kalerkantho


পেকুয়ায় তরুণীকে গণধর্ষণ জড়িত সন্দেহে আটক ৩

চকরিয়া (কক্সবাজার) প্রতিনিধি   

১৮ অক্টোবর, ২০১৮ ০০:০০



পেকুয়ায় এক তরুণী গণধর্ষণের শিকার হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে অভিযান চালিয়ে পুলিশ তিনজনকে আটক করেছে। পুলিশ ধর্ষিতাকে উদ্ধার করে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পাঠিয়েছে।

মঙ্গলবার দিবাগত রাত দেড়টার দিকে উপজেলার টৈটং ইউনিয়নের ধনিয়াকাটা এলাকায় কবরস্থানের পাশে উপর্যুপরি ধর্ষণ করা হয় ওই তরুণীকে। গভীর রাতে তরুণীর চিৎকার শুনতে পেয়ে স্থানীয় লোকজন খবর দেয় পুলিশকে। এর পর পুলিশ গিয়ে ওই তরুণীকে উদ্ধার করে।

পেকুয়া থানা পুলিশ জানায়, ঘটনার পর ধর্ষিতার স্বীকারোক্তি অনুযায়ী অভিযান চালিয়ে তিনজনকে আটক করা হয়। তাঁরা হলেন টৈটং ইউনিয়নের ধনিয়াকাটা গ্রামের মনজুর আলমের ছেলে আলী হোসেন, আবদুল মতলবের ছেলে মোহাম্মদ তারেক ও একই এলাকার আবু ছিদ্দিক। এ ছাড়া আরো কয়েকজনকে আটক করতে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

পুলিশ আরো জানায়, ধর্ষিতা তরুণী মঙ্গলবার সন্ধ্যায় টৈটং ইউনিয়নে আত্মীয়ের বাড়িতে বেড়াতে আসছিল। এ জন্য একটি অটোরিকশায় উঠে সে। কিন্তু অটোরিকশাচালক জোনাইদসহ কয়েকজন ওই তরুণীকে জিম্মি করে এখানে-ওখানে ঘোরাঘুরি করতে থাকে। একপর্যায়ে রাত বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে তাকে নিয়ে যাওয়া হয় ধনিয়াকাটার একটি কবরস্থানের পাশে। সেখানে তাকে পালাক্রমে ধর্ষণ করা হয়।

পেকুয়া থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আশিকুর রহমান জানান, খবর পাওয়ামাত্রই ঘটনাস্থলে গিয়ে তরুণীকে উদ্ধার করে তার স্বীকারোক্তি অনুযায়ী ঘটনায় জড়িত সন্দেহে তিনজনকে আটক করা হয়েছে।

পেকুয়া থানার ওসি মো. জাকির হোসেন ভূঁইয়া জানান, ধর্ষণের খবর পাওয়া মাত্রই বিপুলসংখ্যক পুলিশ গিয়ে তরুণীকে উদ্ধার করে। এ ঘটনায় তিনজনকে আটক করা হয়েছে। এ ব্যাপারে থানায় মামলা করা হয়েছে। ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য তরুণীকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালের ওসিসিতে পাঠানো হয়েছে।

 

 



মন্তব্য