kalerkantho

সোমবার। ২৩ জানুয়ারি ২০১৭ । ১০ মাঘ ১৪২৩। ২৪ রবিউস সানি ১৪৩৮।


ইডেনই মিলিয়ে দিল বিরাট-আনুশকাকে!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২০ মার্চ, ২০১৬ ২৩:৫৪



ইডেনই মিলিয়ে দিল বিরাট-আনুশকাকে!

তাঁর ব্যাটে ভর করেই জয় পেয়েছে ভারত৷ বিশ্বকাপের এক অতি গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে জয়ই শুধু নয়, পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ইডেনে ভারতের হারের সিলসিলাতেও ইতি টেনে দিলেন তিনি৷ ৩৭ বলে ৫৫ তাই নেহাত একটা হাফসেঞ্চুরি নয়, যেন এক ইতিহাসের মাইলফলক৷ ইমরান খান থেকে বীরেন্দ্র সেওয়াগ তাঁর কাভার ড্রাইভের রাজকীয় জৌলুসে মুগ্ধ৷ কীভাবে ঠাণ্ডা মাথায় ম্যাচের রঙ বদলে দিয়ে তিনি অকালে দোলের আমেজ এনে দিতে পারেন, তারই চুলচেরা বিশ্লেষণে ব্যস্ত ক্রীড়া বিশেষজ্ঞরা৷ আর এমন সময়ে সকলকে তাঁর স্কিলের রঙে রঙিন করে নিজের জীবনেও যেন বসন্ত ফিরে পেলেন বিরাট কোহলি৷ ইডেনের রাজকীয় জয়ের পরই তাঁর ফোনে পৌঁছাল আনুশকার অভিনন্দন বার্তা৷

কদিন আগেও তাঁদের বিচ্ছেদ নিয়ে চলছিল হাজারো জল্পনা৷ বিরাট-আনুশকা রোমান্সে যেন আচমকাই যবনিকাপাত৷ কিন্তু কে না জানে সব প্রেমই ছোটগল্পের মতো৷ আর তাই বোধহয় শেষ হয়েও হইল না শেষ৷ বরং বিরাট-আনুশকা রোমান্সের নয়া ইনিংস শুরু হল বলা যায়৷ আর তাতে বড় ভূমিকা নিল ইডেন৷ ভাঙতে থাকা ইডেনের পিচে যে আত্মবিশ্বাস নিয়ে ব্যাট করে বিরাট দেশকে জয়ে সরণিতে পৌঁছে দিয়েছেন, তাতে সম্মোহিত ক্রিকেটপ্রেমীরা৷ সম্মোহিত অনুষ্কাও৷ আর তাই খেলা শেষ হওয়া মাত্র সব অভিমান ঝেড়ে ফেলে বিরাটকে অভিনন্দন জানালেন৷

এর আগেও বিচ্ছেদের দিন পেরিয়ে কাছাকাছি আসার ইঙ্গিত দিয়েছিলেন বিরাট-আনুশকা৷ এদিন ইডেনে বিরাটের ইনিংস যেন তা আরও একধাপ এগিযে নিয়ে গেল৷ ভারত-পাক ক্রিকেটযুদ্ধেই শুধু নয়, ইডেন যেন শাপমুক্তির স্মারক হয়ে উঠল বিরাট-আনুশকা সম্পর্কেও৷

সূত্র: সংবাদ প্রতিদিন


মন্তব্য