kalerkantho

বিরোধীদলের আন্দোলনের উৎস না হতে বলল পুলিশ

শিক্ষার্থীদের সঙ্গে বৈঠক

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

২২ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বিরোধীদলের আন্দোলনের উৎস না হতে নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের অনুরোধ করেছেন চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ (সিএমপি) কমিশনার মো. মাহাবুবর রহমান। বৃহস্পতিবার দুপুরে ২০১৮ সালে নিরাপদ সড়কের আন্দোলনে নেতৃত্ব দেওয়া শিক্ষার্থীরা সিএমপি কমিশনারের সঙ্গে বৈঠকে বসেন। এ সময় শিক্ষার্থীদের এই অনুরোধ করেন নগর পুলিশের এই শীর্ষ কর্মকর্তা।

সিএমপি কমিশনার শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে বলেন, ‘তোমাদের মতো বয়সে আবেগ বেশি থাকে। এটা স্বাভাবিক। এজন্য তোমাদের মাঠে নামানো সহজ হয়। কিন্তু তোমরা যখন মাঠে নামো, কুচক্রীমহল সক্রিয় হয়ে ওঠে। আমার অনুরোধ, তোমরা শিক্ষার্থীরা যাতে বিরোধীদলের আন্দোলনের উৎস না হও। আমরা তোমাদের সঙ্গে থাকব। আমাদের সম্পর্কটা যেন সামনের দিকে এগিয়ে যায়। এখানে কোনো রাজনীতি যেন স্থান না পায়। সবাই মিলে যাতে সড়ক দুর্ঘটনাটা নিয়ন্ত্রণে আনতে পারি।’

১৯ মার্চ সকাল ৭টার দিকে রাজধানীর প্রগতি সরণিতে সুপ্রভাত পরিবহনের একটি বেপরোয়া বাসের ধাক্কায় আবরার আহমেদ চৌধুরী নামে আরেক শিক্ষার্থীর মৃত্যু হয়। তিনি বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালে (বিইউপি) আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগে পড়তেন। এ ঘটনার পর দুদিন ঢাকার বিভিন্ন সড়কে নেমে আন্দোলন করেন শিক্ষার্থীরা। চট্টগ্রামেও শিক্ষার্থীরা রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ করতে পারেন বলে আশঙ্কা তৈরি হয়। এ সময় নগর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নুরুল আজিম রনির মধ্যস্থতায় বুধবার শিক্ষার্থীদের সঙ্গে প্রথমে বৈঠকে বসেন চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক মো. ইলিয়াস হোসেন। এর পর গতকাল শিক্ষার্থীদের সঙ্গে সিএমপি কমিশনার বৈঠক করেন।

শিক্ষার্থীরা সিএমপি কমিশনারের কাছে চট্টগ্রামে স্কুল-কলেজের জন্য বিআরটিসি বাস সার্ভিস চালু, রাস্তার প্রতিটি মোড়ে সংকেত ব্যবহার করা, ফুটওভার ব্রিজ নির্মাণ, জেব্রা ক্রসিং ও স্পিডব্রেকার দেওয়ার দাবি তুলে ধরেন।

সিএমপি কমিশনার ‘সড়ক সংকেত’ করার জন্য দুই মাসের সময় নিয়েছেন শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে। তিনি বলেন, ‘এটা দুই মাসের মধ্যে হয়ে যাবে।’ একই সঙ্গে দুই মাসের নগরের স্কুলগুলোতে ট্রাফিক ভলান্টিয়ার কমিটি করা হবে বলেও ঘোষণা দেন সিএমপি কমিশনার। প্রতিটি কমিটিতে ২০ শিক্ষার্থীও থাকবে।

নগরের দামপাড়া পুলিশ লাইনে সিএমপি কমিশনারের সম্মেলন কক্ষে বৈঠকে অতিরিক্ত কমিশনার কুসুম দেওয়ান ও আমেনা বেগম, নগর পুলিশের উপ-কমিশনার (দক্ষিণ) মেহেদী হাসান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

মন্তব্য