১১)। এই সিরিজের প্রথম ম্যাচে সৌম্য শূন্য রানে আউট হয়েছিলেন। পরের ম্যাচ করেছিলেন ২০।

মাহমুদ উল্লাহকে না পাঠিয়ে এই ম্যাচে তিন নম্বরে পাঠানো হয় সাব্বির রহমানকে। সাব্বির এসে কিছুক্ষণের মধ্যে নিজেকে মানিয়ে নেন। মেরেছেন দুটি ছক্কাও। তামিম ব্যক্তিগত ১ রানে নবির বলে আসগার স্তানকজাইকে সহজ ক্যাচ দেন। আফগান অধিনায়ক ক্যাচ ফেলায় নিশ্চয়ই তাকে মনে মনে ধন্যবাদ দিয়েছেন তামিম। এরপর ৬৩ বল খেলে তিনি তুলে নিয়েছেন তার ৩৪তম ফিফটি। এবার ৬৩ বলে ৫০ করেছেন তামিম। মেরেছেন ৫টি বাউন্ডারি। সাব্বির ৬৭ বলে করেছেন ২৬ ম্যাচের ক্যারিয়ারের তৃতীয় ফিফটি। তাতে ৫টি চার ও ২টি ছক্কার মার তার।

সিরিজ নির্ধারণী তৃতীয় ও শেষ এই ম্যাচে বাংলাদেশের একাদশে দুটি পরিবর্তন এসেছে। বাঁ হাতি স্পিনার তাইজুল ইসলামের জায়গা নিয়েছেন আরেক বাঁ হাতি স্পিনার মোশাররফ হোসেন। ২০০৮ সালের পর আবার ওয়ানডে খেলার সুযোগ পেলেন তিনি। রুবেল হোসেনের জায়গা নিয়েছেন অভিজ্ঞ পেসার শফিউল ইসলাম। দুই বছর পর ফিরেছেন তিনি।

এই ম্যাচ বাংলাদেশকে জিততেই হবে। হারলে আইসিসির সহযোগী সদস্য দেশ আফগানিস্তানের বিপক্ষে প্রথম সিরিজটাই ২-১ এ হারের লজ্জায় ডুবতে হবে। সেই সাথে রেটিং পয়েন্ট কমবে। তাতে আইসিসির ওয়ানডে বিশ্ব র‌্যাংকিংয়ে পতন হবে। ৭ থেকে ৮ এ চলে যাবে বাংলাদেশ। জিতলে জায়গাটা ধরে রাখবে। সেই সাথে ওয়ানডেতে নিজেদের ইতিহাসের শততম জয় হবে এটি। টানা পঞ্চম ওয়ানডে সিরিজ জয়ের রেকর্ডও হবে।

এই সিরিজের প্রথম ম্যাচ বাংলাদেশ জিতেছিল। তবে বড় কষ্টে। সেটি ছিল ৭ রানের জয়। পরের ম্যাচটিও খুব ক্লোজ ছিল। সেটি ২ উইকেটে জিতে সিরিজে ১-১ এ সমতা আনে আফগানিস্তান। এখন পর্যন্ত এই দুই দল মোট চারবার মুখোমুখি হয়েছে। সেখানেও ২-২ সমতা। আজ যে দল জিতবে তারা যাবে এগিয়ে।


মন্তব্য