kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৭ জানুয়ারি ২০১৭ । ৪ মাঘ ১৪২৩। ১৮ রবিউস সানি ১৪৩৮।


টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ

পাল্টা আঘাত হেনেছে অস্ট্রেলিয়া

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৮ মার্চ, ২০১৬ ১৬:২৬



পাল্টা আঘাত হেনেছে অস্ট্রেলিয়া

রীতিমতো ঝড়ই তুলেছিল নিউজিল্যান্ড। কিন্তু প্রতিপক্ষের নাম অস্ট্রেলিয়া। যাদের সাথে আগের ৫ টি-টোয়েন্টি দেখায় কিউইদের জয় মাত্র একটিতে। শুরুর ধাক্কা তাই সামলে উঠে পাল্টা আঘাত হেনেছে অস্ট্রেলিয়া। ঝড় তো কমেছেই। অনেকটা নিয়ন্ত্রণে আনা গেছে কিউই ব্যাটসম্যানদের। ধর্মশালায় এবারের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচ খেলতে নেমেছে অস্ট্রেলিয়া। নিউজিল্যান্ড প্রথম ম্যাচে হারিয়েছে স্বাগতিক ভারতকে। এই রিপোর্ট লেখার সময় ১৩ ওভার শেষে নিউজিল্যান্ডের সংগ্রহ ৩ উইকেটে ৯৬ রান। কলিন মুনরো ২৩ ও রস টেলর ২ রানে ব্যাট করছেন।

পেসার ন্যাথান কল্টার-নাইলকে ম্যাচের প্রথম ওভারে পরপর দুই বলে দুটি বাউন্ডারি মারলেন মার্টিন গাপ্টিল। নিউজিল্যান্ডের শুরু থেকে মেরে খেলার চরিত্র তাতে স্পষ্ট। তৃতীয় ওভারে এলেন বাঁ হাতি স্পিনার অ্যাশটন অ্যাগার। তার প্রথম দুই বলে মিড উইকেটের ওপর দিয়ে ছক্কা হাঁকালেন গাপ্টিল। ওভারের শেষ বলে আরো একটি ছক্কা। এই ওভারে ১৮ রান নিয়ে গাপ্টিল বোঝালেন স্পিনারদেরও ক্ষমা করা হবে না।

অ্যাগার পরে আর বল পাচ্ছিলেন না। অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসনও মেরে খেলে এগিয়ে যাচ্ছিলেন। অষ্টম ওভারের প্রথম বলে প্রথম সাফল্য পায় অস্ট্রেলিয়া। মিডিয়াম পেসার জেমস ফকনার তুলে নেন বিপজ্জনক গাপ্টিলকে (৩৯)। ৬১ রানে প্রথম উইকেটের পতন হয়। এরপর দুই ওভারে দুই উইকেট নেন অফ স্পিনার গ্লেন ম্যাক্সওয়েল। উইলিয়ামসনকে (২৪) তুলে নেওয়ার পর কোরি অ্যান্ডারসনকেও (৩) শিকার বানিয়েছেন তিনি। ১৫ রানে ৩ উইকেট হারিয়েছে নিউজিল্যান্ড। এবং প্রত্যেক ব্যাটসম্যান তুলে মারতে গিয়ে ফিল্ডারের হাতে ধরা পড়েছেন।

আগের ম্যাচে নাগপুরে তিন স্পিনার নিয়ে খেলে ভারতকে বধ করেছিল কিউইরা। স্পিনাররা নিয়েছিলেন ৯ উইকেট। এই ম্যাচে অফ স্পিনার ন্যাথান ম্যাককালামকে বাদ দিয়ে নেওয়া হয়েছে পেসার মিচেল ম্যাকক্লেনাঘানকে। নতুন বলের দুই পেসার টিম সাউদি ও ট্রেন্ট বোল্ট এই ম্যাচেও সুযোগ পাননি। অস্ট্রেলিয়াও একাদশে রেখেছে দুই স্পিনার। তারা খেলাচ্ছে লেগ স্পিনার অ্যাডাম জাম্পা ও অ্যাগারকে।
 
গত বছর ওয়ানডে বিশ্বকাপের ফাইনালে এই দল দুটি মুখোমুখি হয়েছিল শিরোপা লড়াইয়ে। চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল স্বাগতিক অস্ট্রেলিয়া। টি-টোয়েন্টিতে এই ম্যাচের আগ পর্যন্ত পাঁচবার মুখোমুখি হয়েছে তারা। ৪টিতে জিতেছে অস্ট্রেলিয়া। আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টির যাত্রা শুরু হয়েছিল এই দুই দলের ম্যাচ দিয়ে। আর ২০ ওভারের ক্রিকেটে দারুণ প্রতিদ্বন্দ্বিতা হয় প্রতিবেশী দেশ দুটির মধ্যে।
 


মন্তব্য