kalerkantho

মঙ্গলবার । ৬ ডিসেম্বর ২০১৬। ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৫ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


দোটানায় থাকা ক্রিকেটারদের ৩দিন সময় বেঁধে দিল ইংল্যান্ড

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২১:৩৬



দোটানায় থাকা ক্রিকেটারদের ৩দিন সময় বেঁধে দিল ইংল্যান্ড

বাংলাদেশ সফর নিয়ে ইংলিশ ক্রিকেট বোর্ড ইতিবাচক মনোভাব ব্যক্ত করলেও সফরে আসা নিয়ে এখনো শংকায় আছে কয়েকজন ক্রিকেটার। এমতাবস্থায় বাংলাদেশ সফরের বিষয়ে আগামী তিনদিনের মধ্যে দোটানায় থাকা খেলোয়াড়দের চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে হবে বলে জানালেন ইংল্যান্ড ও ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ডের (ইসিবি) পরিচালক এন্ড্রু স্ট্রস।

এরপরই বাংলাদেশ সফরের দল ঘোষণা করবে ইসিবি।

নিরাপত্তার কারণ দেখিয়ে বাংলাদেশ সফরে আসা নিয়ে শংকা তৈরি করেছিলো ইংল্যান্ড। তবে গত ২৫ আগস্ট সেই শংকা উড়িয়ে দিয়ে বাংলাদেশ সফরে আসার ব্যাপারে সবুজ সংকেত দেয় ইসিবি। তখনই ইংল্যান্ডের বাংলাদেশ সফর নিশ্চিত হয়। তবে এখানো বাংলাদেশ সফর নিয়ে দোটানায় আছেন ইংল্যান্ডের খেলোয়াড়রা। কিছু খেলোয়াড় ইতোমধ্যে মিডিয়ার সামনে নিজেদের আসার ব্যাপারে নিশ্চয়তা দিয়েছেন। আবার কিছু খেলোয়াড় এখনো কিছু বলেননি। এরমধ্যে উল্লেখযোগ্য হলেন- ইংল্যান্ডের ওয়ানডে অধিনায়ক ইয়োইন মরগান।

তাই এসব নিয়ে চিন্তাটা ভর করেছে ইসিবির উপরও। কারণ বাংলাদেশ সফরের জন্য টেস্ট ও ওয়ানডে দল ঘোষণা করতে চাইছে ইসিবি। আগামী সপ্তাহের মধ্যেই বাংলাদেশ সফরের জন্য টেস্ট দল ঘোষণা করতে চাইছে ইসিবি। আর ১৬ সেপ্টেম্বরের মধ্যে ওয়ানডে দল ঘোষণা করবে তারা। তাই আগামীকাল ও পরশু বোর্ডের সাথে চুক্তিবদ্ধ খেলোয়াড়দের নিয়ে বসবে ইসিবি। আর তিন দিনের মধ্যে বাংলাদেশ সফর নিয়ে সকল খেলোয়াড়দের কাছ থেকে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিবে ইসিবি।

এমনই ইঙ্গিত দিলেন স্ট্রাউস, “খুব দ্রুতই বাংলাদেশ সফর নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত দিতে হবে খেলোয়াড়দের। আমরা খেলোয়াড়দের সঙ্গে বসবো, তাদের সাথে আলাপ-আলোচনা করবো। কারও উপর চাপ সৃষ্টি করা হবে না। সফর নিয়ে সবার স্বাধীনতা রয়েছে। আমরা বলছি না, কাউকে এ সফরে যেতেই হবে। কারও উপর আমাদের কোন চাপ নেই। তবে কেউই যদি সফরে না যায়, তবে তার জায়গায় অন্যকেউ সুযোগ পাবে। সুযোগ পেয়ে ঐ খেলোয়াড় যদি ভালো করে তবে নিয়মিত খেলোয়াড় দল থেকে বাদ পড়বে পরের সিরিজে। ”

তবে বাংলাদেশ সফর নিয়ে খেলোয়াড়দের আবারো আশ্বস্ত করবেন বলে জানালেন মরগান। তিনি বলেন, “বাংলাদেশ সফর নিরাপদ। আমি ক্রিকেটারদের নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞদের প্রতিবেদনটা ভালোভাবে পর্যালোচনা করতে বলবো। এরপর সিদ্ধান্ত নিতে বলবো। ”

টেস্ট অধিনায়ক এ্যালিস্টার কুক বাংলাদেশ সফরের ব্যাপারে ইতিবাচক হলেও, এখনো আসন্ন সফর নিয়ে সিদ্ধান্ত হীনতায় মরগান। তাই টেস্ট ও ওয়ানডে অধিনায়কের বাংলাদেশ সফরে থাকা নিয়ে স্ট্রাউস বলেন, “আমি কি বাংলাদেশ সফরে দুই অধিনায়ককে চাই? অবশ্যই চাই। কারণ যেকোন সিরিজে অধিনায়কের দায়িত্ব অনেক বেশি থাকে। দলকে পরিচালনার জন্য একজন অধিনায়কের দায়িত্ব অনেক। তারপরও তারা মানুষ। তাদের নিজস্ব চিন্তা-ভাবনা এবং ব্যক্তিগত জীবন রয়েছে। তাই সফরের ব্যাপারে তাদের সিদ্ধান্তটা তাদেরকেই নিতে হবে। ”

আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর ঢাকায় আসার কথা রয়েছে ইংল্যান্ডের। আসন্ন সফরে বাংলাদেশের বিপক্ষে তিনটি ওয়ানডে ও দু”টি টেস্ট খেলবে ইংলিশরা। আগামী ৭ অক্টোবর মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে ওয়ানডে ম্যাচ দিয়ে শুরু হবে সফরের লড়াই।


মন্তব্য