kalerkantho


মেসির 'জুতা দান' নিয়ে মিসরে ক্ষোভ!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৩১ মার্চ, ২০১৬ ১৫:৪৯



মেসির 'জুতা দান' নিয়ে মিসরে ক্ষোভ!

লিওনেল মেসির উদ্দেশ্য সৎ। মিসরের একটি টেলিভিশন চ্যানেলে সাক্ষাৎকার দিলেন। এরপর জানালেন, দাতব্য কাজের জন্য নিজের এক জোড়া খেলার বুট উপহার দিতে চান। সেটা নিয়ে উপস্থাপিকা খুশি হলেন। কিন্তু এই ঘটনায় মিসরে ছড়িয়ে পড়েছে ক্ষোভ। কারণ, মেসির এই জুতা দানকে স্বাভাবিকভাবে নিতে পারেনি মিসরের অনেকে। আরব দেশে এমন জুতা দানের বিষয়টি যে অপমান হিসেবে নেওয়া হয় তা কোথা থেকে জানবেন মেসি!

৫ বারের ফিফা ব্যালন ডি'অর জয়ী মেসি সম্প্রতি তার আরেকটি দান থেকে আলোচনায় এসেছিলেন। ইন্টারনেটে দেখা পাওয়া গিয়েছিল ৫ বছর বয়সী আফগান মেসির। যে মেসির খেলার ভালোবাসায় প্লাস্টিকের আর্জেন্টিনা রঙ্গের জার্সি পরেছিল। পরে তাকে নিজের একটি জার্সি উপহার দেন মেসি।

কিন্তু এবারের ঘটনা মিসরে ক্ষোভ সৃষ্টি করেছে। মিসরের টেলিভিশন এমবিসি মিসর এর "ইয়েস আই অ্যাম ফেমাস" অনুষ্ঠানে সাক্ষাৎকার নেয়া হয় মেসির। সেখানে আর্জেন্টাইন অধিনায়ক তার এক জোড়া বুট উপহার দেন নিলামে তুলে সেই টাকা দাতব্য কাজে লাগানোর জন্য। মেসির সামনে বসা উপস্থাপিকা জুতা জোড়া হাতে তুলে নিয়ে বলেছেন, "মেসি, আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ। "

এটা মিসরের টেলিভিশনে শনিবার প্রচারের পর ক্ষোভ ছড়িয়েছে। শরীরের একেবারে নিচের অংশে থাকা জুতা আরব দেশে কেউ কাউকে দান করে না। তার কাউকে অপমান করতে বলে, "তোমাকে জুতা মারবো"। ২০০৮ সালে বাগদাদে এক সংবাদ সম্মেলনে ইরাকি সাংবাদিক মুনতাসির আল-জাইদি প্রতিবাদ জানাতে গিয়ে জর্জ বুশের দিকে জুতা ছুড়ে মেরেছিলেন।

মিসরের একজন সংসদ সদস্য সাইদ হাসাসেন তো একটি টেলিভিশন অনুষ্ঠানে ক্ষোভে ফেটে পড়েছেন। নিজের জুতা হাতে নিয়ে তিনি বলেছেন, "এই আমার জুতা। আমি এটা আর্জেন্টিনাকে দান করলাম। " ডেস্কে থাপ্পর মেরে বলেছেন, "এটা মিসরের মানুষকে অপমান। " এই অনুষ্ঠানে মিসরের ফুটবল ফেডারেশনের মুখপাত্র আজমি মোজাহেদ কথা বলছিলেন। "এমনকি আমাদের ধর্মে..." তাকে থামিয়ে দিয়ে হাসাসেন বলেছেন, "ধর্মে সে ইহুদি!" মোজাহেদ একমত হয়ে বলেছেন, "জানি সে ইহুদি। সে ইসরায়েলে দান করে। সফর করে। তার জুতা আমাদের দরকার নেই। মিসরের দরিদ্রদের কোনো ইহুদি কিংবা ইহুদি রাষ্ট্রপন্থী নাগরিকের সহায়তা দরকার নেই। " হাসাসেন যোগ করেন, "আর্জেন্টিনার মানুষ পার্কে ঘুমায়!"

মেসি আসলে ক্যাথলিক। গোল করার পর ক্রসও করেন।

টুইটারেও ঝড় উঠেছে বিষয়টি নিয়ে। অনেক মিসরীয় সেখানে যা তা বলছে! "মেসি...এটা তোমার ভুল না। এটা একটা জুতার চ্যানেল, জুতার সাক্ষাৎকার নেওয়া লোকের মেয়ের ভুল-" লিখেছেন একজন। তবে মিসরের ফুটবল তারকা মিদো মেসির পক্ষ নিয়েছেন, "একজন লেখকের সবচেয়ে দামি জিনিস হলো তার কলম। একজন ফুটবলারের সবচেয়ে মূল্যবান জিনিস তার জুতা। "


মন্তব্য