kalerkantho

রবিবার । ১১ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


এশিয়া কাপ : বাংলাদেশের জয় অঘটন হবে না

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৬ মার্চ, ২০১৬ ০৯:৫৯



এশিয়া কাপ : বাংলাদেশের জয় অঘটন হবে না

ভারতের বিপক্ষে এশিয়া কাপের ফাইনালে আজ মুখোমুখি হচ্ছে স্বাগতিক বাংলাদেশ। এশিয়া কাপে ভারত এর আগে পাঁচবার চ্যাম্পিয়ন হয়েছে।

আর বাংলাদেশ একবারই রানার্স আপ হয়েছে। এবারের এশিয়া কাপেই প্রথম টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে খেলা হচ্ছে। টি-টোয়েন্টির তুলনায় ওয়ানডে ক্রিকেটে বাংলাদেশ অনেকটাই উজ্জ্বল। অন্যদিকে ক্রিকেটের সংক্ষিপ্ত এই ফরম্যাটে মহেন্দ্র সিং ধোনির দল এক কথায় দুর্দান্ত। আজকের ফাইনালে কে এগিয়ে থাকছে? ক্রিকেট সাংবাদিক ও ক্রিক-ইনফোর বাংলাদেশ সংবাদদাতা মোহাম্মদ ইসাম মনে করেন, ভারতই ফেভারিট।

এর ব্যাখ্যা ও দিলেন তিনি, কারণ ভারত চারটি ম্যাচই জিতেছে। বাংলাদেশ, শ্রীলঙ্কা কিংবা পাকিস্তানের বিপক্ষে ভালো খেলেছে। সম্প্রতি শ্রীলঙ্কাকে টি-টোয়েন্টি সিরিজে হারিয়েছে, অস্ট্রেলিয়াতে অজিদের টি-টোয়েন্টি সিরিজে হারিয়েছে। ভালো খেলছে। ব্যাটসম্যান অনেকেই ফর্মে আছে। র‍্যাংকিং-এর দিক থেকে চিন্তা করলে অনেক পার্থক্য। সুতরাং তারাই এগিয়ে থাকবে। তবে বাংলাদেশের জয় অসম্ভব নয় বলেও তিনি উল্লেখ করেন। এশিয়া কাপে ভারত এর আগে পাঁচবার চ্যাম্পিয়ন হয়েছে। আর বাংলাদেশ একবারই রানার্স আপ হয়েছে। সে ক্ষেত্রে বাংলাদেশের জয়কে কি প্রত্যাশিত মনে করা হচ্ছে নাকি আপসেট হিসেবেই মনে করা হবে?

এমন প্রশ্নে মোহাম্মদ ইসাম বলেন, অবশ্যই আপসেট বলবো না। গত বছর ভারতকে ৩ ম্যাচের ওযানডে সিরিজ ২-১ ব্যবধানে হারিয়েছে। ২০১২ সালে এশিয়া কাপে হারিয়েছে। রেকর্ড ভারতের সঙ্গে টি-টোয়েন্টিতে খুব ভালো না হলেও, আমার মনে হয় যে, আপসেট হবে না কারণ বাংলাদেশও ফর্মড টিম এবং সবাই বলছে বাংলাদেশ এখন এশিয়ার দ্বিতীয় সেরা দল। সুতরাং তারা জিতলে আপসেট হবে না। তবে সেটা হবে বাংলাদেশের জন্য খুব বড় রেজাল্ট। তিনি আরও বলেন, ফাইনাল পর্যন্ত যেহেতু তারা খেলছে এবং পাকিস্তান-শ্রীলঙ্কাকে হারিয়েছে, ভালোভাবেই হারিয়েছে। সুতরাং তাদের জয় আপসেট হবে না। কিন্তু ভারতকে হারানোটা খুব একটা সহজ হবে না।

বাংলাদেশ ও ভারত দুই দলেরই আত্মবিশ্বাস একই অবস্থায় থাকবে বলেও তিনি মনে করেন। তার ভাষায়, ভারত টি-টোয়েন্টি ভালো খেলছে, কিন্তু বাংলাদেশও পিছিয়ে নেই। টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশ কোনোদিনই ভালো করেনি, এই প্রথম এত ভালো খেলল বাংলাদেশ। তারা শ্রীলঙ্কাকে সুযোগই দেয়নি কিছু জায়গায়, পাকিস্তানের সৌভাগ্য যে তারা শেষ ওভার পর্যন্ত খেলতে পেরেছে। টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশের অভিজ্ঞতা অনেক কম। তবে সম্প্রতি সবাই বিসিএল খেলেছে। টি-টোয়েন্টিতে প্রথম ছয় ওভার এবং শেষ ৪/৫ ওভার খুবই গুরুত্বপূর্ণ। ওই জায়গায় খেলার ভালো ক্রিকেটার আছে যারা ওই জায়গায় শামলাতে পারে, মন্তব্য মোহাম্মদ ইসামের।

আজকের ম্যাচে টস কি রকম ভূমিকা রাকতে পারে? জানতে চাইলে তিনি বলেন, বাংলাদেশ আজ টসে জিতলে ভারতকে আগে ব্যাটিং এ পাঠাতে পারে। কারণ ভারতের ব্যাটিং খুব শক্তিশালী। তো বাংলাদেশ যেকোনো স্কোর করলেই সেটা ভারতের জন্য সহজ হয়ে যেতে পারে। সে কারণে বাংলাদেশ চাইবে ভারতকে আগে ব্যাটিং এ পাঠাতে। ভারতীয় দলে অনেক অভিজ্ঞ খেলোয়াড় আছে। সেই তুলনায় বাংলাদেশে অনেক নবীন খেলোয়াড় আছেন।

এ প্রসঙ্গে ইসাম বলেন, একেবারে নতুনদের জন্য এটা কঠিন হতে পারে। কিন্তু খুব অভিজ্ঞ হলেই যে টি-টোয়েন্টিতে ভালো করবে সেটা বলা যায় না। নিজেদের মাঠে খেলা। দর্শক সমর্থকদের প্রত্যাশা বাড়তি চাপ নাকি প্রেরণা হিসেবে কাজ করবে? এ প্রসঙ্গে সাংবাদিক ইসাম বলেন, তারা খুব রিল্যাক্সড। আসলে তাদের মধ্যে আরেকটা জিনিস কাজ করছে তারা ৬ মার্চ ফাইনাল খেলবে। আর ভারতে চলে যাবে ৭ তারিখ। কারণ ৯ মার্চ থেকে শুরু হয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। যদি বাংলাদেশ চায় মাঠে যে ২৫ হাজার দর্শক ঢুকবে তারা ৭৫ হাজারের মতো আওয়াজ তুলতে পারে। সেটা ভারতের ওপর চাপ তৈরি করে কি-না সেটা বড় ব্যাপার। বাংলাদেশ এই চাপটা নিতে পারলেই হলো।

 


মন্তব্য