জিম্বাবুয়েকে ১৮৭ রানের চ্যালেঞ্জ-335093 | খেলাধুলা | কালের কণ্ঠ | kalerkantho

kalerkantho

সোমবার । ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৬। ১১ আশ্বিন ১৪২৩ । ২৩ জিলহজ ১৪৩৭


টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ

জিম্বাবুয়েকে ১৮৭ রানের চ্যালেঞ্জ দিলো আফগানিস্তান

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১২ মার্চ, ২০১৬ ১৭:২১



জিম্বাবুয়েকে ১৮৭ রানের চ্যালেঞ্জ দিলো আফগানিস্তান

জিতলেই টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সুপার টেন বা মূল পর্বে। হারলে বিদায়। এমন ম্যাচে নাগপুরের বিদর্ভ ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন স্টেডিয়ামের সর্বোচ্চ স্কোর গড়ে ফেললো আফগানিস্তান। আফগানরা টস জিতে আগে ব্যাট করে ৬ উইকেটে তুলেছে ১৮৬ রান। 'বি' গ্রুপের সেরা হয়ে পরের পর্বে যাওয়ার প্রবল চাপে এখন জিম্বাবুয়ে।

জিম্বাবুয়ে আফগানদের বিপক্ষে এর আগে খেলা ৪ ম্যাচের প্রতিটিতে হেরেছে। এদিন তাদের ডোবালেন মূলত তিন আফগান ব্যাটসম্যান। শুরুতে ঝড়ো ব্যাটিংয়ে শাহজাদ মোহাম্মাদি ২৩ বলে ৪০ রান করেছেন। তারপর নেমেছিল ব্যাটিং ধস। কিন্তু পঞ্চম উইকেটে আফগানদের নতুন রেকর্ড ৯৮ রানের জুটি গড়েছেন মোহাম্মদ নবি ও সামিউল্লা শেনওয়ারি। নবি ৫২ ও সামি ৪৩ রান করেছেন।  

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সেঞ্চুরি আছে ওপেনার শাহজাদের। এদিনও তাণ্ডব শুরু করলেন এই আফগান। তাতে ৪.৪ ওভারেই উঠে এলো ৪৯ রান। অসাধারণ শুরু। কিন্তু স্পিনার শন উইলিয়ামস বিদায় করেছেন ২৩ বলে ৭টি চার ও ১টি ছক্কায় ৪০ রান করা শাহজাদকে। ওখানে ধসের শুরু। ১৪ রানে ৪ উইকেট হারিয়ে ফেলে আফগানিস্তান। এরপর নবি ও সামি প্রতিরোধ গড়ে ইনিংস গড়ার কাজে হাত দেন। আর তাতে দারুণ সফল তারা।

এরপর ১৪ ওভারে ৪ উইকেটে আফগানদের ছিল ৯৮ রান। পরের ৪ ওভারে ৬০ রান তুলে ফেলেন নবি ও সামি। এর মধ্যে স্পিনার ওয়েলিংটন মাসাকাদজার ওভারটিতে এসেছে ২১ রান। এই ওভারে দুটি ছক্কা মেরেছেন নবি। এরপর পেসার তিনাশে পানিয়াঙ্গারাকে দুটি চার ও একটি ছক্কা হাঁকিয়েছেন সামি। দুই প্রান্ত থেকে আক্রমণের মুখে পড়ে হাঁসফাঁস করছিল জিম্বাবুয়ে। তবে তিরিপানো তুলে নিতে পারেন সামির উইকেট। ৩৭ বলে মূল্যবান ৪৩ রান করে ফেরেন তিনি। ওই ওভারেও বলের ওপর নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ১৫ রান দেন তিরিপানো।

দারুণ ব্যাটিংয়ে ক্যারিয়ারের প্রথম টি-টোয়েন্টি ফিফটিটা পাওনা হয়ে গিয়েছিল নবির। ৩০ বলে ৫০ রান করেছেন আফগানদের সাবেক অধিনায়ক। ৩২ বলে ৪টি বাউন্ডারি ও ২টি ছক্কায় ৫২ রান করে শেষ ওভারে রান আউট হয়েছেন নবি। তবে তার আগে আফগানদের দিয়েছেন জেতার মতো একটি সংগ্রহ।

জিম্বাবুয়ে দল ভুগেছে বলের নিয়ন্ত্রণহীনতায়। ২০ ওভারের ক্রিকেটে ২৫টি রান অতিরিক্ত খাতে দিলে কি আর হয়! ১৭টি ওয়াইড বল দিয়েছে তারা। পানিয়াঙ্গারা ৪ ওভারে ৩২ রানে নিয়েছেন ৩ উইকেট। 

মন্তব্য