kalerkantho

শনিবার । ১০ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


বিবিসি বাংলার খবর

কেমন বোলিং কোচ হবেন কোর্টনি ওয়ালশ

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২০:৩১



কেমন বোলিং কোচ হবেন কোর্টনি ওয়ালশ

ওয়েস্ট ইন্ডিজের কিংবদন্তী ফাস্ট বোলার কোর্টনি ওয়ালশ আগামীকাল সোমবার থেকে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের বোলিং কোচ হিসেবে কাজ শুরু করবেন।
রবিবার তিনি ঢাকায় পৌঁছেছেন এবং আজ তিনি সেরে নিয়েছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সাথে তার চুক্তির আনুষ্ঠানিকতাটুকু।


টেস্ট ক্রিকেটে ৫ শতাধিক উইকেট শিকারি, ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক ওয়ালশকে ক্রিকেট ইতিহাসের সর্বকালের সেরা বোলারদের একজন বলে মনে করা হয়।
তার কোচিংয়ের দ্বারা বাংলাদেশ কিভাবে উপকৃত হবে? আর কতটাই বা উপকৃত হবে?
ঝাড়া সাড়ে ছ'ফুট লম্বা কোর্টনি ওয়ালশ যখন দাঁত মুখ খিঁচিয়ে ঝড়ো গতি তুলে বল করতে এগিয়ে আসতেন তখন নাকি ক্রিজে থাকা ব্যাটসম্যানদের গলা শুকিয়ে যেত।
তিনি টেস্ট ক্রিকেটে প্রথম পাঁচশ উইকেট শিকার করা ওয়েস্ট ইন্ডিয়ান বোলার।
এই শতকের গোড়ার দিকে যখন অবসরে যান ততদিনে তার জায়গা হয়ে গিয়েছে বিশ্বের সর্বকালের সেরা ফাস্ট বোলারদের তালিকায়।
সেই ওয়ালশ এখন বাংলাদেশী বোলারদের শেখাবেন ফাস্ট বোলিংয়ের কলাকৌশল।
এই কিংবদন্তী এরই মধ্যে ঢাকায় এসে পৌঁছেছেন।
রবিবার বিকেলেই সেরে নিয়েছেন ২০১৯ সালের ক্রিকেট বিশ্বকাপ পর্যন্ত বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সাথে তার চুক্তির আনুষ্ঠানিকতা।
বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের মুখপাত্র জালাল ইউনুস বলছেন, তারা ওয়ালশের মতোই একজন কিংবদন্তীকে বোলিং কোচ হিসেবে খুঁজছিলেন, যিনি ড্রেসিং রুমে বোলারদের নিজের অভিজ্ঞতা দিয়ে উদ্বুদ্ধ করতে পারবেন।
এর আগে ক্যারিবিয়ান ক্রিকেট লিগের একটি দলের জন্য বোলিং পরামর্শক হিসেবে কাজ করার ব্যাপারটুকু বাদ দিলে এটাই হতে যাচ্ছে মি. ওয়ালশের প্রথম কোচিং অ্যাসাইনমেন্ট।
সদ্যই তিনি শেষ করেছেন ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট বোর্ডের নির্বাচকের দায়িত্ব।
খেলোয়াড় হিসেবে কিংবদন্তী হলেও কোচ হিসেবে তার কোন অভিজ্ঞতা নেই।
এই অনভিজ্ঞতা কি কোন সমস্যা হিসেবে সামনে আসতে পারে?
সাবেক ক্রিকেটার আমিনুল ইসলাম বুলবুল বলছেন, "শুধু বাংলাদেশ বলেই না, এলিট টিমগুলোতে যখন কোচরা কোচিং করায় সেখানে কিন্তু কোচিং মেথডোলজি খুব একটা ব্যাবহার করা হয় না। ব্যাবহার করা হয় তার অভিজ্ঞতা। "
"পাঁচশ উইকেট পাওয়া একজন বোলার, তিনি কিভাবে পাঁচশ উইকেট পেয়েছিলেন, তার অভিজ্ঞতাটা যখন শেয়ার করবেন আমাদের ফাস্ট বোলারদের সঙ্গে, সেটাই হবে আমাদের সব থেকে বড় পাওয়া," বলেন তিনি।
এক সময় বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের ফাস্ট বোলিং আক্রমণে কোন ধার ছিল না, দল তৈরি হত স্পিন নির্ভর।
কিন্তু গত বিশ্বকাপ থেকেই দেখা যাচ্ছে বাংলাদেশ দলের ফাস্ট বোলিং আক্রমণ শাণিত হয়ে উঠেছে।
দল তৈরি হচ্ছে ফাস্ট বোলারদের উপর ভর করে। তারাই জেতাচ্ছেন ম্যাচ এবং সিরিজ।
কিন্তু তারকা বোলার মোস্তাফিজের ইনজুরি, আরেক নির্ভরযোগ্য বোলার তাসকিনের উপর অ্যাকশনজনিত নিষেধাজ্ঞার কারণে আসছে সিরিজগুলোতে ফাস্ট বোলারদের আধিপত্য কতটা থাকবে সেটা নিয়ে কিছুটা সন্দেহ থেকে যাচ্ছে।
তবে আশার কথা হচ্ছে, চোট কাটিয়ে খেলার উপযুক্ত হয়েছেন রুবেল হোসাইন, স্কোয়াডে রয়েছেন মাশরাফি, আবুল হোসেন, আলামীন হোসেন এবং নবাগত রাব্বি।
মি. বুলবুল বলছেন, ওয়ালশের কোচিং কতটা কার্যকর হবে সেটা নির্ভর করবে, দলে কাদেরকে অন্তর্ভুক্ত করা হচ্ছে, তাদের ধারাবাহিকতা কতটুকু তার উপর।
কর্মকর্তারা জানাচ্ছেন, কোর্টনি ওয়ালশ আগামীকাল (সোমাবার) থেকেই কাজে নেমে পড়ছেন।
যদিও খেলোয়াড়রা ঈদের ছুটিতে যাওয়ার আগে মোটে দু'দিন তাদেরকে পাওয়া যাবে প্রশিক্ষণের জন্য।
কিন্তু জালাল ইউনুসের ভাষায়, কোর্টনি ওয়ালশের কাছ থেকে বোলিং টিপস পেতে মাশরাফি তাসকিনদের যেন তর আর সইছে না।


মন্তব্য