kalerkantho


আড়ালের তাঁরা

হাসিখুশি সেই লোকটা

১৫ মার্চ, ২০১৮ ০০:০০



হাসিখুশি সেই লোকটা

সৌরভ শুক্লা

সৌরভ শুক্লা।  রামগোপাল ভার্মার ‘সত্য’র কাল্লু মামা চরিত্র দিয়ে আলোচনায় আসেন। ছবির সহচিত্রনাট্যকারও ছিলেন তিনি। এরপর ‘বরফি’, ‘কিক’ আর ‘পিকে’তেও মনে রাখার মতো অভিনয় করেছেন তিনি। পর্দায় উপস্থিতি যত অল্পই হোক ঠিকই নিজের মুনশিয়ানা দেখিয়ে দেন সৌরভ। সবচেয়ে জনপ্রিয় হন ‘জলি এলএলবি’ দিয়ে। ২০১৩ সালে মুক্তি পাওয়া ছবির বিচারকের চরিত্র করে সেরা পার্শ্বঅভিনেতা হিসেবে জাতীয় পুরস্কার পান। গেল বছর মুক্তি পাওয়া ছবিটির সিক্যুয়ালেও দেখা যায় তাঁকে। এ ছাড়া সত্যজিৎ রায়ের ছোটগল্প ‘অনুকূল’ অবলম্বনে স্বল্পদৈর্ঘ্য ছবি করেছেন সুজয় ঘোষ। সেখানেও সৌরভের অভিনয় প্রশংসিত।

‘সত্য’ ছাড়াও ‘ক্যালকাটা মেইল’, ‘এসিড ফ্যাক্টরি’ ইত্যাদি ছবির চিত্রনাট্যকারও তিনি। করেছেন পরিচালনাও। ২০০৩ সালে তাঁর পরিচালিত প্রথম ছবি ‘মুড্ডা-দ্য ইস্যু’ মুক্তি পায়। এরপর ‘চেহরা’, ‘পাপ্পু কান্ট ডান্স সালা’ ইত্যাদি ছবি পরিচালনা করলেও কোনোটিই তেমন সাফল্য পায়নি। অভিনয়, নির্দেশনা, লেখালেখি—সবই অবশ্য সমান প্রিয় তাঁর কাছে, ‘তিনটি একই আর্টের অংশ। লেখালেখির জন্য জানা প্রয়োজন। তাহলে নির্দেশনায় সুবিধা হবে। চরিত্রায়ণের জন্য অভিনয়ও দরকারি। আমার ক্লাসগুলোতে এটাই বলি, অভিনয় করতে চাইলে আগে লিখতে শেখো।’

ক্যারিয়ারে সিরিয়াস আর কমেডি সমানভাবে করেছেন সৌরভ। যদিও তিনি অভিনয়ে আলাদা কোনো ভাগ করতে চান না, ‘চিত্রনাট্যের ওপর ভিত্তি করেই বিশেষ মুহূর্তটা তৈরি হয়। মন খারাপের মধ্যেও হিউমার লুকিয়ে থাকে, আবার হিউমারের মধ্যে ডার্কনেস! আমি সব অনুভূতিকে চরিত্রটার মধ্যে ঢেলে দেওয়ার চেষ্টা করি।’

আগামীকাল মুক্তি পাচ্ছে সৌরভ শুক্লার নতুন ছবি ‘রেইড’।


মন্তব্য