kalerkantho


গাজীপুরে শুভসংঘের নৌ ভ্রমণ

সুমি আক্তার   

১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



গাজীপুরে শুভসংঘের নৌ ভ্রমণ

নৌ ভ্রমণে গাজীপুর জেলা শাখা শুভসংঘের কয়েকজন বন্ধু

গাজীপুরের পাশ দিয়ে তুরাগ নদের একটি অংশ ঢুকে গেছে মকশ বিলে। বর্ষার শেষে পানি এখন কমার পথে। দুই পাশে কিছু ঘরবাড়ি আর সারি সারি গাছের মাঝখান দিয়ে বয়ে চলা পানিতে তখন ভেসে চলছে আমাদের নৌকাটি। আমরা সবাই নৌকার ছাদে বসা। মাথার ওপর খোলা নীলাভ আকাশ, চমৎকার রোদ্রোজ্জ্বল আবহাওয়া। নিত্যদিনের রুটিন কাজ থেকে ক্ষণিকের মুক্তিতে আনন্দে আত্মহারা সবাই। এটি ছিল আমাদের পূর্বপরিকল্পিত একটি ভ্রমণ। মূল পরিকল্পনাকারী হলেন গাজীপুর জেলা শুভসংঘের সভাপতি মুসাফির ইমরান। তিনি একদিন হঠাৎ করে নৌকা ভ্রমণের কথা বলতেই লাফিয়ে উঠেছিলাম সবাই। নির্ধারিত দিন সকালে সবাই মিলে একসঙ্গে জড়ো হই গাজীপুর চৌরাস্তার শাপলা ম্যানশনের সামনে। সেখান থেকে সবাইকে নিয়ে লেগুনায় চলে যাই মির্জাপুর নৌঘাটে। মির্জাপুর নৌঘাট থেকে সকাল ৯টায় সবাই নৌকায় উঠি। নৌকা ছাড়তেই সবাই মিলে নৌকার ছাদে বসে সকালের নাশতা করি। এরপর শুরু হয় আমাদের মূল আনন্দ। একটি বাক্সে বিভিন্ন ধরনের চিরকুট লেখা আছে। সেই বাক্স থেকে একটি চিরকুট তুলতে হবে। চিরকুটে যা লেখা থাকবে, সেটাই অভিনয় করে দেখাতে হবে। কারো নাচ, কারো গান, কারো হকারি, কারো বা খলনায়কের অভিনয়। এভাবেই মজায় মজায় চলতে থাকে নৌকা আর আমাদের আনন্দ-উল্লাস। মাঝেমধ্যে আবার গানের তালে নাচানাচি। সবাই যার যার মতো করে নাচছে। কোনো দ্বিধা নেই, নেই কোনো সংকোচ। এই হৈ-হুল্লোড়ের মধ্যে নৌকা এসে থামে মকশ বিলে। এখানকার একটি রিসোর্টে নেমে সবাই ছবি তোলে। একটু ঘোরাঘুরি শেষে আবার আমরা নৌকায় উঠি। আমাদের নৌকা ছুটতে থাকে মকশ বিলের আরেক পাশের তুরাগ নদের দিকে। দুপুরের খাবারটা আমরা নৌকায় বসেই খেয়েছি। সবার মধ্যে অসম্ভব একটি মিল ছিল এখানে। খাওয়ার সময় একজন আরেকজনকে খাইয়ে দিচ্ছে। এ যেন এক অনন্য বন্ধন। তারপর বিকেলে একটি মাঠে ফুটবল খেলার আয়োজন করা হয়। খেলা শেষে সবাই নদীতে নেমে গোসল ও ঝাঁপাঝাঁপি করি। এরপর শেষ বিকেলে মকশ বিল দিয়ে আবার সেই মির্জাপুর ঘাটের দিকে রওনা হই আমরা। ঘাটে নৌকা পৌঁছার আগে সবাই মিলে শুভসংঘ নিয়ে কিছু আলোচনা হয়। সমাজে কিভাবে ভালো কাজ করা যায়, দেশসেবার স্বপ্ন আর নিজেদের মধ্যে এই বন্ধন অটুট রাখার বিষয়ে সবাই মিলে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ হই। এর মধ্যেই আমাদের নৌকা এসে ঘাটে ভিড়ে। শেষ হয় আমাদের হাসি আর আনন্দে ভরা একটি দিন। নৌ ভ্রমণে উপস্থিত ছিলেন মুসাফির ইমরান, মুরাদ মাহমুদ, নুর জাহান, ইমরান দেওয়ান, সুমি আক্তার, সাদিকুল ইসলাম, রাশেদুল ইসলাম, রবি খান, মামুন, প্রসেনজিত, হাফিজুর রহমান, আছমা, রুমা, মমিনুল, সাগর প্রমুখ।



মন্তব্য