kalerkantho


আসছে লিডার তবে...

দুই সপ্তাহ হলো অনলাইন নিউজ পোর্টালের সম্পাদক হয়েছেন। শিগগির চালু করতে যাচ্ছেন একটি ইউটিউব চ্যানেলও। কাল মুক্তি পাবে তাঁর নতুন ছবি ‘লিডার’। আরিফা জামান মৌসুমীর সাম্প্রতিক খবরাখবর জানাচ্ছেন সুদীপ কুমার দীপ

১৫ নভেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



আসছে লিডার তবে...

কাল মুক্তি পাবে দিলশাদুল হক শিমুলের ‘লিডার’। ছবির নাম ভূমিকায় অভিনয় করেছেন মৌসুমী। নতুন ছবি মুক্তি পাচ্ছে তবু উচ্ছ্বাস নেই অভিনেত্রীর মনে, আছে রাজ্যের ক্ষোভ। মৌসুমীর অভিযোগ, ৬০ শতাংশ কাজ বাকি ছবিটির। করেননি ডাবিংও। অথচ পরিচালক ছবিটি মুক্তি দেওয়ার জন্য উঠেপড়ে লেগেছেন। মাঝখানে চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতিতে অভিযোগ করেছিলেন। খুব একটা লাভ হয়নি। বিষয়টি দেখবে বলে আশ্বাস দেয় পরিচালক সমিতি। তাতেও লাভ না হওয়ায় শেষ পর্যন্ত ১২ নভেম্বর প্রযোজক সমিতিতে লিখিত অভিযোগ পাঠান। মৌসুমী বলেন, ‘চলচ্চিত্রে আমার ২৫ বছরের ক্যারিয়ার। কোনো পরিচালক-প্রযোজক বলতে পারবেন না আমি শিডিউল নষ্ট করেছি, তাঁদের ভুগিয়েছি। সব সময় সহযোগিতাই করেছি। শিমুল আমার সঙ্গে যা করেছেন, তা একেবারেই ঠিক হয়নি। একজন মৌসুমী এক দিনে তৈরি হয় না। আর সেই মৌসুমীর দর্শকদের সঙ্গে প্রতারণা করাটাও তাঁর ঠিক হবে না। আমার বিশ্বাস তিনি শুধরে যাবেন। আমার সঙ্গে যোগাযোগ করে আবার শিডিউল নেবেন এবং নতুন করে শুটিং করবেন।’

শুধু মৌসুমী একা নন, ছবিতে নাকি ওমর সানী ও ফেরদৌসকেও ঠকানো হয়েছে। মৌসুমীর অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে কথা হলো পরিচালক শিমুলের সঙ্গে। তিনি অবশ্য বললেন বিপরীত কথা, ‘এর আগে তাঁরা শিল্পী সমিতিতে যে অভিযোগ তুলেছিলেন আমি সেটা মিথ্যা প্রমাণ করেছি। একজন পরিচালক ভালো করেই জানেন, ছবিতে কোন শিল্পীর কাজ কতটুকু। এটা সিনেমা, এখানে কোটি টাকা লগ্নি করেছেন প্রযোজক। এই টাকা নিয়ে আমি তো ছেলেখেলা করতে পারি না। অবশ্যই পুরো কাজ শেষ হয়েছে বলেই সেন্সরে জমা দিয়েছি। ছবি দেখে সেন্সর বোর্ড ছাড়পত্রও দিয়েছে। মৌসুমী বা ওমর সানীর কাজ শেষ না করলে চিত্রনাট্য খাপছাড়া মনে হতো না! সেন্সর বোর্ড সদস্যদের মনে কি খটকা লাগত না! মিডিয়ায় এসব না বলে তাঁরা কিন্তু আমার সঙ্গে কথা বললেই পারেন। আমি তো তাঁদের ফোনেই পাই না।’

‘লিডার’ নিয়ে আর কোনো আলাপেই যেতে চাইলেন না মৌসুমী। আলাপ তুললেন ‘ইয়েসনিউজবিডিডটকম’ প্রসঙ্গে। কিছুদিন আগে এই অনলাইন পোর্টাল চালু হলো। বেশির ভাগ সময় এখন এখানেই কাটে। তিনি ছাড়াও চারজন সাংবাদিক কাজ করছেন। সামনে আরো কয়েকজন নিয়োগ দেবেন। প্রতিটি নিউজ তিনি নিজে সম্পাদনা করে তারপর প্রকাশ করেন। সম্পাদক হিসেবে নিয়েছেন কিছু নীতিগত সিদ্ধান্তও, ‘সবার আগে আমি একজন অভিনেত্রী। কোনো অভিনেতা-অভিনেত্রীর ব্যক্তিস্বার্থে আঘাত লাগে এমন কোনো নিউজ আমার পোর্টাল থেকে বের হবে না। পুরনোদের পাশাপাশি নতুন শিল্পীদের তুলে ধরব। উৎসাহ দেব। তাদের জন্য আমার তরফ থেকে নিয়মিত কিছু টিপসও থাকবে।’

এবার একটা খুশির খবর দিলেন। গত মাসে একটি মার্সিডিস ব্র্যান্ডের গাড়ি কিনেছেন। দীর্ঘদিনের স্বপ্ন ছিল এই ব্র্যান্ডের গাড়ি। তারকাজীবনের ২৫ বছর পর এসে পূরণ করলেন নিজের সেই স্বপ্ন। কালো রঙের গাড়িটি মাঝেমধ্যে নিজেও ড্রাইভ করেন।

খবর রটেছিল মৌসুমী নাকি জাতীয় সংসদ নির্বাচন করবেন! কেউ কেউ এমনও বলেছিলেন আওয়ামী লীগের হয়েই লড়বেন। খবরটাকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে মৌসুমী বলেন, ‘রাজনীতি করার ইচ্ছা একদম নেই। যদি আওয়ামী লীগ করি তাহলে বিএনপির ভক্তরা কষ্ট পাবে, বিএনপি করলে আওয়ামী লীগের ভক্তরা মেনে নিতে পারবে না। কেন অযথা অন্যের চোখে খারাপ হতে যাব? আমার ভক্তদের কেন বিভক্ত করব! তার চেয়ে এই বেশ ভালো আছি।’

আর শিল্পী সমিতির নির্বাচন? ‘যদি পেশিশক্তির নির্বাচন না হয়, টাকার নির্বাচন না হয় তাহলে এবারও আমি আর সানী নির্বাচন করব।’

শিগগির ইউটিউব চ্যানেল খুলতে যাচ্ছেন। শুরু করেছেন কনটেন্ট নির্মাণ। খুঁজছেন বেশ কিছু তরুণ নির্মাতা, “আমার কোটি টাকা নেই। তবে মনের জোর আছে। ইচ্ছা করে অনেক কিছু করার। কিন্তু টাকার অভাবে তো সব করা সম্ভব হয় না। আমার চ্যানেলটিতে সিনেমার পাশাপাশি কিছু নাটক, শর্টফিল্ম ও ওয়েব সিরিজ থাকবে। অবশ্য সবার আগে নজর দেব কনটেন্টের মানের দিকে। ভিউ বাড়ানোর জন্য সস্তা বা বাজে ভিডিও তৈরি করতে চাই না।’

পত্রিকা আর ইউটিউবের পেছনে এত সময় দিলে অভিনয় করবেন কখন? ‘শুটিং স্পটে বসেও এসব নিয়ন্ত্রণ করতে পারব। কোনো নিউজ আপলোড করার আগে ম্যাসেজ পাঠান সহকর্মীরা। সেগুলো সম্পাদনা করে আমি আবার তাঁদের পাঠাই। আর ইউটিউবের কনটেন্ট তো আগে থেকেই সিলেক্ট করা থাকবে। আমার শুটিংয়ের ব্যস্ততা থাকলে না হয় সানীই দেখভাল করবে। অভিনয় আমার মূল পেশা। সেখান থেকে সরে দাঁড়ানো সম্ভব নয়।’



মন্তব্য