kalerkantho

26th march banner

হ্যারি পটার লেখকও প্রকাশকদের কাছে প্রত্যাখ্যাত হয়েছিলেন!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৬ মার্চ, ২০১৬ ১৯:৩১



হ্যারি পটার লেখকও প্রকাশকদের কাছে প্রত্যাখ্যাত হয়েছিলেন!

বেস্ট সেলার বই হ্যারি পটার প্রকাশ করে বহু খ্যাতি অর্জন করেছেন জেকে রাউলিং। তার বইয়ের কাহিনী থেকে পরবর্তীতে বেশ কয়েকটি চলচ্চিত্রও তৈরি হয়েছে। কিন্তু বইয়ের লেখক জেকে রাউলিং জানিয়েছেন, বইটি লেখার পর প্রাথমিকভাবে তার বই প্রকাশ করার জন্য কোনো প্রকাশক পাওয়া যাচ্ছিল না। এক প্রতিবেদনে বিষয়টি জানিয়েছে ডেইলি মেইল।
সম্প্রতি হ্যারি পটার লেখার পর রাউলিং বিভিন্ন প্রকাশকের কাছে তার বইয়ের পাণ্ডুলিপি পাঠিয়ে তা প্রকাশের অনুরোধ করেছিলেন। কিন্তু  বিভিন্ন প্রকাশকের কাছ থেকে তিনি বইটি ছাপাতে অনাগ্রহের কথা জানতে পারেন। অনেক প্রকাশক তাকে লেখালেখি বিষয়ে কোর্স করে তারপর বই লেখার পরামর্শও দেন।
সম্প্রতি রাউলিং তার প্রথম উপন্যাস ‘দ্য কাক্কুস কলিং’ প্রকাশকদের কাছে পাঠানোর পর তা প্রকাশে অনিচ্ছুক প্রকাশকদের চিঠি প্রকাশ করেছেন। বই ছাপানোর প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করে এ চিঠিগুলো তিনি পেয়েছিলেন কয়েকটি বিখ্যাত প্রকাশকের কাছ থেকে।

পরবর্তীতে অবশ্য তার বই ‘দ্য কাক্কুস কলিং’ প্রকাশিত হয় এবং বইটি বেস্ট সেলার বইও হয়ে ওঠে। এটি ছিল বিশ্বযুদ্ধ-পরবর্তী গোয়েন্দা কাহিনী। পরবর্তীতে অবশ্য বইটি প্রকাশিত হয় এবং যথেষ্ট সমাদৃত হয়।
একই ঘটনা ঘটেছিল হ্যারি পটার বইয়ের ক্ষেত্রেও। তিনি বইটির একজন প্রকাশকের কাছে পাঠানোর পর তা প্রত্যাখ্যাত হয়। সে সময় তিনি কড়া একটি প্রত্যাখ্যান পত্র পেয়েছিলেন। অবশ্য রাউলিং সে চিঠিটি প্রকাশ করলেও প্রেরকের নাম প্রকাশ করেননি। তিনি জানান, ইমেইলে পাওয়া সে প্রত্যাখ্যান পত্রটি এখন আর প্রতিশোধমূলক কাজে ব্যবহার করতে তিনি আগ্রহী নন।
নতুন লেখক, যারা বই প্রকাশের জন্য প্রকাশক খুঁজে পাচ্ছেন না, তাদের জন্যই রাউলিং এ চিঠিগুলো প্রকাশ করেছেন। এ চিঠিগুলোতে প্রকাশকেরা তার বই প্রকাশ করতে অক্ষমতার কথা জানিয়ে লিখেছিলেন যে, এ বই বাজারে চলবে না এবং এতে তাদের আর্থিক ক্ষতি হতে পারে। তবে তারা লেখককে পরামর্শ দিয়েছিল হাল না ছেড়ে বরং কিভাবে ভালো লেখা যায় সে বিষয়ে গাইড থেকে শিক্ষা গ্রহণ করতে।
সে সময় রাউলিং নিজের নামে না লিখে বিভিন্ন নামে বই লিখতেন। পরবর্তীতে হ্যারি পটার সিরিজের মাধ্যমে তিনি তুমুল জনপ্রিয়তা পান। হ্যারি পটারের বইগুলো যেমন জনপ্রিয়, তেমন রূপালি পর্দাতেও ভুবনবিখ্যাত হয়ে যায়।


মন্তব্য