kalerkantho

শনিবার । ৩ ডিসেম্বর ২০১৬। ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ২ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


ইমাদের রেকর্ড বোলিংয়ে ক্যারিবিয়ানদের সহজে হারাল পাকিস্তান

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১০:০৩



ইমাদের রেকর্ড বোলিংয়ে ক্যারিবিয়ানদের সহজে হারাল পাকিস্তান

দুবাইয়ে এই ওয়েস্ট ইন্ডিজকে চেনাই গেল না। বরং পাকিস্তানকে মনে হলো বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন দল! বাঁ হাতি স্পিনার ইমাদ ওয়াসিমের রেকর্ড বোলিংয়ে মুখ থুবড়ে পড়ল টি-টোয়েন্টির বিশ্বসেরারা।

১৪ রানে ৫ উইকেট নিলেন ইমাদ। প্রথম পাকিস্তানি স্পিনার হিসেবে ২০ ওভারের ক্রিকেটে নিলেন ৫ উইকেট। উমর গুলের পর এই কীর্তি গড়া দ্বিতীয় পাকিস্তানি তিনি। আবার টি-টোয়েন্টির ইতিহাসের অষ্টম সেরা বোলিং ফিগার ইমাদের। তাতে শুক্রবার রাতে ক্যারিবিয়ানদের ৯ উইকেটে হারাল পাকিস্তান। ৩ ম্যাচের সিরিজে এগিয়ে গেল ১-০তে। আজ একই মাঠে দ্বিতীয় ম্যাচ।

১৯.৫ ওভারে ১১৫ রান করে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। জবাবে, ৩৪ বল হাতে রেখেই জিতেছে পাকিস্তান।

টানা দ্বিতীয় ম্যাচ ৯ উইকেটে জেতার আনন্দ পাকিস্তানের। টস জিতে পাকিস্তান বোলিং শুরুর পরই ধ্বংস শুরু ওয়েস্ট ইন্ডিজের। প্রথম ওভারে ইভিন লুইসকে তুলে নিলেন ইমাদ। পরের ওভারে শিকার করলেন আন্দ্রে ফ্লেচার ও মারলন স্যামুয়েলসকে। ইমাদের বলে তেমন টার্ন নেই। তব নিশানা নিখুঁত। বাকিটা ক্যারিবিয়ান ব্যাটসম্যানদের উদারতা। ১৫ রানে তাই ৩ উইকেট নেই তাদের।

ক্যারিবিয়ানদের এই বিপদ বাড়িয়ে দেন আরেক বাঁ হাতি স্পিনার মোহাম্মদ নওয়াজ। ওপেনার জনসন চার্লস তার শিকার। মিডিয়াম পেসার হাসান আলি ফিরিয়ে দেন অভিষিক্ত নিকোলাস পুরানকে। ২২ রানে ৫ উইকেট নেই। ডোয়াইন ব্রাভো একপ্রান্ত ধরলেন। কিন্তু অন্য প্রান্তে উইকেট পড়তেই থাকে। ফিরতি স্পেলে ক্যারিবিয়ান অধিনায়ক কার্লোস ব্রাথওয়েটকে তুলে নিয়ে ৫ উইকেট শিকারের আনন্দে মাতেন ইমাদ। এরপর সুনিল নারিন রান আউট। ১২ ওভারে ৪৮ রানে ৮ উইকেট হারানো দল ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

মনে হলো টি-টোয়েন্টিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের নতুন সর্বনিম্ন রানের রেকর্ড হবে। ব্রাভো তা হতে দেননি। তাকে সহায়তা করেছেন জেরোম টেলর। এই দুজনই কেবল ইনিংসে দুই অংকের রান করতে পেরেছেন। ৬৬ রানের জুটি তাদের। হয়েছে নবম উইকেটে টি-টোয়েন্টিতে নতুন সর্বোচ্চ রানের জুটির রেকর্ড। লজ্জা থেকে বাঁচল বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা। ব্রাভো ৫৫ ও টেলর ২১ রান করেছেন।

ছোট টার্গেটে দারুণ শুরু পায় পাকিস্তান। শারজিল খান চালাতে থাকেন। তবে ২২ রান করে লেগ-স্পিনার স্যামুয়েল বদ্রির শিকার তিনি। আরো কোনো বিপদ ঘটাতে পারেননি ক্যারিবিয়ান বোলাররা। খালিদ লতিফ ধীরে খেলে পরে গতি বাড়িয়েছেন। তিনি অপরাজিত থাকেন ৩৪ রানে। আর বাবর আজম ৩৭ বলে ৫৫ রানের চমৎকার ইনিংস খেলে জয়কে করেছেন সহজ।


মন্তব্য