পাকিস্তান ভালোই এগিয়ে চলেছে-332187 | খেলাধুলা | কালের কণ্ঠ | kalerkantho

kalerkantho

সোমবার । ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৬। ১১ আশ্বিন ১৪২৩ । ২৩ জিলহজ ১৪৩৭


এশিয়া কাপ

পাকিস্তান ভালোই এগিয়ে চলেছে

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৪ মার্চ, ২০১৬ ২২:০৪



পাকিস্তান ভালোই এগিয়ে চলেছে

তিলকারত্নে দিলশান অপরাজিত ৭৫ ও দিনেশ চান্দিমাল ৫৮ রানের ইনিংস খেললেন। ওপেনিংয়ে আসলো ১১০ রান। এই দুইয়ের ইনিংসের ওপর ভর করে পাকিস্তানকে ১৫১ রানের টার্গেট দিলো শ্রীলঙ্কা। টস হেরে লঙ্কানরা ৪ উইকেটে করেছে ১৫০ রান। মিরপুর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে এশিয়া কাপের ম্যাচে সেই রান তাড়া করছে পাকিস্তান। ভালোই এগিয়েছে তারা। ১১ ওভারে তাদের সংগ্রহ ২ উইকেটে ৮১ রান। সরফরাজ আহমেদ ২৮ ও উমর আকমল ৬ রানে ব্যাট করছেন।

চতুর্থ ওভারে মোহাম্মদ হাফিজ পরপর দুই বলে দুটি বাউন্ডারি মারলেন শিহান জয়াসুরিয়াকে। কিন্তু তৃতীয় বলেই লোপ্পা ফিরতে ক্যাচ দিয়ে ফিরেছেন। হাফিজ করেছেন ১৪ রান। আগেই একটা ছক্কা হাঁকানো অন্য ওপেনার শারজিল খান মারমার কাটকাট খেলা শুরু করলেন। ষষ্ঠ ওভারে দুস্মন্ত চামিরার শেষ চার বলে টানা চার বাউন্ডারি মারলেন। পরের ওভারে মারলেন আরেকটি। কিন্তু দিলশানকে মারতে গিয়ে টাইমিংয়ে হেরফের হলো। ৩১ রান করা শারজিল ফিরলেন ক্যাচ দিয়ে।

এর আগে শ্রীলঙ্কার ইনিংসে দিলশান ও চান্দিমাল হতাশায় পুড়িয়েছেন পাকিস্তানকে। কিন্তু এমনটা নাও হতে পারতো। পঞ্চম ওভার। দিলশানের ব্যাটের ওপরের দিকে লেগে বল উঠলো ফাইন লেগে। ফিল্ডার সেখানে ৭ ফুট ১ ইঞ্চি উচ্চতার মোহাম্মদ ইরফান। ক্যাচটা নিতে পারলেন না। বোলার পাকিস্তান অধিনায়ক শহীদ আফ্রিদি হতাশায় বসে পড়লেন! কিছুই যে তার পক্ষে যাচ্ছে না!

দিলশান ওই জীবনটা পেয়েছেন ৮ রানে। পরের ওভারেই তাকে দেখা গেলো তুমুল ফর্মে থাকা পুরনো সেই দিলশানের মতো! বাঁ হাতি স্পিনার মোহাম্মদ নাওয়াজকে ৩টি চার ও একটি ছক্কা মেরে ১৮ রান নিয়ে নিলেন! প্রত্যেকটি মার দিলশান মেরেছেন নিশ্চিত হয়ে।

লাসিথ মালিঙ্গার পর অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুসও সামান্য ইনজুরি সমস্যায়। এই ম্যাচে শ্রীলঙ্কাকে নেতৃত্ব দেয়া দিনেশ চান্দিমাল খেলেছেন দারুণ। দিলশানের সাথে চমৎকার বোঝাপড়া ছিল। পেসার ওয়াহাব রিয়াজকে পরপর দুটি বাউন্ডারি মেরেছেন। ক্যারিয়ারের তৃতীয় ফিফটিটা তুলে নেবার পর আরো আগ্রাসী হতে চেয়েছেন। ওয়াহাবকে মারতে গিয়েই মিড উইকেটে ক্যাচ দিয়েছেন। ৪৯ বলে ৫৮ রান করেছেন চান্দিমাল। এটা তার ক্যারিয়ার সর্বোচ্চ। ১৫তম ওভারের প্রথম বলে ভেঙ্গেছে লঙ্কানদের ওপেনিং জুটি। ১১০ রান এসেছে এই উইকেটে। শ্রীলঙ্কার টি-টোয়েন্ট ইতিহাসের চতুর্থ সর্বোচ্চ রানের জুটি এটি।

চান্দিমালের ফেরার সময় দিলশান দাঁড়িয়ে ৪৭ রানে। টি-টোয়েন্টিতে ১২তম ফিফটি তুলে নিয়ে তিনি ফর্মে ফিরেছেন। তবে পাকিস্তানি বোলাররা শেষ দিকে চাপে রাখতে পেরেছেন ব্যাটসম্যানদের। ১৫ রানে ৪ উইকেট তুলে নিয়েছে তারা। শেষ ৬ ওভারে ৩৫ রান পেয়েছে লঙ্কানরা। দিলশানের ক্যাচ শেষের দিকে আবার ফেলেছেন ইরফান। ৫৬ বলে ১০টি চার ও ১টি ছক্কায় ৭৫ রানের হার না মানা ইনিংস খেলে ফিরেছেন দিলশান। 

মন্তব্য