kalerkantho


আলোচনায় মাহতিম শাকিব

১৯ জুলাই, ২০১৮ ০০:০০



আলোচনায় মাহতিম শাকিব

মাহতিম শাকিব ভাইরাল হয়েছেন ‘মানসী’ চলচ্চিত্রে সাবিনা ইয়াসমিনের গাওয়া ‘এই মন তোমাকে দিলাম’ দিয়ে। গত ২২ মে নিজের ইউটিউব চ্যানেলে গানটি প্রকাশ করেন তিনি, যা খুব দ্রুতই ভাইরাল হয়ে যায়। ভিডিওতে জাস্ট বসে বসে গানটি গেয়েছেন মাহতিম। অর্থাৎ ভিডিওটি আহামরি কোনো বাজেটের নয়। অডিওতেই জোর দিয়েছেন। এই এক গানই রীতিমতো তারকা বানিয়ে দিয়েছে মাহতিমকে। ১৬ জুলাই দুপুর পর্যন্ত গানটির ভিউয়ার ছিল ৮৫ লাখের বেশি! মাহতিম বলেন, ‘এসএসসি পরীক্ষার আগে থেকে পরিকল্পনা করছিলাম পরীক্ষার পর নতুন কিছু গান প্রকাশ করব; যেগুলো আমার রাতের বেলায় কানে হেডফোন দিয়ে শুনতে ইচ্ছে করে। উত্সাহ পেয়েছি মূলত সনমপুরীকে দেখে। তারা পুরনো গানগুলোকে নতুন করে গাইছে। সেটা শ্রোতারাও গ্রহণ করছে। আমি চেয়েছি আমাদের জনপ্রিয় ছবির গান নিয়ে কাজ করতে। আমরা চার-পাঁচজন বন্ধু পুরো কাজটির সঙ্গে ছিলাম। মিউজিকটা আরো দুই বছর আগে বানানো। শুরুতে এই মিউজিকে অন্য গান করার ইচ্ছা ছিল। সাউন্ড প্রডিউসার হঠাৎ এই গানটির কথা বলে। গাওয়ার পর শুনে দেখি ভালো লাগছে।’ ‘এই মন তোমাকে দিলাম’ মাহতিমের কভার করা দ্বিতীয় গান। ভাইরাল এই গানে লাইক পড়েছে প্রায় দুই লাখ। এসেছে অসংখ্য কমেন্ট। নিজের নামে ফেসবুকে একটি পেজ থাকলেও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নেই মাহতিম। আর তাই শ্রোতাদের কমেন্টগুলোর খবরও জানেন না। বলেন, ‘এই গানটি ছাড়ার আগে আমার প্রথম কভারটির ভিউয়ার ছিল ৬৪ হাজার। প্রত্যাশা ছিল এটি ৭৪ হাজার ছাড়িয়ে যাক। এত দূর চলে আসবে ভাবনি। বলা যায় মাটি থেকে একটানে ছয়-সাততলা ওপরে চলে এসেছি।’ ইউটিউবে কভার করা মাহতিমের গানের মধ্যে আরো রয়েছে—‘আমি দূর হতে তোমারে দেখেছি’, ‘এই পথ যদি না শেষ হয়’, ‘এখন তো সময় ভালোবাসার’, ‘কানামাছি’, ‘ফাগুন হাওয়া’ (রবীন্দ্রসংগীত) প্রভৃতি। গত ঈদে এসেছে মাহতিমের প্রথম মৌলিক গান ‘বুকের বাঁ পাশে’ নাটকের টাইটেল। সেটিও ৩৭ লাখ ভিউয়ার ছাড়িয়ে গেছে। মাহতিমের মতে, দেশে তাঁর জেনারেশনের ছেলে-মেয়েরা বিদেশি গান নিয়ে যতটা আগ্রহী দেশি গানের ক্ষেত্রে ততটা নয়। বাংলাদেশের গান নিজের প্রজন্মের মধ্যে ছড়িয়ে দিতে কাজ করবেন তিনি। স্বপ্ন দেখেন ভিনদেশি গানের মতো বাংলাদেশের গানও একদিন বিশ্ব দরবারে দেশের নাম উজ্জ্বল করবে। নিজেকে আরো তৈরি করার জন্য মাহতিম পড়তে যেতে চান আমেরিকার ‘ম্যানহাটান স্কুল অব মিউজিক’-এ। বলেন, ‘আমি গান করি ভালোবাসা থেকে। ইউটিউব থেকে অর্থ উপার্জনের উদ্দেশ্যে নয়। আমি চাই সারা দিন পরিশ্রম করে মানুষ যখন বিছানায় যাবে তখন যেন ইউটিউবে আমাকে খোঁজে। আমার গান শুনে প্রশান্তি পায়।’ ভবিষ্যতে গ্র্যামি অ্যাওয়ার্ড জেতার স্বপ্নও দেখেন ১৭ বছর বয়সী এই কিশোর। বর্তমানে ক্লাসিক্যাল শিখছেন ওস্তাদ রফিক মাহমুদের কাছে। তাঁর প্রিয় শিল্পীদের তালিকায় রয়েছেন গুলাম আলী, এড শিরান, অরিজিৎ সিং। একদিন তাঁদের মতো নাম করতে চান মাহতিমও।



মন্তব্য