kalerkantho


আবার বেঙ্গলি বিউটি!

জুলাইয়ে মাত্র একটি হলে মুক্তি পেয়েছিল, বড় পরিসরে কাল আবার মুক্তি পাবে ‘বেঙ্গলি বিউটি’। আমেরিকাপ্রবাসী পরিচালক-প্রযোজক-অভিনেতা রাহশান নূর এখন ঢাকায়। তাঁর সঙ্গে কথা বলেছেন মীর রাকিব হাসান

৪ অক্টোবর, ২০১৮ ০০:০০



আবার বেঙ্গলি বিউটি!

আমেরিকায় মুক্তি পেয়ে ভালো ব্যবসা করেছে ‘বেঙ্গলি বিউটি’। প্রথম বাংলাদেশি ছবি হিসেবে চীনের তিন হাজার হলে মুক্তি পাবে শিগগিরই। অবাক করা বিষয়, বাংলাদেশে মাত্র একটি হলে মুক্তি পেয়েছিল ছবিটি! কাল আবার নতুন করে মুক্তি পাবে ‘বেঙ্গলি বিউটি’। রাহশান নূর বলেন, ‘হলের সংখ্যা বেড়ে এবার ৩০টির মতো হতে পারে। জাজ মাল্টিমিডিয়ার কর্ণধার আব্দুল আজিজ ভাইয়ের সঙ্গে পরিচয় হলে তিনি জানান, ছবিটি তাঁর ভালো লেগেছে। আরো বেশি হল পাওয়া দরকার এই ছবির। তখন ছিল ঈদের সময়, অনেক হিসাব-নিকাশ থাকে। তাই এখন মুক্তি দিচ্ছি।’

রাহশানের দাদা নুরুল ইসলাম পাটোয়ারী ছিলেন সাপ্তাহিক ম্যাগাজিন ‘বিচিত্রা’র সম্পাদক। প্রকৌশলী বাবা ও চিকিত্সক মা জীবিকার প্রয়োজনে যান আমেরিকায়। সেখানেই জন্ম ও বেড়ে ওঠা রাহশানের। স্কুলে পড়ার সময়ই প্রথম সিনেমা বানান ‘কিংস অব ডেভন’, সেখানে অভিনয় করেছেন পরিবারের সদস্য ও তাঁর বন্ধুরা। যুক্তরাষ্ট্রের চারটি শহরে প্রদর্শিত হয়েছিল ছবিটি। পরে অভিনয় করেন ‘প্রমিস ল্যান্ড’, ‘দ্য স্পেকটাকুলার জিহাদ অব তাজ রহিম’-এ। শেষেরটিতে তাঁর নায়িকা ‘রকঅন’ ও ‘ধোবিঘাট’খ্যাত মনিকা ডোগরা। যুক্তরাষ্ট্রের অভিবাসীদের নিয়ে এই ছবি। ২০১৩ সালে মুক্তি পায় রাহশান অভিনীত বাংলা ছবি ‘সীমানাহীন’। বাংলাদেশ, ভারত, যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য ও অস্ট্রেলিয়ায় মুক্তি পেয়েছিল ছবিটি। এরপরই মাথায় এলো বাংলাদেশের জন্য চলচ্চিত্র নির্মাণের। তারই ফল ‘বেঙ্গলি বিউটি’। এখানে পরিচালনার পাশাপাশি মূল পুরুষ চরিত্রে অভিনয়ও করেছেন।

রাহশান বলেন, ‘ছবিটি বানানো হয়েছে আন্তর্জাতিক বাজার মাথায় রেখে। এর সিনেমাটোগ্রাফি, সংলাপ সেভাবেই করা হয়েছে। ফেব্রুয়ারিতে যুক্তরাষ্ট্রের ১২টি হলে মুক্তি দিয়েছিলাম। প্রবাসীরা বেশ ভালোভাবে গ্রহণ করেছিল। ছবির ব্যবসাও আমাকে সন্তুষ্ট করেছে। এবার আমি নিজের দেশের দর্শকের রেসপন্সের অপেক্ষায়।’

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের মৃত্যুর পরের কিছু সত্য ঘটনা নিয়ে ছবিটি। ১৯৭৪ সালে আমেরিকা ফেরত তরুণ আফজাল বাংলাদেশ বেতারের ডিজি হয়, তার সঙ্গে ময়না নামের এক তরুণীর সম্পর্ক গড়ে ওঠে। আফজাল এখানকার সিস্টেমের নানা সমস্যা চিহ্নিত করে সেগুলো পরিবর্তন করে দিতে চায়। কিন্তু তাকে অনেক প্রতিকূলতার মুখে পড়তে হয়।

ছবিতে আফজাল হয়েছেন রাহশান আর ময়না চরিত্রে মুমতাহিনা চৌধুরী টয়া। টয়ার অভিনয়ের প্রশংসা ঝরল রাহশানের কণ্ঠে, ‘সত্তরের দশকের নারী হতে তাকে অনেক হোমওয়ার্ক করতে হয়েছে। ও ভীষণ মনোযোগী ছিল। চরিত্রের সঙ্গে দারুণভাবে নিজেকে মানিয়ে নিয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের দর্শক ওর অভিনয় খুব পছন্দ করেছে।’

পরের ছবির নাম চূড়ান্ত করেছেন এরই মধ্যে—‘তরিকা’। বাংলাদেশ, চীন ও আমেরিকার সঙ্গে যৌথ প্রযোজনায় নির্মিত হবে ছবিটি। কলাকুশলী এখনো ফাইনাল করেননি। জাজ মাল্টিমিডিয়ার সঙ্গেও কথা চলছে, ব্যাটে-বলে মিলে গেলে এই প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানের ছবিও বানাবেন।

 



মন্তব্য