kalerkantho

শনিবার । ১০ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


অবিশ্বাস্য ক্যাচ নিয়ে মাকসুদের ইতিহাস! (ভিডিওসহ)

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৯ মার্চ, ২০১৬ ২২:১৮



অবিশ্বাস্য ক্যাচ নিয়ে মাকসুদের ইতিহাস! (ভিডিওসহ)

জন্টি রোডসের ক্যাচ মানেই ছিলো চোখে অবিশ্বাস! ইউটিউবে তার কোনো ক্যাচ দেখেছেন ৫৪ লাখ মানুষ, কোনোটা বা ২৯ লাখ! জিসান মাকসুদের ক্যাচটারও যে লাখো লাখো দর্শক হবে তা এখনই বলে দেয়া যায়! ওমানের এই ক্রিকেটার বুধবার আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে কি অবিশ্বাস্য একটা ক্যাচই না নিলেন! আর তা দেখে চোখকে অবিশ্বাস করাই যেতে পারে। টি-টোয়েন্টি বিম্বকাপ ইতিহাসের অন্যতম সেরা ক্যাচ বলাই যায় একে।

ওমান প্রথম খেলতে এসেছে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে। আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে ধর্মশালায় হলো বিশ্বকাপ অভিষেক। আগে ব্যাট করা আইরিশদের দুই ওপেনার সাত ওভার শেষ হওয়ার আগেই ৪৮ রান করে ফেললেন। পল স্টার্লিং মারমুখী ব্যাটিংয়ে তখন ২৯ রানে। আমির কালিমের বলে ড্রাইভ করেছিলেন একটু উচুতে। বলটা চোখের পলকে কাভারে গেলো। সেখানে ছিলেন মাকসুদ। বাঁ পাশে পাখির মতো করে উড়াল দিলেন তিনি। শরীর ভাসিয়ে দিলেন বাতাসে। অনেকটা উচুতে উঠে গিয়ে এক হাতে ক্যাচটা নিয়ে মাটিতে পড়লেন। বলটা হাত থেকে ছুড়ে ফেললেন। উদযাপন করলেন সামান্যই। কিন্তু তাকে ঘিরে শুরু হলো ওমানের উল্লাস।

বিশ্বকাপে ওমানের এটা প্রথম উইকেট। তাও আসরের ইতিহাসের অন্যতম ক্যাচের কারণে। এই উইকেট ওমানের ইতিহাসে আলাদা জায়গা করেই নিতো। সেই সাথে মাকসুদও ঢুকে পড়লেন ইতিহাসে। আসলে তিনি ঢুকলেন ক্রিকেট ইতিহাসের অন্যতম সেরা ক্যাচের শোকেসেও!

ক্যাচটা এতোই অবিশ্বাস্য? স্টার্লিং কিন্তু মাকসুদ ক্যাচ নেয়ার পরও ক্রিজে দাঁড়িয়ে ছিলেন। তিনি বিশ্বাসই করেননি! আম্পায়াররা টিভি আম্পায়ারের সহায়তা নিলেন। বেশ কয়েকবার ঘুরিয়ে ফিরিয়ে দেখে নিশ্চিত হলেন, এটা পরিস্কার ক্যাচ। আসলে সবাই এতোটাই অবিশ্বাসের ধাক্কা খেয়েছে মাকসুদের অ্যাথলেটিক নৈপুণ্যে।

তখন টেলিভিশনে ধারাভাষ্য দিচ্ছিলেন ক্যারিবিয়ান সাবেক ফাস্ট বোলার ইয়ান বিশপ। তিনি তো মাকসুদের ক্যাচকে এবারের বিশ্বকাপের সেরা ঘোষণা করে দিয়েছেন! যদিও বিশ্বকাপের মূল আসরই শুরু হয়নি এখনো, বাছাইয়ের দ্বিতীয় দিন গেলো! বিশপের ভাষায়, "এটাকে টুর্নামেন্ট শেষে আসরের সেরা ক্যাচ হতে না দিতে চাইলে কাউকে অলৌকিক কিছু করতে হবে!"

মাকসুদ বাঁ হাতি ওপেনিং ব্যাটসম্যান। বাঁ হাতি স্পিনারও। নয় মাস আগে ওমান দলের হয়ে আন্তর্জাতিক অভিষেক তার। ২৮ বছরের মাকসুদ এর মধ্যে দলে নিজের একটা জায়গা করে নিয়েছেন। আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে এই ম্যাচের আগে ৯টি আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে ৮ উইকেট নিয়েছেন। আর ১৩৩.৫২ স্ট্রাইক রেটে এক ফিফটিতে ২৩১ রান করেছেন।

দেখুন অবিশ্বাস্য সেই ক্যাচের ভিডিও:

 

 

 


মন্তব্য