kalerkantho

রবিবার। ৪ ডিসেম্বর ২০১৬। ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


চিকিৎসকের হাতে যৌন নির্যাতনের শিকার অলিম্পিক পদক জেতা জিমন্যাস্ট!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১৭:২৪



চিকিৎসকের হাতে যৌন নির্যাতনের শিকার অলিম্পিক পদক জেতা  জিমন্যাস্ট!

দুই দশকের বেশি সময় ধরে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের জিমন্যাস্টিক্স দলের চিকিৎসক তিনি। দারুণ সুনাম ৫৩ বছরের ডাক্তার ল্যারি ন্যাসারের।

কিন্তু এবার বুঝি ধুলোয় লুটোচ্ছে সব! তার বিরুদ্ধে যৌন নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে আদালতে। প্রমাণ হলে সব গেল। আর অভিযোগ তোলা দুই জিমন্যাস্টের একজন আবার ২০০০ সিডনি অলিম্পিকে পদক জেতা বীর। মার্কিন ইতিহাসের সাথে জড়িয়ে যাওয়া জিমন্যাস্ট। অন্যজনও নামকরা।

ডাক্তার অবশ্য সব মিথ্যে দাবি করে এর বিরুদ্ধে লড়ার ঘোষণা দিয়েছেন। এই অভিযোগের কারণেই গত বছরের শেষের দিক থেকে দায়িত্বে নেই তিনি। তাকে মার্কিন জিমন্যাস্ট সংস্থা মুক্তি দিয়েছে। যে বিশ্ববিদ্যালয়ে কাজ করতেন সেখান থেকেও সাময়ীক অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে ন্যাসারকে।

জানা যায়, চিকিৎসার নামে টিনএজার জিমন্যাস্টদের যৌন হয়রাণীর শিকার করতেন এই চিকিৎসক। গত সপ্তাহে ক্যালিফোর্নিয়ার আদালতে ওঠা মামলায় বলা হয়েছে, ফিজিক্যাল থেরাপিকে সেক্সুয়াল অ্যাবিউজ রূপ দিয়েছিলেন ন্যাসার। অলিম্পিক পদকজয়ী অভিযোগকারী তার নাম প্রকাশ করেননি।

অন্য জিমন্যাস্ট র‌্যাচেল ডেনহোল্যান্ডার। কেনটাকির অ্যাথলেট। একটি সংবাদমাধ্যমকে তিনি জানিয়েছেন তার নির্মম যৌন নিগ্রহের অভিজ্ঞতা। তিনিও অভিযোগ দায়ের করেছেন। ২০০০ সালে র‌্যাচেলের বয়স ছিল ১৫। আর তখন তিনি চিকিৎসা নিতে যেতেন মিশিগান স্টেট ইউনিভার্সিটিতে। সেখানে ফ্যাকাল্টি মেম্বার ছিলেন ন্যাসার। র‌্যাচেলের দাবি, ৫বার চিকিৎসা নিয়েছেন। আর প্রতিবার যৌন হয়রাণীর শিকার হয়েছেন। তিনি বলছেন, ম্যাস্যাজের নামে তার শরীরের স্পর্শকাতর জায়গাগুলোতে হাত দিতের ডাক্তার। পীড়ন করতেন। কিন্তু ন্যাসার বিখ্যাত চিকিৎসক এবং সবার আস্থাভাজন বলে তার বিরুদ্ধে তখন অভিযোগ করতে পারেননি র‌্যাচেল।


মন্তব্য