kalerkantho

রবিবার। ৪ ডিসেম্বর ২০১৬। ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


বাংলাদেশে যাওয়ার চাপে পড়লেন মরগ্যান!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১০:৩৮



বাংলাদেশে যাওয়ার চাপে পড়লেন মরগ্যান!

বাংলাদেশ সফরে যাবেন না। কিন্তু পরের সফরেই ইংল্যান্ড দলে জায়গা ধরে রাখবেন? তাই হয় নাকি! ইংল্যান্ডের ক্রিকেট ডিরেক্টর অ্যান্ড্রু স্ট্রস মাথা ঝাঁকান।

তার সেই মাথা ঝাঁকানো মাথা ব্যথা তৈরি করে দিল সীমিত ওভারের অধিনায়ক এউইন মরগ্যানের। সেই সাথে আসন্ন বাংলাদেশ সফরে যেতে অনিচ্ছুক ইংলিশ ক্রিকেটারদের। কারণ, বাংলাদেশে যাওয়া না যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিতে ইংল্যান্ডের ক্রিকেটারদের শনিবার পর্যন্ত সময় বেঁধে দিয়েছেন স্ট্রস।

বাংলাদেশের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়ে ইংল্যান্ড বোর্ডের শঙ্কা-সংশয় নেই। তবে বলেছিল, কেউ যেতে না চাইলে জোর করা হবে না। তাই প্রশ্নটা এসেছিল। ধরা গেল বাংলাদেশ সফরে কেউ এমন পারফরমেন্স করলেন যে পরের ভারত সফরে তাকে দলে না রাখলে অন্যায় হয়। তাহলে তো প্রতিষ্ঠিত যে খেলোয়াড় বাংলাদেশে গেলেন না তিনি কি ওই ক্রিকেটারকে বাইরে ঠেলে দলে ফিরে আসবেন?

স্ট্রসের সোজা কথা, বাংলাদেশ সফরে পুরো শক্তির দল চাই। টেস্ট আর ওয়ানডে অধিনায়কের তাই সফরে না যাওয়ার উপায় থাকলো না। শোনা যায়, টেস্ট অধিনায়ক অ্যালিস্টার কুক বোর্ডকে সফরে যাওয়ার সম্মতি জানিয়েছেন। কিন্তু মরগ্যান তো দোটনায়।

মৌসুম শেষে দুই দিনের ফিটনেস ও মূল্যায়ন শুরু হচ্ছে ইংল্যান্ড দলের। এই দুই দিনে বাংলাদেশ সফরের ব্যাপারে খেলোয়াড়দের 'হ্যাঁ, 'না' জানতে চান স্ট্রস। আগামী সপ্তাহের শেষে ইংল্যান্ডের দল ঘোষণা করার কথা। খেলোয়াড়দের ভেবেচিন্তে সিদ্ধান্ত নেওয়ার সুযোগ দিতেই দল ঘোষণার দিন পেছানো হয়েছে।

আলটিমেটাম না দিলেও এর পর স্ট্রস বলেছেন, "আমি কি আমাদের দুই অধিনায়ককেই সফরে চাই? অবশ্যই। নিশ্চিত ভাবেই। " তবে এও বললেন, "কাউকে জোর করে বিমানে তুলে দিতে চাই না আমি। কাউকে আক্ষরিক অর্থেই বলতে পারি না, 'তোমাকে বাংলাদেশে যেতেই হবে'। লোকের নিজের সিদ্ধান্ত থাকে। " এই মাসের শেষে বাংলাদেশে আসবে ইংল্যান্ড দল। আগামী মাসে খেলবে দুটি টেস্ট ও তিনটি ওয়ানডের সিরিজ। দেশে না ফিরে পরের মাসে যাবে ভারত সফরে।


মন্তব্য