kalerkantho

শনিবার । ১০ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


আমি চাই দলে আরো সুপারস্টার আসুক : সাকিব

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১৮:৪৫



আমি চাই দলে আরো সুপারস্টার আসুক : সাকিব

সাকিব আল হাসানকেই বাংলাদেশ ক্রিকেটের প্রথম সুপারস্টার বলা হয়। বিশ্বের অন্যতম সেরা এ অলরাউন্ডারের পর বিশ্বমঞ্চে দাপটের সঙ্গে পারফর্ম করছেন মুস্তাফিজুর রহমান।

তবে সাকিবের মতো বাংলাদেশ দলে এ মুহূর্তে আরো অনেক ‘সুপারস্টার’ আছেন যারা দলের চিত্রটাই পাল্টে দিয়েছে। এ তালিকা আরো বড় দেখতে চান বাঁহাতি অলরাউন্ডার।

বেসরকারি একটি টিভি অনুষ্ঠানে সাকিব আল হাসান বলেন, ‘আমি তো চাই আমাদের দলে আরো সুপারস্টার আসুক। এখন নাম ধরে বলা যাবে দলে সাত থেকে আটজন ম্যাচ উইনার আছে। এ রকম সুপারস্টার দলে যত বেশি থাকবে আমাদের তত বেশি জেতার সম্ভাবনা থাকবে। এখন যারা দলে আছে তাদের নিয়ে আপনি চিন্তা করতে পারবেন তারা ম্যাচ জেতাতে পারবে। এই ধারাবাহিকতা আমাদের যত বেশি থাকবে তত বেশি আমরা সাফল্য পাব। ’

বাংলাদেশ ক্রিকেটের প্রথম সুপারস্টারের আজকের অবস্থানে নিজেকে দেখে অবাক লাগে, বিস্ময়ের জন্ম দেয়। মাগুরা টু মেলবোর্ন, ঢাকা টু লন্ডন; সর্বত্রই সাকিবের পদচারণা।

পুরানো স্মৃতি মনে করে সাকিব বলেন, ‘সত্যি কথা বলতে আমি বেশি কিছু চিন্তা করি না। কিন্তু যখন চিন্তা করি আমি আজ কোন অবস্থায় আছি তখন নিজের কাছেও অবাক লাগে। আমার ধারণাতেও ছিল না যে আমি আজ এ অবস্থায় আসব! আল্লাহর রহমত ছিল, ভাগ্য সহায় ছিল, সবার দোয়া ছিল বলে এতদূর আসতে পেরেছি। ছোটবেলায়ও বেশি চিন্তাও করতাম না। বছর বছর লক্ষ্য পরিবর্তন হতো। ডাক্তার হব, ইঞ্জিনিয়ার হব, পাইলট হব। এটা করব...ওটা করব... এভাবে চিন্তা করেছি। দিন শেষে ক্রিকেটার হয়ে গেছি। ’

ক্রিকেটার হতে অনেক কষ্ট করেছেন সেটা আরেকবার মনে করিয়ে দিয়েছেন সাকিব আল হাসান। উপাস্থপকের এক প্রশ্নের জবাবে সাকিব বলেন, ‘শ্যামলী থেকে মিরপুর স্টেডিয়াম যেতাম ৯ নম্বর বাসে। বড় ব্যাগের কারণে বাসে সমস্যা হতো। আমাকে এ জন্য দুই সিটের ভাড়া দিতে হতো। একটা সিটে ব্যাগ রাখতাম, একটাতে আমি বসতাম। ’

সাকিবের সবচেয়ে বড় পাওয়া কী? উপাস্থপকের প্রশ্নের উত্তরে সাকিব বলেন, ‘সবচেয়ে বড় পাওয়া হচ্ছে বাংলাদেশকে প্রতিনিধিত্ব করা। আমার ক্যারিয়ার যখন শেষ হবে তখন এ একটা জিনিসই আমার সঙ্গে থাকবে সব সময়। এদিক থেকে আমি অনেক ভাগ্যবান। ’ 

ক্রিকেটকে ঘিরে তার স্বপ্নের কথা নতুন করে শোনান সাকিব। তিনি বলেন, ‘এখন একটাই স্বপ্ন বাংলাদেশের হয়ে ট্রফি জেতা। যত বেশি ট্রফি জেতা যাবে ততই আমাদের জন্য ভালো। আমি ব্যক্তিগত সাফল্য নিয়ে কখনোই চিন্তা করি না। চেষ্টা করি দলের হয়ে কন্ট্রিবিউট করা। আমার কাছে ট্রফি জেতার টার্গেটই বেশি জরুরি। আগামী বিশ্বকাপ হবে আমাদের সেরা বিশ্বকাপ। আমি বিশ্বাস করি আমাদের সেই সামর্থ্য আছে, আমাদের ওই মানের ক্রিকেটারও আছে। সামনে আরো ক্রিকেটারও আসবে। চ্যাম্পিয়ন হওয়ার জন্য যেই দল প্রয়োজন আমরা তার খুব কাছাকাছি আছি। ’

ভক্তদের উদ্দেশে সাকিব বলেন, ‘আমাদের ক্রিকেটকে সাপোর্ট করতে থাকুন। এখন আমরা ভালো করছি তাই সাপোর্ট করছেন। যদি কোনো সময় আসে আমাদের দলের খারাপ সময় যাচ্ছে তখনো অবশ্যই সাপোর্ট করবেন। এটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। ভালো সময়ে সবাই সাপোর্ট করবে কিন্তু খারাপ সময়ে সাপোর্ট পেলে আত্মবিশ্বাস বাড়বে। ’


মন্তব্য