kalerkantho


ভাসমান বীজতলা জনপ্রিয় হচ্ছে

আসাদুজ্জামান দারা, ফেনী   

৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



ভাসমান বীজতলা জনপ্রিয় হচ্ছে

ফেনীর বিভিন্ন স্থানে সরকারি সহায়তায় ভাসমান বীজতলা তৈরি করা হয়েছে। ছবি : কালের কণ্ঠ

জেলার বিভিন্ন স্থানে জনপ্রিয় হয়ে ওঠছে ভাসমান বীজতলা। খাল, বিল ও জলাশয়ে এ বীজতলা তৈরি করা হয়েছে। জেলার বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা গেছে এমন অনেক বীজতলা। সদর উপজেলা, দাগনভূঞা, সোনাগাজী, ফুলগাজী, পরশুরাম ও ছাগলনাইয়ার ছয় স্থানে ভাসমান বীজতলা তৈরি করা হয়েছে।

সরেজমিনে ফেনী সদর উপজেলার উত্তর কাশিমপুরে চর এলাকায় দেখা যায়, কৃষক নুর মিয়া ভাসমান বীজতলা তৈরি করেছেন। তিনি জানান, প্রথমে পানিতে কলার ভেলা বেঁধে এর পর উপরে কচুরিপনা দিয়ে গ্যাপ পূরণ করার পর মাটি সমান করে বীজ ছিটিয়ে দিতে হয়। ১৫ থেকে ২০ দিনে চারা পরিপূর্ণতা লাভ করে।

সদর উপজেলা কৃষি অফিস সূত্র জানিয়েছে, পাঁচগাছিয়া ইউনিয়নের উত্তর কাশিমপুর এলাকায় এ বীজতলা তৈরি করা হয়। মূলত বন্যা ও আপৎকালীন সময় ভাসমান বীজতলা ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের বীজ সংকট মেটায়। গত কয়েক বছর আগাম বন্যায় উপজেলার বিভিন্ন এলাকা ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হয়। কৃষকদের ক্ষতি পুষিয়ে নিতে বন্যাপরবর্তী রোপা আমন আবাদ করলে কৃষক লাভবান হতে পারেন। বিশেষ করে এসব চারা রোপণে ফলন ভালো হয়, দামও বেশি।

সদর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আবু নঈম মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন বলেন, ‘সরকারি সহায়তায় ভাসমান বীজতলার এ ধরনের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।’ এজন্য তিনি জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের

উপ-পরিচালকের প্রচেষ্টার কথা উল্লেখ করেন।

উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা প্রণব চন্দ্র মজুমদার বলেন, ‘এ ধরনের চারা আপৎকালীন চারা হিসেবে কৃষকদের কাজে লাগবে। প্রতিটি স্থানে এ বছর পরীক্ষামূলকভাবে বীজতলা তৈরি করা হয়েছে। সেখানে ২০ দিনে পরিপূর্ণ চারা তৈরি হয় এবং রোপণের উপযুক্ত হয়। এতে কৃষকদের মাঝে সাড়া পাওয়া যাচ্ছে।’

সম্প্রতি সদর উপজেলার পাঁচগাছিয়া ইউনিয়নে ভাসমান বীজতলা পরিদর্শন করেন জেলা কৃষি সমপ্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মো. জয়েন উদ্দিন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন খামারবাড়ি ঢাকার ক্রপ উইং ও মনিটরিং কর্মকর্তা মো. লুত্ফুর রহমান, সদর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আবু নঈম মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন, সহকারী কৃষি সমপ্রসারণ কর্মকর্তা আবুল কালাম মজুমদার, উপ সহকারী কৃষি কর্মকর্তা প্রণব চন্দ্র মজুমদার, জসিম উদ্দিন, মামুনুর রহমান ভূঁঞা।

তিনি স্থানীয় কৃষকদের মাঝে আমন মৌসুমে বিভিন্ন প্রযুক্তি, ভার্মি কম্পোস্ট, আউশ মৌসুমের বীজ সংরক্ষণ, ভাসমান বীজতলা, বিষমুক্ত সবজি উৎপাদন করার জন্য পরামর্শ দেন।



মন্তব্য