kalerkantho

শনিবার । ৩ ডিসেম্বর ২০১৬। ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ২ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


টেনিস কোর্টে ঢুকে পড়ে খেলোয়াড়ের সাথে সেলফি!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১৩:৪৯



টেনিস কোর্টে ঢুকে পড়ে খেলোয়াড়ের সাথে সেলফি!

টেনিস কোর্টে হঠাৎই ঢুকে পড়লেন দর্শক। এমন কাণ্ড দেখলে টেনিসের অনুসারীদের নিশ্চয়ই মনে পড়ে ১৯৯৩ সালের কথা।

হামবুর্গে টেনিস কোর্টে তখনকার এক নম্বর মেয়ে খেলোয়াড় মনিকা সেলেস এক দর্শকের হাতে ছুরিকাহত হয়েছিলেন। বুধবার নিউ ইয়র্কে ইউএস ওপেনের খেলা চলাকালে গুরুতর কিছু হয়নি। তবে কোর্টে ঢুকে পড়ে খেলোয়াড়ের সাথে সেলফি তোলা এক ভক্তকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

ইউক্রেনের নারী খেলোয়াড় ক্যাটেরিনা বন্ডারেঙ্কো তখন ১৩ নম্বর কোর্টে চীনের সাইসাই ঝেংয়ের সাথে খেলছেন। খেলায় তীব্র রোমাঞ্চ। এমন এক সময় দর্শকের সীমানা নির্ধারণের দেয়াল টপকে এক ফ্যান কোর্টে ঢুকে পড়েন। দৌড়ে চলে আসেন ক্যাটেরিনার কাছে। হচকচিয়ে যান ক্যাটেরিনা। ভক্ত তার কাছে এসে সেলফি তুলতে থাকে। ক্যাটেরিনা স্বাভাবিক থেকে সেলফি তোলেন। নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা কর্মীরা ছুটে আসেন। ওই ভক্তকে কোর্ট থেকে বের করে নিয়ে যান। রোমাঞ্চকর ম্যাচটি ক্যাটেরিনা জিতেছেন ৫-৭, ৭-৬, ৭-৫ এ।

ওই ভক্তকে পরে পুলিশ হাতকড়া পরিয়ে গ্রেপ্তার করে নিয়ে যায়। তাকে ১০ বছরের জন্য এই ইভেন্টে নিষিদ্ধ করা হয়েছে। কখনো কখনো এভাবে দর্শকের কোর্টে ঢুকে পড়ার ঘটনা ঘটে। ২০১৫ ফ্রেঞ্চ ওপেন চলার সময় নিরাপত্তা ভেঙে এক দর্শক রজার ফেদেরারের কাছে চলে যান। ১৯৯৩ সালে অবশ্য ভয়াবহ ঘটনাই ঘটেছিল। জার্মান কিংবদন্তি স্টেফি গ্রাফের এক মস্তিস্ক বিকৃত ভক্ত কোর্টে ঢুকে যুগোস্লাভিয়ার মনিকাকে ছুরি মেরেছিলেন। সেরে উঠতে কয়েক সপ্তাহ সময় লাগে মনিকার। কিন্তু আতঙ্ক কাটিয়ে কোর্টে ফিরতে সময় লাগে দুই বছর। কিন্তু ফিরে আর পুরনো নিজেকে খুঁজে পাননি মনিকা।


মন্তব্য