kalerkantho


টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ

বড় হার দিয়ে জাহানারাদের বিশ্বকাপ শুরু

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৫ মার্চ, ২০১৬ ১৯:১৮



বড় হার দিয়ে জাহানারাদের বিশ্বকাপ শুরু

ম্যাচ শেষে দুই অধিনায়কের একটি সাক্ষাৎকার পর্ব থাকে। সেখানে বাংলাদেশের অধিনায়ক জাহানারা আলম বললেন, "আমার দলের মেয়েরা আসলে ভালো খেলেছে। ভারতের মতো দলের বিপক্ষে আমরা ৯১ রান করেছি। এটা আমাদের জন্য বেশ ভালো। আমাদের আরো তিনটি ম্যাচ আছে। আরো ভালো করার আশা করছি। "

অধিনায়ক তো যুক্তি দিয়ে পারফরম্যান্সকে ভালো বললেন। তাহলে মেয়েদের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের উদ্বোধনী ম্যাচে ৭২ রানের হারটা খুব বড় নয়! 'বি' গ্রুপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে এই ব্যবধানেই ভারতের কাছে হেরেছে বাংলাদেশ। ভারতের মেয়েরা টসে হেরে ৫ উইকেটে ১৬৩ রানের পাহাড় গড়েছিল। বাংলাদেশের মেয়েরা ২০ ওভারে ৯১ রান করেছে ৫ উইকেটে। তাদের অল আউট করতে পারেনি ভারতের শক্তিশালী বোলিং লাইন আপ। এই ভারতীয় দলের সাথে আগের সাত দেখায় একটিও ম্যাচও জিততে পারেনি বাংলাদেশ। মঙ্গলবার ব্যাঙ্গুলুরুতেও পারলো না। তবে ব্যাটিংয়ে এক ধরণের আত্মবিশ্বাস পেলো। কারণ এই ভারতীয় দল সম্প্রতি অস্ট্রেলিয়া ও শ্রীলঙ্কাকে সিরিজ হারিয়েছে।

ভারতের টি-টোয়েন্টি ইতিহাসের সর্বোচ্চ রান এই ১৬৩। আর বাংলাদেশের সর্বোচ্চ ১১৫। ভারতের বিপক্ষে সর্বোচ্চটা ১১৩। তো বাংলাদেশের মেয়েরা অলৌকিক কিছু ঘটিয়ে ফেলবে তা ভাবা যায়নি। স্বাগতিকদের বড় জয় তাই অনুমিত ছিল। জাহানারা তাই ব্যাটসম্যানদের কৃতিত্ব দিতে পারছেন। তেমন জুটি হয়নি। সর্বোচ্চ ২৭ রান (২৫ বলে) এসেছে উইকেটকিপার-ব্যাটার নিগার সুলতানার কাছ থেকে। ২১ রান ওপেনার শারমিন আখতারের। ফাহিমা খাতুন ১৪, রুমানা আহমেদ ১২ ও জাহানারা নিজে অপরাজিত ১০ রান করেছেন। বাংলাদেশ সাকুল্যে চার মেরেছে ৭টি। ছক্কা নেই তাদের ইনিংসে।  

ভারতের ইনিংসে ৩০ এর বেশি রান পেয়েছেন ৪জন। অধিনায়ক মিতালি রাজ ও ভেল্লাস্বামী বানিতা ঝড় তুললেন। তাতে পাওয়ার প্লের ৬ ওভারে আসলো ৫১ রান। আর উদ্বোধনী জুটিতে ৬২ রান। বড় রান তো হবেই!

প্রথম ৭ ওভারের মধ্যেই ৫ বোলার ব্যবহার করলেন জাহানারা। দুজন ডান হাতি পেসার, একজন অফ স্পিনার, একজন বাঁ হাতি স্পিনার ও একজন লেগ স্পিনার। অষ্টম ও নবম ওভারে সাফল্য এলো জোড়ায়। চতুর্থ বোলার বাঁ হাতি নাহিদা ভাংলেন প্রথম জুটি। উইকেটে নেমে এসে বলের লাইন মিস করে বোল্ড হয়েছেন বানিতা। ২৪ বলে ৩৮ রান তার। পরের ওভারে স্মৃতি মন্দনাকে (০) এলবিডাব্লিউর ফাঁদে ফেললেন লেগি ফাহিমা খাতুন। ১ রানের মধ্যে ২ উইকেট হারিয়ে ভারত কিছুটা চাপে পড়ে।

মিতালি ব্যক্তিগত ২৮ রানে ফিরে যেতে পারতেন। অফ স্পিনার খাদিজা তুল কুবরা নিজের প্রথম ওভারেই ফিরতি ক্যাচ পেয়েছিলেন। নিতে পারেননি। এর দামটা খুব বেশি বাংলাদেশকে দিতে হয়নি নিয়মিত পারফর্মার লেগি রুমানা আহমেদের কারণে। সপ্তম বোলার হিসেবে বল পেয়েছেন রুমানা। ৪২ রান করা মিতালি তাকে তুলে মারতে গিয়ে ক্যাচ দিয়েছেন।

১৪ ওভারে ৩ উইকেটে ৯৭ রান ভারতের। পরের ৭ ওভারে ৬৬ রান তুলেছেন ভারতের মেয়েরা। চতুর্থ উইকেটে হারমানপ্রিত কৌর ও ভেদা কৃষ্ণমূর্তী ৪১ রানের জুটি গড়েছেন। ২৯ বলে ৪০ রান করা কৌরকে ফিরিয়েছেন রুমানা। কিন্তু ২৪ বলে ৩৬ রানে অপরাজিত থেকে গেছেন ভেদা। দল পেয়েছে বিশাল সংগ্রহ। রুমানা ৩৫ ও ফাহিমা ৩১ রানে ২টি করে উইকেট নিয়েছেন।


মন্তব্য