kalerkantho


ফেইসবুক থেকে

৫ এপ্রিল, ২০১৮ ০০:০০



ফেইসবুক থেকে

স্প্রিংফ্লোডেন

► স্প্রিংফ্লোডেন [স্প্রিং টাইড], ধরন : ড্রামা, মিস্ট্রি, থ্রিলার

দেশ : সুইডেন।

জোছনা রাত । সাল ১৯৯০। নর্ড কোস্টার দ্বীপের এক নির্জন সমুদ্রসৈকতে অন্তঃসত্ত্বা মেয়েটার বুক পর্যন্ত মাটিচাপা দেওয়া। এদিকে ভরা জোয়ার। একটু পরই পানি এসে মেয়েটার মাথা পুরোটা ডুবিয়ে দেবে। কিন্তু এই জনশূন্য স্থানে তার চিৎকার শোনার মতো কেউ নেই।

বর্তমান সময়। নর্ড কোস্টারের সেই খুনের ঘটনা অ্যাসাইনমেন্ট হিসেবে পুলিশ একাডেমির স্টুডেন্টদের দেওয়া হয়। সুইডেনের ইতিহাসে এটা ছিল অন্যতম অমীমাংসিত কেস। খুনির হদিস তো দূরে থাক, মেয়েটার পরিচয়, এমনকি নামও বের করা যায়নি । সেই মৃত বাচ্চার বাবার পরিচয়ও বের করা যায়নি। অলিভিয়া পুলিশ একাডেমির এক মেধাবী ছাত্রী। অ্যাসাইনমেন্টের কাজ করার সময় সে জানতে পারে যে তার প্রয়াত বাবা আর টম স্টিল্টন নামক আরেক পুলিশ অফিসার এই কেসের লিড ডিটেকটিভ ছিলেন। কেসটা নিয়ে অবসেসড হয়ে যায় অলিভিয়া। সে আবার নতুন করে সন্দেহভাজনদের জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করে। এত বছর পর কিছু পাবে না জেনে ক্রাইম সিনেও একবার ঘুরে আসে। কিন্তু অলিভিয়া অনেক খুঁজেও টমের খোঁজ বের করতে পারে না। কয়েক বছর আগে পুলিশের চাকরি ছেড়ে দেওয়ার পর টম যেন হাওয়ায় মিলিয়ে গেছে।

এদিকে স্টকহোমে হঠাৎ করেই বয়স্ক ঘরছাড়া মানুষের ওপর হামলা হচ্ছে। হামলাকারীরা মারধর করেই ক্ষান্ত হয়নি, সেই নির্যাতনের ছবি নেটেও ছেড়ে দিচ্ছে। অন্যদিকে কে যেন সুইডেনের এক জায়ান্ট মাইনিং কম্পানির প্রধানকে এমন সময় অতীতের এক বিষয় নিয়ে ব্ল্যাকমেইল করছে, যখন কম্পানির কিছু কাজ তুমুল সমালোচিত হচ্ছে। আবার কর্তৃপক্ষের চোখ ফাঁকি দিয়ে চলছে বিপজ্জনক কেজ ফাইটিং। এই নিয়ে বাজির রমরমা ব্যবসা হচ্ছে। কিন্তু এখানে ফাইটাররা জনপ্রিয় কোনো রেসলার নয়, ৯-১০ বছরের বাচ্চা।

এই প্রতিটি ঘটনাই কি বিচ্ছিন্ন? নাকি সম্পর্কিত? একই নামের উপন্যাস অবলম্বনে ২০১৬ সালে সুইডেনের অন্যতম জনপ্রিয় সিরিজ ‘স্প্রিংফ্লোডেন’। মেকিং গতানুগতিক ক্রাইম ড্রামা ঘরানা থেকে একটু আলাদা। কাহিনিতে বেশ কিছু অপ্রত্যাশিত বাঁক আছে। তবে সিরিজটা দেখে আমার মনে হয়েছে, ১০ পর্বের না হয়ে ৮ পর্বের হলে পারফেক্ট হতো। কারণ প্রথম দুই পর্ব একটু বেশিই ধীরগতির। চরিত্রগুলোর পরিচয় দিতেই তিন পর্ব লেগে গেছে! তবে তৃতীয় পর্বের পর কাহিনি জমে ওঠে। আর শেষ দুই পর্বে এমন মুখ হাঁ করানো অপ্রত্যাশিত টুইস্ট দিল যে সব দোষ মাফ করে দিয়েছি।

 

তাজিম রহমান নীশিথ

সিরিয়ালখোর গ্রুপের পোস্ট



মন্তব্য