kalerkantho


চট্টগ্রাম-১ মিরসরাই

ধানের শীষ-নৌকা নিয়ে বাবা-ছেলের দৌড়ঝাঁপ

শিমুল নজরুল, চট্টগ্রাম   

১৫ নভেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



ধানের শীষ-নৌকা নিয়ে বাবা-ছেলের দৌড়ঝাঁপ

মনিরুল ইসলাম ইউসুফ ও তাঁর ছেলে নিয়াজ মোরশেদ এলিট

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে চট্টগ্রাম-১ (মিরসরাই) আসনে বিএনপির প্রার্থী হতে চান মুক্তিযোদ্ধা ও বিশিষ্ট শিল্পপতি মনিরুল ইসলাম ইউসুফ। গত মঙ্গলবার ঢাকার নয়াপল্টন বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয় থেকে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন তিনি। একই আসনে বাবার প্রতিদ্বন্দ্বি হতে আওয়ামী লীগের মনোনয়নপত্র নিয়েছেন তাঁরই ছেলে তরুণ শিল্পোদ্যোক্তা নিয়াজ মোরশেদ এলিট। বাবা-ছেলে দুজনই এবার প্রথম নির্বাচন করার জন্য বড় দুই দল থেকে মনোনয়নপত্র নিয়েছেন।

তবে চট্টগ্রামের ওই আসনে আওয়ামী লীগের ভিআইপি প্রার্থী রয়েছেন বর্তমান গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন। নবম ও দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আসনটি থেকে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ বিজয়ী হন। এর আগে ১৯৯৬ ও ১৯৭০ সালের নির্বাচনেও তিনি আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে জয়লাভ করেন। শিল্পপতি মনিরুল ইসলাম ইউসুফ জাতীয়তাবাদী মুক্তিযোদ্ধা দলের কেন্দ্রীয় সহসভাপতি এবং অটোমোবাইল শিল্প প্রতিষ্ঠান বড়তাকিয়া গ্রুপের চেয়ারম্যান। এক সময় তিনি জাতীয় পার্টির রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত ছিলেন। আর নিয়াজ মোরশেদ এলিট আওয়ামী লীগের আন্তর্জাতিক বিষয়ক উপকমিটির সদস্য এবং পারিবারিক শিল্প প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক। পারিবারিক ব্যবসার পাশাপাশি তিনি চট্টগ্রাম বন্দরে ঠিকাদারি ব্যবসা করেন। ক্রীড়া সংগঠক হিসেবেও পরিচিতি রয়েছে তরুণ এ উদ্যোক্তার। তাঁর হাত ধরে চট্টগ্রামে গড়ে উঠেছে ‘খুলশী ক্লাব’ ও ‘জুনিয়র চেম্বার’ নামে তরুণ ব্যবসায়ী সংগঠন।

দলীয় মনোনয়ন পেলে চট্টগ্রামের এই ভিআইপি আসনে (মিরসরাই) ভোটযুদ্ধে মুখোমুখি হবেন বাবা মনিরুল ইসলাম ও ছেলে নিয়াজ মোরশেদ এলিট। মিরসরাইয়ে আওয়ামী লীগের মধ্যে গ্রুপিং রয়েছে। একপক্ষ মনোনয়ন পেলে আরেকপক্ষ কাজ না করার আশঙ্কা থাকে। সুযোগটা কাজে লাগাতে চান তরুণ আওয়ামী লীগ নেতা এলিট।

এদিকে বুধবার পর্যন্ত চট্টগ্রাম-১ (মিরসরাই) আসনে নির্বাচন করার জন্য আওয়ামী লীগের ৯ জন মনোনয়নপত্র নিয়েছেন বলে জানা গেছে। এ প্রসঙ্গে বিএনপি নেতা মনিরুল ইসলাম ইউসুফ বলেন, ‘নির্বাচনে বাপ-ছেলে কিংবা মা-মেয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করা নতুন বিষয় নয়। যার যার নির্বাচন সে সে করবে। নির্বাচনে আমার ছেলে বলে বিএনপির একটা ভোট তার দিকে যাবে না। আবার আমি তার বাবা বলে আওয়ামী লীগের একটা ভোট বিএনপিতে আসবে না। নির্বাচনের মাঠে কোনো ছাড় নয়।’

নিয়াজ মোরশেদ এলিট  বলেন, ‘রাজনীতিতে বাপ-ছেলে বলে কিছু নেই। যে যার আদর্শ নিয়ে রাজনীতি করছি। আদর্শের প্রশ্নে কোনো ছাড় নয়। আদর্শের সঙ্গে কোনো কম্প্রোমাইজ নয়। ভোটের মাঠে যে কৌশলই আমাকে নিতে হবে, সেটা নেব।’ তিনি আরো বলেন, ‘আমার সঙ্গে কারও বিরোধ নেই। তাই আমি মনোনয়ন পেলে দলের সবপক্ষ আমার হয়ে নির্বাচনে কাজ করবে বলে আমি আশা করি।’

নিয়াজ মোরশেদ এলিট বলেন, ‘বুধবার গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মনোনয়নপ্রত্যাশীদের ডেকেছিলেন। সেখানে তিনি (প্রধানমন্ত্রী) বলেছেন, ঐক্যবদ্ধভাবে দলের জন্য কাজ করতে। যারা দলের শৃঙ্খলা ভঙ্গ করবে তাদের দল থেকে বাদ দেওয়ারও ঘোষণা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।’



মন্তব্য