kalerkantho


বঙ্গটান বালকদের জয়

বছরজুড়েই কোরিয়ান ব্যান্ড বিটিএস-এর সাফল্যের সাক্ষী পুরো সংগীত দুনিয়া। ‘পিপলস চয়েস অ্যাওয়ার্ডস’ও ব্যতিক্রম নয়। অনুষ্ঠানে যৌথভাবে সর্বোচ্চ চারটি পুরস্কার জিতেছে ব্যান্ডটি। লিখেছেন লতিফুল হক

১৫ নভেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



বঙ্গটান বালকদের জয়

কয়েক বছর ধরেই তাদের সাফল্যগাথা চলছিল, এ বছর সেটা আরো ছাড়িয়েছে। আগস্টে তারা ভেঙেছে টেইলর সুইফটের রেকর্ড। তাদের অ্যালবাম ‘লাভ ইওরসেলফ : আনসার’-এর সিঙ্গল ‘আইডল’ মুক্তির প্রথম দিনেই চার কোটি ৫০ লাখ ভিউয়ার পায়, যা ভেঙে দেয় টেইলর সুইফটের রেকর্ড। হচ্ছিল কোরিয়ান সাত তরুণের ব্যান্ড ‘বিটিএস’-এর কথা। ‘বিটিএস’ মানে বঙ্গটান বয়েজ। দলের সদস্য সাত—ভি, জে-হোপ, আর এম, জিন, জিমিন, জংকুক ও সুগা। সবারই বয়স পঁচিশটচিশ। চলছিল ভালোই, কিন্তু সপ্তাহখানেক ধরেই ‘পোশাক বিতর্কে’ নাজেহাল ব্যান্ডটি। হঠাৎ এক শোতে ব্যান্ডটিকে পারফর্ম করতে দেখা যায় কুখ্যাত নািস হ্যাট পরে। নিন্দার ঝড় ওঠে স্বভাবতই। এর রেশ কাটতে না কাটতেই ফের ‘অটোমিক বম্ব’ লেখা টি শার্ট পরে ছবি দিতে দেখা যায় ব্যান্ডটির সদস্যদের। ব্যস, আর যায় কোথায়! এর মধ্যে জাপানের চ্যানেলে অনুষ্ঠান করার কথা ছিল ‘বিটিএস’-এর, টিভি কর্তৃপক্ষ যা বাতিল করেছে। পারমাণবিক অস্ত্রের কুফল হাড়ে হাড়ে টের পাওয়া জাপানের লাখো ভক্ত ফুঁসে উঠেছে ব্যান্ডটির বিরুদ্ধে। সব জায়গা থেকে আসছে ক্ষমা চাওয়ার আহ্বান। এমন বিতর্কের মধ্যে এক টুকরো আশার মেঘ হয়ে এলো যেন ‘পিপলস চয়েস অ্যাওয়ার্ডস’। ১১ নভেম্বর রাতে অনুষ্ঠিত আসরে যৌথভাবে সর্বোচ্চ চারটি পুরস্কার পেয়েছে ‘বিটিএস’। গুরুত্বপূর্ণ কোনো পশ্চিমা পুরস্কার অনুষ্ঠানে কোনো এশীয় ব্যান্ডের এমন সাফল্যের নজির কমই আছে।

‘পিপলস চয়েস অ্যাওয়ার্ডস’-এর ৪৪তম আসরে তারা জিতেছে ‘দ্য গ্রুপ অব ২০১৮’, ‘সোশ্যাল সেলিব্রিটি অব ২০১৮’, ‘সং অব ২০১৮’ ও ‘মিউজিক ভিডিও অব ২০১৮’ পুরস্কার। এর মধ্যে ‘আইডল’ গানটির সেরা হওয়া অনেকটা অনুমিতই। প্রথম দিনে সর্বোচ্চ ভিউয়ার পাওয়া গানটির দুটি ভার্সন আছে, যেগুলো মুক্তির প্রথম সপ্তাহে শুধু যুক্তরাষ্ট্রেই বিক্রি হয়েছিল ৪৩ হাজার কপির বেশি। মঞ্চে আর ভিডিওতে ব্যতিক্রমী পারফরমম্যান্সের জন্যও জনপ্রিয় ব্যান্ডটি। যেমন মঞ্চে তাদের গানের সঙ্গে প্রায়ই মার্শাল আর্টের নানা ভঙ্গি করতে দেখা যায়। ‘আইডল’ গানটির ভিডিওর জন্যই সেরা মিউজিক ভিডিওর পুরস্কার ঘরে তুলেছে ব্যান্ডটি। ‘পিপলস চয়েস অ্যাওয়ার্ডস’-এ এমন সাফল্যে স্বভাবতই আনন্দিত তারা। অনুষ্ঠানে না থাকলেও এক ভিডিও বার্তায় তারা স্বীকৃতির জন্য ভক্তদের ধন্যবাদ জানিয়েছে। নিয়মিত নানা সামাজিক কার্যক্রমেও অংশ নেয় ব্যান্ডটি। কিছুদিন আগে তারা যুক্ত হয়েছে জাতিসংঘের শিশুবিষয়ক সংস্থা ইউনিসেফের সঙ্গেও। নানা সামাজিক কার্যক্রমে অংশগ্রহণ তাদের ‘সোশ্যাল সেলিব্রিটি অব ২০১৮’ পুরস্কার এনে দিয়েছে।



মন্তব্য

Farhana commented 2 days ago
Poorly written article. And fill with misinformation. 1st of all the Japanese politicians only brought up BTS after they lost the verdict for compensating war forced labor against Korea. Why else would they bring up a picture of a t-shit that is from August? 2nd the fans are not asking them to apologize. Actually all of their international fans brought the 2!3! -from 2016- and made it chart in iTUNE's around the world, topping in 26 countries, so that the band could know that they are with them. And their japanese fans sang 'For You' for the band during their Tokyo Dome concert 13/11/18. Next time do research or someone can sue you for spreading misinformation.