kalerkantho


টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ

কোহলির ৮৯, ওয়েস্ট ইন্ডিজের টার্গেট ১৯৩

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৩১ মার্চ, ২০১৬ ২১:১৩



কোহলির ৮৯, ওয়েস্ট ইন্ডিজের টার্গেট ১৯৩

বিরাট কোহলির মতো ব্যাটসম্যানকে জীবন দিলে কি হয়! ওয়েস্ট ইন্ডিজ মুম্বাইয়ের সেমিফাইনালে বুঝেছে। ব্যক্তিগত ১ রানেই ফিরতে পারতেন ভারতের সবচেয়ে বিপজ্জনক ব্যাটসম্যান।

তাহলে আজিঙ্কা রাহানের সাথে তার জুটিটা ৫ রানেই থামতো। কিন্তু কি হলো? ৬৬ রানের জুটি হলো। কোহলিও ৪৭ বল খেলে অপরাজিত থাকলেন ৮৯ রানে। তার মানে ক্যারিবিয়ানদের ভুলে ৮৮টি বাড়তি রান পেয়েছেন কোহলি! অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে বীরোচিত অপরাজিত ৮২ রানের পর কোহলির এই কাণ্ড! বড় মূল্য দিলো ক্যারিবিয়ানরা। টস হেরে ওয়াংখেড়েতে ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে ২ উইকেটে ১৯২ রান করেছে ভারত। ক্রিস গেইলদের সামনে কঠিন পরীক্ষা।

প্রথম ৩ ওভারে ১৫ রান। ভারতের ওপেনাররা ছিলেন সতর্ক। তৃতীয় ওভারে ছক্কা দিয়ে হাত খুলেছেন রোহিত শর্মা।

মুম্বাইয়ের ঘরের ছেলে দেখতে না দেখতেই চল্লিশের ঘরে পৌঁছে গেলেন। স্পিনার সুলিমান বেনকে দুই বাউন্ডারি মারলেন। আর পেসার আন্দ্রে রাসেল রোহিতের দুই ছক্কা ও এক চারের শিকার। ষষ্ঠ ওভারে এসেছে ১৯ রান। পাওয়ার প্লেতে ৫৫ রান পায় ভারত। হয় টুর্নামেন্টে তাদের সেরা ওপেনিং জুটি।

কিন্তু ভারতের ৬২ রানের সময় স্পিনার স্যামুয়েল বদ্রির বলে এলবিডাব্লিউর শিকার হন রোহিত। ৩১ বলে ৪৩ রান করে রোহিত ফিরে গেলেও চমৎকার শুরু পেয়েছে দল। টুর্নামেন্টে প্রথম ম্যাচ খেলার সুযোগ পেয়ে সাবলীলভাবে এগিয়ে যাচ্ছিলেন রাহানে। কিন্তু বিরাট কোহলিকে শুরুকেই হারিয়ে ফেলতে পারতো ভারত। ব্যক্তিগত ১ রানেই ফ্রি হিটে রান আউট হতে পারতেন কোহলি। বল মিস করে উইকেট ছেড়ে বের হয়ে এসেছিলেন। উইকেটকিপারের থ্রো স্টাম্পে লাগেনি। বোলার ড্রোয়াইন ব্রাভো সেই বল ধরে উইকেটে লাগাতে পারেননি। পরের বলে দ্বিতীয় রান নিতে গিয়ে রান আউট হতে পারতেন কোহলি। উইকেটকিপার দিনেশ রামদিন উইকেট ভাংতে পারেননি। সেমিফাইনালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের এমন ভুল!

রানিং বিটুইন দ্য উইকেটে রাহানে-কোহলি জুটি হতাশ করছিল উইন্ডিজকে। ঝড় তোলা ব্যাটিং ছিল না রাহানে-কোহলির। কিন্তু রান এসেছে দ্রুত। এই জুটি সিঙ্গেলস-ডাবলস বের করে নিচ্ছিলেন। সুযোগ বুঝে মারছিলেন বাউন্ডারি। এভাবে গড়ে ওঠে ৬৬ রানের দ্বিতীয় উইকেট জুটি। ৮ এর ওপরে রান ওভারে। শেষের দিকে ঝড় তোলার ভিত্তি গড়ে দিয়েছে যে ব্যাটিং। রাহানে ৩৫ বলে ৪০ করেছেন। চারের মারে মোটে দুটি। ডোয়াইন ব্রাভো বাউন্ডারি লাইনে চমৎকার ক্যাচটা নিতে না পারলে রাহানে পেতেন একমাত্র ছক্কাটি।  

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষের ফর্ম ধরে রেখে টানা দ্বিতীয় ফিফটি পেয়েছেন কোহলি। ৩৩ বলে এসেছে ৫০। তবে ৫৫ রানে কোহলি ফিরতে পারতেন কার্লোস ব্রাথওয়েট ক্যাচটা নিলে। ততক্ষণে নিয়মিত বাউন্ডারি মারছেন। শেষ ওভারেও জীবন পেয়েছেন কোহলি! শেষ ৪ ওভারে কোহলি ৮টি চার মেরেছেন, একটি ছক্কা। ধোনি ও কোহলির ২৭ বলের অবিচ্ছিন্ন জুটিতে এসেছে ৬৪ রান। এর ৪৮ রান কোহলির। ৪৭ বলে ১১টি চার ও একটি ছক্কায় ৮৯ রানে অপরাজিত কোহলি। ধোনি সার্পোটিং ভূমিকা পালন করে ৯ বলে ১৫ রানে অপরাজিত।    


মন্তব্য