kalerkantho


দীঘিনালায় স্কুলের প্রধান শিক্ষক অপহৃত

দীঘিনালা (খাগড়াছড়ি) প্রতিনিধি   

১৪ নভেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



পাহাড়ের আঞ্চলিক রাজনৈতিক সংগঠনের বিরোধের জের ধরে দীঘিনালায় কার্বারিসহ (পাড়াপ্রধান) তিনজন নিখোঁজের পর এবার এক উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষককে অপহরণ করা হয়েছে। অপহৃত ঊষা আলো চাকমা (৪৮) দীঘিনালার উত্তর রেংকার্য্যা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক। তাঁর বাড়ি বিদ্যালয়ের পার্শ্ববর্তী গ্রাম চৌধুরীপাড়ায়।

অপরদিকে অপহৃতের পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় অভিযোগ করা না হলেও বিষয়টি অবগত হয়েছে জানিয়ে অপহৃতকে উদ্ধারের চেষ্টা করা হচ্ছে বলে দাবি করেছে পুলিশ।

নাম গোপন রাখার শর্তে স্থানীয় এবং উষা আলোর স্বজনরা জানান, রবিবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে ৪/৫ জনের সশস্ত্র সন্ত্রাসী অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে তাঁকে নিজ ঘর থেকে তোলে নিয়ে যায়। এর পর থেকে ঊষা আলোর মোবাইল ফোন বন্ধ রয়েছে।

দীঘিনালা থানার অফিসার ইনচার্জ উত্তম চন্দ্র দেব জানান, পরিবারের পক্ষ থেকে কেউ থানায় বিষয়টি জানাননি। তবে তিনি বিভিন্ন মাধ্যম থেকে অপহরণের খবর পেয়ে সার্বিক খোঁজ-খবর নেওয়ার চেষ্টা অব্যাহত রেখেছেন।

দীঘিনালা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ উল্লাহ জানান, বিষয়টি তিনি শোনার পর আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সাথে আলোচনা করে ঊষা আলোকে খুঁজে বের করার জন্য উদ্ধারের দায়িত্ব দিয়েছেন সংশ্লিষ্টদের।

প্রসঙ্গত, গত ২৫ অক্টোবর দুপুরের দিকে বাড়ি থেকে বের হয়ে ফেরেননি কার্বারিসহ একই পাড়ার তিনজন। এর পর থেকে তাঁদের খোঁজ মেলেনি। তাঁরা হলেন দীঘিনালা ইউনিয়নের নারিকেলবাগান গ্রামের টুক্কু কার্বারি পাড়ার কার্বারি প্রিয়তম চাকমা (৪৮), দয়াল কুমার চাকমা (৫০) ও ভদ্রসেন চাকমা (৬৫)।

ওই সময় জেএসএস (এম এন লারমা) কেন্দ্রীয় কমিটির সহতথ্য ও প্রচার সম্পাদক প্রশান্ত চাকমা তিনজনের মধ্যে দয়ালকুমার চাকমাকে নিজ দলের সদস্য দাবি করে ঘটনার জন্য ইউপিডিএফকে (প্রসীত) দায়ী করে বলেছিলেন, ‘ইউপিডিএফের লোকেরা তাদের অপহরণ করে নিয়ে গেছে।’

এ বিষয়ে ইউপিডিএফ (ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট, প্রসীত) খাগড়াছড়ি জেলা শাখার সংগঠক মাইকেল চাকমা জানিয়েছিলেন, এ রকম অপহরণ ঘটনার সংবাদ তাঁদের জানা নেই। নির্বাচন সামনে রেখে পরিস্থিতি ঘোলাটে করার জন্য পরিকল্পিতভাবে জেএসএস (এম এন লারমা) মিথ্যা অপবাদ দিচ্ছে।



মন্তব্য