kalerkantho


তাসকিনের জন্য মাশরাফির চোখে জল

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২০ মার্চ, ২০১৬ ১৬:১৭



তাসকিনের জন্য মাশরাফির চোখে জল

তাসকিন আহমেদ ও আরাফাত সানির না থাকা বাংলাদেশের জন্য বড় ধাক্কা। বিশেষ করে তাসকিনের সাথে যা হয়েছে তা মেনে নিতে পারছেন না বাংলাদেশ অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা।

ব্যাঙ্গালুরুর চিন্নাস্বামী স্টেডিয়ামে রবিবার সাংবাদ সম্মেলনে এসেছেন বিষাদমাখা মুখ নিয়ে। এরপর তাসকিনের প্রসঙ্গে কথা বলতে গিয়ে বারবার 'অবিচার' শব্দটাই ব্যবহার করেছেন। তাসকিনের কথা বলতে গিয়ে অধিনায়কের চোখে এসেছে জল। পুরো সংবাদ সম্মেলনের অধিকাংশ সময় মাশরাফির চোখে চিকচিক করেছে পানি। সম্মেলনের আনুষ্ঠানিকতা শেষ হলে কান্নাই হয়েছে সঙ্গী।

শক্তিশালী অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সোমবার ব্যাঙ্গালুরুতে বিশ্বকাপের সুপার টেনের দ্বিতীয় ম্যাচ বাংলাদেশের। এই ম্যাচে জিততে না পারলে সেমিফাইনালে খেলার আশা প্রায় মিটে যাবে। কিন্তু সংবাদ সম্মেলনে এই ম্যাচের চেয়ে বেশি আসলো তাসকিনের প্রসঙ্গই। বাঁ হাতি স্পিনার সানি ও ২০ বছরের পেসার তাসকিনকে অবৈধ অ্যাকশনের দায়ে নিষিদ্ধ করেছে ক্রিকেটের সর্বোচ্চ সংস্থা আইসিসি।

তাসকিনের নিষিদ্ধ হওয়াটা মেনে নিতে পারছেন না মাশরাফি।

দুই ক্রিকেটারকে এভাবে হারানোকে বড় ধাক্কাই বললেন মাশরাফি। দুজনই তার চোখে অসাধারণ বোলার। দলের ক্ষতি হয়ে গেল। মাশরাফি বলেছেন, "এটা বড় ধাক্কা। আমাদের দুজন প্রধান খেলোয়াড় দলের বাইরে চলে গেল। কিন্তু আমাদের তো প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে যেতে হবে। ভালো খেলে যেতে হবে। " আবেগ আক্রান্ত অধিনায়ক বলেছেন, "তাদের সবকিছুই মিস করবো আমরা। আমাদের জন্য খুব ভালো ছিল এই দুজন। "

মাশরাফির মনে ক্ষোভ। যেন প্রতিবাদ করতে চাইলেন টাইগারদের সাথে হওয়া অবিচারের। কিন্তু তার কণ্ঠে অসহায়ত্বও ধরা পড়ে। তাসকিনের ব্যাপারে তো তিনি নিশ্চিত। তাসকিনের অ্যাকশনে কোনো সমস্যা নেই। তাই দুজনার কথা বলতে বলতে আলাদা করে ফেলেন তাসকিনকে, "আমরা পুরো দল হতাশ। তাসকিন-সানির জন্য খারাপ লাগছে। তাসকিনের ব্যাপারটা একেবারেই ভিন্ন। যে ম্যাচের জন্য তাসকিনকে নিষিদ্ধ করা হয়েছে। ওই ম্যাচে তো তার কোনো ডেলিভারিতে ভুল ছিল না। তারপরও তাকে নিষিদ্ধ করা হয়েছে। তার সাথে অন্যায় করা হয়েছে। "

তরুণ তাসকিনের এভাবে ছিটকে পড়াটা বেশি পোড়াচ্ছে মাশরাফিকে। ২০১১ বিশ্বকাপের দলের জায়গা না পেয়ে একবার সবার সামনেই কেঁদেছিলেন মাশরাফি। সেটা ছিল নিজের কথা ভেবে। এবার অধিনায়ক কাঁদলেন দলের এক তরুণ প্রতিভা বিড়ম্বনার শিকার হওয়ায়। আইসিসির কোড অব কন্ডাক্টে খেলোয়াড়, অধিনায়কদের অনেক বিষয়ে কথা বলায় নিষেধাজ্ঞা আছে। কিন্তু তাসকিনের প্রসঙ্গে চুপ থাকতে পারেননি মাশরাফি। এই অবিচার কিভাবে মানবেন তিনি! তাই তো আবার জল এলো মাশরাফির চোখে। সংবাদ সম্মেলন থেকে বের হয়ে যা আরো অঝোরে ঝরেছে। আর হোটেলে যাওয়ার জন্য গাড়িতে ওঠার পর তো মাশরাফির চোখের জল বাঁধ মানেনি।


মন্তব্য