kalerkantho


সাজ্জাদের স্পেশাল ঈদ

ছোট পর্দায় এই সময়ের ব্যস্ততম অভিনেতাদের একজন। আসছে ঈদে ১৫টি নাটকে দেখা যাবে। ইরফান সাজ্জাদের সঙ্গে কথা বলেছেন মীর রাকিব হাসান

২৪ মে, ২০১৮ ০০:০০



সাজ্জাদের স্পেশাল ঈদ

দুই দিন ধরে তাঁকে পাওয়াই যাচ্ছিল না। দেখা করারও উপায় নেই, আজ এখানে শুটিং তো কাল ওখানে। রাতে ক্লান্ত হয়ে বাসায় ফিরছিলেন, শেষে ফোনেই আলাপ সারতে হলো। সামনে ঈদ, দম ফেলার সুযোগ নেই সাজ্জাদের। এবার ঈদে ১৫টিরও বেশি একক নাটকে পাওয়া যাবে তাঁকে। নাটকগুলোর বিশেষত্ব কী? ‘এবার বেশ কিছু পছন্দের পরিচালকের সঙ্গে কাজ করার সুযোগ হয়েছে। শিডিউল জটিলতার কারণে ভালো কিছু নাটক ছেড়ে দিতেও হয়েছে। দুর্বল চিত্রনাট্যের নাটক করিনি বললেই চলে। এবার যে কয়টা নাটক করছি তার চেয়ে বেশি প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছি।’

নাটকগুলোর কোনোটিতে তিনি ৭৫ বছর বয়সের বৃদ্ধ, কোনোটায় লেগুনার ড্রাইভার কিংবা বোকাসোকা ছেলে। প্রতিটিতেই নতুন নতুন অবতার। এর কারণও আছে, ‘এক বছর হলো নতুন কোনো ধারাবাহিক হাতে নিইনি। শুধু একক নাটকেই মনোযোগ দিয়েছি। কারণ সিঙ্গেল নাটকেই সম্ভব ভিন্ন ভিন্ন চরিত্রে নিজেকে যাচাই করা। এবার ঈদটা সে কারণেই আমার জন্য স্পেশাল। সিরিয়াস গল্পের নাটক যেমন আছে তেমনি ইমোশনাল, কমেডি চরিত্রও আছে। আমি ভীষণ এক্সাইটেড।’

কেমন গল্প পছন্দ? যে গল্পে দর্শক কমিউনিকেট করতে পারেন। খুব জটিল কিছু না, দর্শক বুঝলেই হলো। আর তাঁর চরিত্রটা হতে হবে প্লেফুল। দেখতে অনেক সুন্দর কিন্তু গল্পে চরিত্রের মোটিভ কিছুই নেই, এমন গল্প পছন্দ না। ৪০ মিনিট ধরে দর্শক শুধু সুন্দর দৃশ্য দেখবে, এমন নাটকও করতে চান না। কারণ তিনি চান নাটকটা দেখার অনেক দিন পরও যেন রেশটা থাকে দর্শকের মনে। কিছু উদাহরণও টানলেন—‘আমাদের গল্পটা এমন হতে পারত’, ‘হঠাৎ নীরার জন্য’, ‘আমি তুমি আমরা’ নাটকগুলো করে দারুণ রেসপন্স পেয়েছেন। সাজ্জাদের বিশ্বাস, এবারের ১৫টি নাটকের মধ্য থেকে আরো পাঁচটি প্রশংসিত নাটক যোগ হবে তাঁর ক্যারিয়ারে।

নাটকের বর্তমান অবস্থা নিয়ে অনেকেই সন্তুষ্ট নন। টিভিতে নাটক দেখা দর্শকের সংখ্যাও কমে গেছে। সাজ্জাদ বলেন, ‘ভালো নাটক হচ্ছে নিয়মিতই। প্রচুর দর্শক আমাদের নাটকের দিকে চোখ রাখছে। এখন সেটা তারা টিভিতে দেখছে নাকি ইউটিউবে, জানি না। ইউটিউবে দেখলেই বা ক্ষতি কী? ইউটিউবের হিসাব করলে বিষয়টা আরো পরিষ্কার, দর্শক হুমড়ি খেয়ে নাটক দেখছে।’

বড় পর্দায়ও নাম লিখিয়েছিলেন। সর্বশেষ ছবি তানিয়া আহমেদের ‘ভালবাসা এমনই হয়’। নতুন কোনো খবর? ‘বড় পর্দার খবরটা আমার কাছে এখনো মিস্টেরিয়াস। তানিয়া আপুর ছবিটা করার পর থেকে আমি খুব শক্ত হয়েছি। সত্যি বলতে, ছবিটা আমার টাইপের ছিল না, মানে আমার চরিত্রটা নিয়ে বলছি। সামনে একটু ম্যাচিউরড ছবি বা চরিত্রে অভিনয় করতে চাই। চারটি সিনেমায় অভিনয়ের কথা চলছে। ওদের কিছু ইস্যু আছে, আমারও কিছু ইস্যু আছে। সব কিছু মিলিয়ে বিষয়টা আসলে লক হচ্ছে না। নেক্সট যে ছবিই করি না কেন একচুলও ছাড় দিতে চাই না। সিনেমা নিয়ে আর কোনো এক্সপেরিমেন্ট করতে চাই না। যেটাই করব, মনে করব ওটাই আমার জীবনের শেষ ছবি। এ বছরই দুটি সিনেমার শুটিং শুরু হয়ে যেতে পারে। এর বেশি কিছু বলতে চাচ্ছি না।’



মন্তব্য