kalerkantho


বিআরটিএর ভ্রাম্যমাণ আদালত

গাড়ির কাগজপত্র ঠিক থাকলে উপহার না থাকলে জেল

৮১ মামলা এক লাখ ৪৪ হাজার টাকা জরিমানা

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



ফিটনেস ও লাইসেন্সবিহীন অবৈধ যানবাহনের বিরুদ্ধে বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট কর্তৃপক্ষের (বিআরটিএ) ভ্রাম্যমাণ আদালত তৃতীয় দিনের মতো অভিযান চালিয়েছে নগরে।

অভিযানে যেসব চালকের ড্রাইভিং লাইসেন্স ও গাড়ির কাগজপত্র ঠিক আছে তাঁদেরকে শুভেচ্ছাস্বরূপ ব্যাগ উপহার দেওয়া হয়। আর যাঁদের কাগজপত্র ঠিক নেই তাঁদের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

গতকাল সোমবার ভ্রাম্যমাণ আদালত নগরের ষোলশহর ২ নম্বর গেট মোড়ে এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ জিয়াউল হক মীর এবং নিউমার্কেট মোড়ে এস এম মনজুরুল হক অভিযানে নেতৃত্ব দেন। এতে ৮১টি মামলায় ১ লাখ ৪৪ হাজার ৪০০ টাকা জরিমানা করা হয়। গাড়ি ডাম্পিংয়ে পাঠানো হয় ১৫টি এবং কাগজপত্র জব্দ করা হয় ২৪টির।

অভিযানে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটরা রুট পারমিট, লাইসেন্স, রেজিস্ট্রেশন, হেলমেট ও যানবাহন বিমা না থাকা, গাড়িতে অনুমোদিত আসন সংখ্যার চেয়ে অতিরিক্ত আসন এবং হাইড্রোলিক হর্নের জন্য জরিমানার আদেশ দেন। সেই সঙ্গে চালকদের সচেতন করে দেন, যাতে পরবর্তীতে তাঁরা সতর্ক হন। যেসব গাড়ি জরাজীর্ণ সেসব গাড়িকে জব্দ করে ডাম্পিংয়ে পাঠানো হয়।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. জিয়াউল হক মীর বলেন, ‘সোমবার যেসব গাড়ির কাগজপত্র ঠিক পেয়েছি সেসব গাড়ির চালককে বিআরটিএ শুভেচ্ছাস্বরূপ ব্যাগ দিয়েছি। যাতে ওই ব্যাগে গাড়ির কাগজপত্র রাখতে পারে।’

‘ষোলশহর ২ নম্বর গেটে সকাল ১০টা থেকে দুপুর ৩টা পর্যন্ত পরিচালিত অভিযানে ৪৬টি মামলায় ৯৬ হাজার ৪০০ টাকা জরিমানা করেছি। এর মধ্যে ৮টি গাড়ি ডাম্পিংয়ে পাঠিয়েছি এবং ১৬টি গাড়ির কাগজপত্র জব্দ করেছি।’-যোগ করেন তিনি।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এস এম মনজুরুল হক বলেন, ‘নগরের নিউমার্কেট মোড়ে অভিযানে শতাধিক গাড়ির কাগজপত্র দেখেছি। এর মধ্যে অসঙ্গতি পাওয়ায় ৩৫টি গাড়িকে মামলা দিয়ে ৪৮ হাজার টাকা জরিমানা করেছি। আর ৭টি গাড়িকে ডাম্পিংয়ে পাঠিয়েছি এবং ৮টি গাড়ির কাগজপত্র জব্দ করি।’

এ সময় তিনি একটি গাড়িতে কোনো কাগজপত্র না থাকায় এবং চালক অপ্রাপ্তবয়স্ক হওয়ায় ওই চালককে এক মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেন। অভিযানে তিনি যাঁদের কাছে কাগজপত্র ঠিক পাওয়া গেছে তাঁদেরকে চকলেট দিয়ে অভিনন্দন জানাই।’

 



মন্তব্য