সৌম্য-তামিমকে হারিয়ে চাপে বাংলাদেশ -332912 | খেলাধুলা | কালের কণ্ঠ | kalerkantho

kalerkantho

সোমবার । ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৬। ১১ আশ্বিন ১৪২৩ । ২৩ জিলহজ ১৪৩৭


সৌম্য-তামিমকে হারিয়ে চাপে বাংলাদেশ

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৬ মার্চ, ২০১৬ ২২:০০



সৌম্য-তামিমকে হারিয়ে চাপে বাংলাদেশ

খেলাটা ১৫ ওভারের। আগে ব্যাট করলে পরিকল্পনা কি হওয়া উচিৎ? বাংলাদেশের জন্য একেবারে নতুন পরিস্থিতি। আক্রমণ করতে হবে। করেছেও টাইগাররা। কিন্তু এশিয়া কাপের ফাইনালে পাওয়ার প্লের ৫ ওভারের মধ্যেই চাপে তারা। সৌম্য সরকারের পর তামিম ইকবালকে হারিয়েছে টাইগাররা। মিরপুর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে টস হেরে ব্যাট করছে বাংলাদেশ। ৬ ওভারে ২ উইকেট হারিয়ে তাদের সংগ্রহ ৩৫ রান। সাব্বির রহমান ৪ ও সাকিব আল হাসান ২ রানে ব্যাট করছেন।

রবিচন্দ্রন অশ্বিনের অফ স্পিনে আক্রমণ শুরু করেন ভারত অধিনায়ক। এরপর আনেন আশিস নেহরা ও জসপ্রিত বুমরাহকে। চতুর্থ ওভারে নেহরা তিনটি বাউন্ডারির শিকার।  একটি তামিমের। দুইটি সৌম্যের। কিন্তু ওভারের শেষ বলে নেহরা তুলে নেন সৌম্যকে (১৪)। এই ওভারে এসেছে ১৩ রান। বুমরাহকে খেলতে সমস্যা হচ্ছিল। পঞ্চম ওভারে তামিম (১৩) বুমরাহর বলে এলবিডাব্লিউর ফাঁদে পড়েছেন।   

রাত ৯টা ১০ মিনিটে হলো টস। খেলা শুরু হয়েছে রাত সাড়ে নয়টায়। মাশরাফি বিন মর্তুজার বাংলাদেশ দলকে ব্যাটিংয়ে পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিলেন ভারত অধিনায়ক এমএস ধোনি। কারণ হিসেবে ধোনি জানালেন, এটা ১৫ ওভারের খেলা। পরে ব্যাটিংয়ে সামান্য সুবিধা পাওয়া যাবে। ৩ ওভার করে করতে পারবেন একেক বোলার। ৫ ওভারের পাওয়ার প্লে। মাশরাফি বললেন, টস জিতলে তিনিও ফিল্ডিং নিতেন। তাদের পরিকল্পনা, ২/৩ ওভার দেখে আক্রমণে যাওয়া।

এই ম্যাচে চার পেসার নিয়ে নেমেছে বাংলাদেশ। বাঁ হাতি পেসার আবু হায়দার রনিকে নেয়া হয়েছে আরাফাত সানির জায়গায়। দীর্ঘদিন পর নাসির হোসেন ফিরেছেন। শেষ টি-টোয়েন্টি খেলেছেন গত বছরের নভেম্বরে। ঢাকায় জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে। নাসির একাদশে ঢোকায় বাদ পড়েছেন মোহাম্মদ মিথুন। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে খেলানো একাদশ খেলাচ্ছে ভারত। ফিরেছেন আশিস নেহরা, রবিচন্দ্রন অশ্বিন ও রবিন্দ্র জাদেজা।

৬টা ২০ থেকে আনুমানিক ৬টা ৪০ মিনিট পর্যন্ত ঝড়ের তাণ্ডব চলে মিরপুরে। তখন মনে হয়েছিল, এই খেলাটা নাও হতে পারে। কিন্তু মিরপুরের মাঠ বড় আশ্চর্য মাঠ। কাভার ঠিক মতো দেয়া যায়নি ঝড়ের সময়। তারপরও দ্রুত মাঠ শুকিয়েছে এর চমৎকার নিস্কাশন ব্যবস্থার কারণে। খেলা তাই খুব বেশি ওভার হারায়নি।

মন্তব্য