kalerkantho


ভারতীয়দের চ্যালেঞ্জ নিতে তৈরি ক্যারিবিয়ানরা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৩০ মার্চ, ২০১৬ ১৭:৩৯



ভারতীয়দের চ্যালেঞ্জ নিতে তৈরি ক্যারিবিয়ানরা

ক্রিস গেইল ও তার বেশ কয়েক সতীর্থের জন্য এটাই শেষ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। আর সেই শেষটা তারা আলোয় আলোয় ভরিয়ে দিতে চান।

তারা জানেন, বৃহস্পতিবারের সেমিফাইনালে তাদের লড়াইটা শত কোটি ভারতীয়র বিপক্ষে। সেই অর্থে লড়াইটা ডেভিড ও গোলিয়াথের। কিন্তু ক্যারিবিয়ান অধিনায়ক ড্যারেন স্যামি বেশ হেসেই মনে করিয়ে দেন, দানবীয় গোলিয়াথের বিপক্ষে লড়াইটা কিন্তু পুচকে ডেভিডই জিতেছিল। ভারতীয় চ্যালেঞ্জ নিতে তাই তৈরি ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

এক সময়ের প্রবল পরাক্রমশালী ওয়েস্ট ইন্ডিজ আর নেই। টেস্টে কোথায় তাদের সেই দাপট? টি-টোয়েন্টিতে অবশ্য তারা অন্যরকম। সাবেক বিশ্ব চ্যাম্পিয়নও। গেইলকে স্যামি বলেন বিশ্বের শাসক! এদিকে ক্যারিবিয়ান বোর্ডের সাথে খেলোয়াড়দের লেনদেন নিয়ে ঝামেলা লেগে থাকে। এর মধ্যেও ক্যালিপসো সুরে নেচে উঠে লড়ে যান স্যামিরা।

এক জোট হন আরো। স্যামি তাই বলেন, "আমরা যেভাবে খেলেছি তা সম্ভবত গোটা বিশ্বের বিরুদ্ধে গিয়ে খেলা...এভাবেই আমরা খেলি। আগামীকাল কতো বড় দিন তা বলার অপেক্ষা রাখে না। একজন ভারতীয় সমর্থকও আমরা পাবো না। বিশাল এই খেলার জন্য আমরা তৈরি। "

মুম্বাইয়ে খেলা। স্টেডিয়াম ও গোটা ভারতের বিরুদ্ধেই খেলতে হবে স্যামিদের। লড়াইটাকে অসম বলছেন অনেকে। স্যামি তাতে মাইন্ড করেন না, "অসম্ভব এক খেলা হবে। ১৫ ওয়েস্ট ইন্ডিয়ান খেলোয়াড় বনাম হাজারো এবং কোটি ভারতীয়র লড়াই। এই চ্যালেঞ্জ নিতে তৈরি আমরা। " এর সাথে স্যামি যোগ করলেন, "যারা ফল অনুমান করে তারা বলছে ভারত ৮০ আমরা ২০। সুতরাং এটা তো ডেভিড আর গোলিয়াথের লড়াইয়ের মতো। কিন্তু লোকে ভুলে যায় ডেভিডই লড়াইটা জিতেছিল। এটাও সেরকম। " বুকমেকার হাউজগুলো ভারতের পক্ষ নিচ্ছে। তাদের ওপরই বাজি।



আগামী টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ ২০২০ সালে। এই দলের বেশ কয়েকজন খেলোয়াড়ের বয়স ত্রিশের ঘরে। তাদের আর পাওয়া যাবে না তখন। স্যামিও ক্যারিয়ারের শেষ দিকে। এই বিশ্বকাপ জিতে সময়টাকেও স্মরণীয় করে রাখতে চান ক্যারিবিয়ান অধিনায়ক, "আগামী বিশ্বকাপ ৪ বছর পর। বিশ্বের বসের (গেইল) বয়স তখন ৪০ হবে। আমার ৩৬। তাই হ্যাঁ, আমাদের সবকিছু এই টুর্নামেন্টে দিতে চাই। দলের সবাই জানে বাজিটা কি। শিরোপার জন্য ছয় পা ফেলার ছিল। চারটা শেষ। পথে একটু বাধা (আফগানিস্তানের কাছে হার) এসেছে। তবু আমরা আগামীকাল ভারতের সাথে খেলতে মুখিয়ে। " স্যামির শেষ কথা, "আমার মনে হয় এই বছরটা ওয়েস্ট ইন্ডিজের হতে পারে। " ৩ এপ্রিল কলকাতার ইডেন গার্ডেন্সে এবারের বিশ্বকাপের ফাইনাল।


মন্তব্য