kalerkantho

শনিবার । ৩ ডিসেম্বর ২০১৬। ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ২ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


ডি ককের ১৭৮, অস্ট্রেলিয়ার পরাজয়

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১ অক্টোবর, ২০১৬ ১৪:০০



ডি ককের ১৭৮, অস্ট্রেলিয়ার পরাজয়

সেঞ্চুরিয়নে পাঁচ ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকাকে ২৯৫ রানের লক্ষ্য দিয়ে বেশ ফুরফুরে মেজাজেই ছিল অস্ট্রেলিয়া। কিন্তু সেই সুখ বেশিক্ষণ স্থায়ী হলো না।

খুনে ব্যটিংয়ে অসিদের সংগ্রহটাকে ছেলেখেলা বানিয়ে ছাড়লেন কুইন্টন ডি কক। খেললেন ১৭৮ রানের ইনিংস। তাতে ৩৬.২ ওভারে ৪ উইকেটে ২৯৫ রান করে জিতেছে স্বাগতিক দক্ষিণ আফ্রিকা। ৬ উইকেটের জয়ে ডি ককের সবচেয়ে বড় ভূমিকা। এই মারকুটে ওপেনারের ইনিংসটা মাত্র ১১৩ বলের।

ডি ককের এমন তাণ্ডবের দিনে অবশ্য বেঁচে গেছে কিংবদন্তি প্রোটিয়া ব্যাটসম্যান গ্যারি কার্স্টেনের রেকর্ডটা। তার অপরাজিত ১৮৮ রানের ইনিংসটি এখনও দক্ষিণ আফ্রিকার ইতিহাসে ওয়ানডেতে ব্যক্তিগত সেরা থাকল। ডি কক ঠিক তার পেছনে এসেই থেমেছেন এদিন।

অসুস্থ হাশিম আমলার বদলে ডি ককের সঙ্গে ওপেন করতে নামেন রাইলি রুশো। ১৪৫ রানের জুটি গড়ে ফেলেন দুজন মাত্র ১৭ ওভারেই! নিজের প্রথম বলেই রুশোকে ফেরান লেগ স্পিনার অ্যাডাম জাম্পা। তবে ততক্ষণে ৪৫ বলে ৬৩ করে ফেলেছেন রুশো। প্রোটিয়ারা চার উইকেটের তিনটিই হারিয়েছে জয়ের খুব কাছে গিয়ে। ডি ককের ১৭৮ রানের মহাকাব্যিক সেই ইনিংস ১৬টি চার ও ১১ ছক্কায় সাজানো।

৬৫ ইনিংসের ওয়ানডে ক্যারিয়ারে একাদশ সেঞ্চুরি তুলে নিতে ডি কক বল খেলেন মাত্র ৭৪টি! মিচেল স্টার্ক, জশ হ্যাজলউড ছাড়া অসিদের বোলিং ছিল অনেকটাই নির্বিষ। তবে দক্ষিণ আফ্রিকা দলেও ছিলেন না হাশিম আমলা এবং ব্যাটিং তাণ্ডবের অপর নাম এবি ডি ভিলিয়ার্স। তবে সেসব কোনো সমস্যা হয়েই দাঁড়াল না। কারণ ডি কক একাই ১৭৮!

সংক্ষিপ্ত স্কোর :

অস্ট্রেলিয়া : ৫০ ওভারে ২৯৪/৯ (ওয়ার্নার ৪০, ফিঞ্চ ৩৩, স্মিথ ৮, বেইলি ৭৪, মার্শ ৩১, হেড ১৮, ওয়েড ৫, হেস্টিংস ৫১, জাম্পা ১২, ওরাল ৬*, বোল্যান্ড ৩*; স্টেইন ২/৬৫, রাবাদা ০/৬৩, পার্নেল ১/৫৬, ফেহলুকওয়াহো ৪/৪৪, তাহির ১/৪৬, বেহারদিন ০/১৫)।

দক্ষিণ আফ্রিকা : ৩৬.২ ওভারে ২৯৫/৪ (ডি কক ১৭৮, রুশো ৬৩, ডু প্লেসি ২৬, ডুমিনি ৯, মিলার ১০*, বেহারদিন ৫*; ওরাল ০/৫০. হেস্টিংস ০/৫২, বোল্যান্ড ৩/৬৭, মার্শ ০/৬৬, হেড ০/১৬, জ্যাম্পা ১/৪৪)।

ম্যান অব দ্য ম্যাচ : কুইন্টন ডি কক


মন্তব্য